সিলেটে জামায়াতের দোয়া দিবস পালিত

প্রকাশিত: ৭:৪১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৮, ২০১৭

সিলেটে জামায়াতের দোয়া দিবস পালিত

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও সিলেট মহানগর আমীর এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বলেছেন- ২০০৬ সালের ২৮শে অক্টোবর প্রকাশ্য দিবালোকে রাজপথে লগি-বৈঠা দিয়ে নিরীহ জামায়াত শিবির নেতাকর্মীদের নৃশংসভাবে হত্যার বর্বরতা জাহেলিয়াতকেও হার মানিয়েছিল। সেদিন তারা শুধু নিরীহ নেতাকর্মীদের পিটিয়ে হত্যা করে ক্ষান্ত হয়নি। লাশের উপর উঠে নৃত্য করার দৃশ্য বিশ্ববিবেককে নাড়া দিলেও আওয়ামীলীগের বিবেকে ক্ষনিকের জন্যও বাধেনি। আজ পর্যন্ত সেই নৃশংস মানবতাবিরোধী অপরাধের সাথে জড়িতদের বিচার না করে আওয়ামীলীগ দেশপ্রেমিক ইসলামী নেতৃত্বকে বিচারের নামে হত্যা করেছে। এই নারকীয় উল্লাসের সাথে জড়িতদের বিচার বাংলার মাটিতে হবেই। শহীদদের রক্ত বৃথা যাবেনা, বৃথা যেতে পারেনা। বাংলার সবুজ জমিনের ইনসাফ ভিত্তিক সমাজ বিনির্মানের মাধ্যমে ২৮শে অক্টোবরের লগি-বৈঠার তান্ডবে শাহাদাতবরনকারী শহীদদের রক্তের বদলা নেয়া হবে, ইনশাআল্লাহ।
শনিবার জামায়াত কেন্দ্র ঘোষিত আহুত দেশব্যাপী দোয়া দিবস কর্মসুচীর অংশ হিসেবে, ভয়াল ও নৃশংস ২৮শে অক্টোবরের নৃশংস লগি-বৈঠার তান্ডবে শাহাদাতবরনকারীদের রুহের মাগফেরাত কামনায় সিলেট নগর জামায়াত আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।
সলেট মহানগরীর বিমানবন্দর থানা জামায়াতের সেক্রেটারী শফিকুল আলম মফিক-এর পরিচালনায় বাদ আসর অনুষ্ঠিত মাহফিলে ২৮শে অক্টোবরের নির্মমতায় শাহাদাতবরনকারীদের রুহের মাগফেরাত, জাতীয় নেতৃবৃন্দের মুক্তি ও দেশ-জাতির মঙ্গল কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- সিলেট জেলা উত্তর জামায়াতের আমীর হাফিজ আনোয়ার হোসাইন খান, সিলেট মহানগর জামায়াতের নায়েবে আমীর মো: ফখরুল ইসলাম ও বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদের সদস্য ও সিলেট মহানগর সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ। মোনাজাত পরিচালনা করেন বিমাবন্দর থানা আমীর মুফতি আলী হায়দার। উপস্থিত ছিলেন- সিলেট সদর থানা জামায়াতের আমীর সুলতান খান ও সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জৈন উদ্দিন প্রমুখ।
এদিকে মহানগরীর শাহপরান পূর্ব, কোতয়ালী পূর্ব ও দক্ষিণ সুরমা থানা জামায়াতের উদ্যোগে পৃথক পৃথক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। শাহপরান পূর্ব থানা জামায়াতের উদ্যোগে অনুষ্ঠি আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর নায়েবে আমীর হাফিজ আব্দুল হাই হারুন। সভাপতিত্ব করেন থানা আমীর শামীম আহমদ ও পরিচালনা করেন জামায়াত নেতা হাফিজ মাহবুবুর রহমান। কোতয়ালী পূর্ব থানা জামায়াতের আমীর হাফিজ মশাহিদ আহমদের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী রফিক মজুমদারের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহানগর সেক্রেটারী মাওলানা সোহেল আহমদ। দক্ষিণ সুরমা থানায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন থানা আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান।

পৃথক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে নেতৃবৃন্দ বলেন, আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এসেই সকল মামলা প্রত্যাহারের মাধ্যমে ২৮শে অক্টোবরের মত নৃশংস হত্যাযজ্ঞে জড়িতদের আড়াল করেছে। বন্দুকের জোরে ক্ষমতার মসনদ ঠিক রাখতে আওয়ামীলীগ আজো বিভিন্ন কায়দায় ২৮শে অক্টোবের পাশাবিকতাকে লালন করে তাদের ধ্বংস ডেকে আনছে। স্বৈরাচারী সরকার বেশীদিন ঠিকে থাকতে পারবেনা । জনতার সরকার প্রতিষ্ঠিত হলে এর সাথে জড়িতদের বিচারের কাঠগড়ায় দাড় করানো হবে। অবিলম্বে ২৮ শে অক্টোবরের জঘন্য নৃশংস হত্যাযজ্ঞের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি নিশ্চিত করুন।-বিজ্ঞপ্তি

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট