বুয়েট শিক্ষার্থী ফাহাদ হত্যা : আজকের আন্দোলন স্থগিত, কাল নতুন সিদ্ধান্ত

জাতীয়

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যাকারীদের গুরুতর শাস্তি প্রদান সহ আট দফা দাবিতে চলমান আন্দোলন আজকের মত স্থগিত করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) রাত আনুমানিক পৌনে ১০টার দিকে বুয়েট উপাচার্যের কার্যালয়ের তালা খুলে আজকের দিনের মতো আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করেন শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সূত্রে জানা যায়, আগামীকাল বুধবার (৯ অক্টোবর) সকাল ১০টা থেকে আবারও আন্দোলন শুরু হবে। সেই সঙ্গে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষাসহ সকল কার্যক্রম স্থগিত থাকবে বলেও ঘোষণা দেওয়া হয়।

এর আগে মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বুয়েট উপাচার্যকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে শিক্ষার্থীরা। এরপর শিক্ষার্থীরা তাদের ৮ দফা দাবি উত্থাপন করে। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- ক্যাম্পাসে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ, খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা, ৭২ ঘণ্টার মধ্যে খুনিদের বুয়েট থেকে আজীবন বহিষ্কার, হত্যা মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের অধীনে স্বল্পতম সময়ে নিষ্পত্তি, আবাসিক হলগুলোতে র‌্যাগিংয়ের নামে নির্যাতন বন্ধে প্রশাসনকে জড়িত সকলের ছাত্রত্ব বাতিল করতে হবে, আহসানউল্লাহ হল এবং সোহরাওয়ার্দী হলের পূর্বের ঘটনাগুলোতে জড়িত সকলের ছাত্রত্ব বাতিল নিশ্চিত করতে হবে, শেরে বাংলা হলের প্রভোস্টকে প্রত্যাহার করতে হবে,  মামলা চলাকালীন সকল খরচ এবং আবরারের পরিবারের সকল ক্ষতিপূরণ বুয়েট প্রশাসনকে বহন করতে হবে।

অপরদিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে কার্যালয়ের বাইরে আসেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম। তিনি জানান, শিক্ষার্থীদের সব দাবির সঙ্গে নীতিগতভাবে একমত বুয়েট প্রশাসন। দাবি বাস্তবায়নের উপায় খোঁজা হচ্ছে। এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। দাবি বাস্তবায়নের উপায় নিয়ে আলোচনা চলছে। এ বিষয়ে শিক্ষার্থীদের সহায়তা প্রয়োজন।

প্রসঙ্গত,  গত রবিবার (৬ অক্টোবর) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শেরে বাংলা হলে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। নিহত ফাহাদ বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থী ছিলেন।

এ ঘটনায় সোমবার ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে রাজধানীর চকবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে ১০ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তারা সবাই বুয়েট ছাত্রলীগের নেতাকর্মী। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) গ্রেফতারকৃত ১০ আসামিকে পাঁচ দিন করে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

  •  
  •  

Leave a Reply