কমলগঞ্জে কাজীদের অসহযোগিতার কারণে রোধ হচ্ছেনা বাল্যবিয়ে

প্রকাশিত: ১:১৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০১৬

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার)প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় কাজীদের অসহযোগিতার কারণে রোধ করা যাচ্ছেনা বাল্যবিয়ে।এক সাপ্তাহ যেতে না যেতে আবারও বাল্যবিয়ে নামক ভয়ণ্কর অভিশাপ্ত ঝুঁকিতে পরতে পরতে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে, এযাত্রায় রেহায় পেলো উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের তেঁতইগাঁও রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর শাহানা বেগম (১৬)নামের এক স্কুল ছাত্রী। শাহান বেগম ছনগাঁও গ্রামের আকরম আলীর কন্যা।কমলগঞ্জ উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়,২৮ শে জুলাই বৃহস্পতিবার নানান আয়োজনে একই গ্রামের তোয়াব উল্ল্যাহর পুত্র শাহাবুদ্দিন (২৭)এর সাথে কিশোরী শাহানার বাল্যবিয়ের আনুষ্টানিকতা চলছিলো,এদিকে বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে কমলগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী ম্যাজেস্ট্রেট রফিকুল আলমের নেতৃত্বে কমলগঞ্জ থানার এ এস আই হামিদ সহ পুলিশের লোকজন নিয়ে উপস্হিত হন কনের পিত্রালয়ে।কনের বাড়ীর লোকজন ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্হিতি টের পেয়ে বিয়ের অনুষ্টান কে বানিয়ে ফেলেন আকিকার অনুষ্টান।পরে বাধ্য হয়ে মুখ খুলেন কনের পিতা,নির্বাহী ম্যাজেস্ট্রেট রফিকুল আলম উপস্হিত স্হানীয় ইউপি সদস্যের জিম্মায় মুচলেকা নিয়ে বাল্য বিয়েটি পন্ড করে আসেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত)রফিকুল আলম বাল্যবিয়ে বন্ধ করার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন একমাত্র কাজীদের অসহযোগীতার কারণে বাল্যবিয়ে রোধ করা সম্ভব হচ্ছেনা।এখন থেকে যে কাজীর বিরোদ্ধে বাল্যবিয়ে পরানোর অভিযোগ পাওয়া গেলেই, বিহিত ব্যবস্হা গ্রহন করা হবে।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট