শুধু উন্নয়ন নয়, উন্নত গণতন্ত্রও প্রয়োজন : ডেভিড ক্যামেরন

প্রকাশিত: ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২৮, ২০১৭

শুধু উন্নয়ন নয়, উন্নত গণতন্ত্রও প্রয়োজন : ডেভিড ক্যামেরন

শুধু উন্নয়ন নয়, উন্নত গণতন্ত্রও প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ডেভিড ক্যামেরন বলেন, ভবিষ্যতে বিশ্বের সামনে যেসব চ্যালেঞ্জ আছে, তার একটি হচ্ছে সুষ্ঠু ও কার্যকর গণতন্ত্র। এই গণতন্ত্র মানে এখানে শুধু মেয়াদ শেষের নির্বাচন নয়, সব অধিকার সমুন্নত রাখা।

তিনি বলেন, শুধু উন্নয়ন নয়, উন্নত গণতন্ত্রও প্রয়োজন। উন্নত গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি দুর্নীতি প্রতিরোধ এবং সহিংস জঙ্গিবাদ দমনের মতো চ্যালেঞ্জগুলো দূর করার ওপরও জোর দিতে হবে।

ডেভিড ক্যামেরন বলেন, উন্নত গণতন্ত্র মানে শুধুই নির্বাচন নয়। গণতন্ত্র মানে আইনের শাসন, মানবাধিকার, মৌলিক অধিকার ও ন্যায়বিচারের অধিকার নিশ্চিত করা। এই উপাদানগুলো একটা দেশকে শক্তিশালী করে। এসব উপাদানে ঘাটতি থাকলে সুশাসনের অভাব দেখা দেয়, যা ব্যবসার জন্য সহায়ক নয়। সারা বিশ্বে এ নিয়ে বিতর্ক চলছে। সারা বিশ্বেই আমরা এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছি। এই বিষয়গুলো নিয়ে বাংলাদেশে প্রকাশ্যে বিতর্ক হওয়া উচিত।

যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বলেন, এক-আধটু দুর্নীতি হলে ক্ষতি নেই বলে যাঁরা যুক্তি দেন, তারা ভুল করেন। দুর্নীতি ক্যানসারের মতো, যা মানুষকে রাজনীতি সম্পর্কে বীতশ্রদ্ধ করে তুলতে পারে।

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় সবার একসঙ্গে কাজ করা উচিত মন্তব্য করে তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ অবশ্যই রুখতে হবে। এ জন্য কখনো কখনো সামরিক শক্তিও প্রয়োগ করতে হয়। তবে লড়াইটা সব সময় সশস্ত্র পথে গিয়ে হয় না। কারণ, এখানে আইএসের মতাদর্শের পথ ধরে যারা সন্ত্রাস ছড়িয়ে দিচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে লড়াইটা আদর্শিকও। নিরাপত্তা দরকার, গোয়েন্দা তথ্যের প্রয়োজন। তবে সবচেয়ে বড় সংগ্রামটা হচ্ছে জনগণের হৃদয় জয় করা। যেখানটায় জনগণকে এমন একটা মুক্ত, অবাধ, সহনশীল ও গণতান্ত্রিক পরিবেশের স্বপ্ন তুলে ধরতে হবে।

ডেভিড ক্যামেরন বলেন, বিশ্বের জনগণ, বিশেষ করে তরুণেরা এমন একটা পরিবেশ দেখতে চান, যেখানে তারা নিজেদের মনের কথা বলতে পারেন, নিজেদের উন্নত ভবিষ্যৎ দেখতে পান।

ছয় বছর যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনের সময় বাংলাদেশে আসতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ করেন ডেভিড ক্যামেরন। প্রথমবারের মতো ঢাকায় সংক্ষিপ্ত সফরে এসে সফরের দ্বিতীয় দিনের শুরুতে সকালে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এরপর একটি তৈরি পোশাক কারখানা দেখতে যান তেজগাঁওয়ে। দুপুরে ইন্টারন্যাশনাল গ্রোথ সেন্টার (আইজিসি) আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে অংশ নেন। বিকেলে তিনি ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত মতবিনিময় সভায় যোগ দেন। সংক্ষিপ্ত সফর শেষে ডেভিড ক্যামেরন বৃহস্পতিবার রাতেই ঢাকা ছেড়ে গেছেন।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট