একশো বছর পর হলেও ইলিয়াছ আলী গুমের বিচার হবে : শামসুজ্জামান দুদু

প্রকাশিত: ৫:৩৬ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৪, ২০১৭

একশো বছর পর হলেও ইলিয়াছ আলী গুমের বিচার হবে : শামসুজ্জামান দুদু

ইলিয়াস আলী সহ গুমকৃতদের সন্ধান দাবীতে সিলেট বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান, ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের তুখোড় ছাত্রনেতা ও ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি এডভোকেট শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, কোটি জনতার হৃদয়ের স্পন্দন জননেতা ইলিয়াস আলীসহ বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের গুম করে আওয়ামীলীগ তাদের দীর্ঘদিনের লালিত অপরাজনীতির বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে। তাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা শেখ মুজিবুর রহমানের আমলে সিরাজ শিকদার সহ ৪০ হাজার মানুষকে আওয়ামী বাকশালীরা গুম করেছিল। মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের হাতেগড়া দল বিএনপি হচ্ছে গনতন্ত্রের জন্য আশির্বাদ আর আওয়ামীলীগ সবসময় গনতন্ত্রের জন্য অভিশাপ। কোন ষড়যন্ত্রই সফল হবেনা। কারন ইতিহাস স্বাক্ষী স্বৈরাচারদের পরিনতি কখনোই ভাল হয়না। অবশ্যই ইলিয়াস আলী সহ গুমকৃত নেতাকর্মীদের অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দিতে হবে। অন্যথায় আওয়ামীলীগকে চরম মূল্য দিতে হবে।

তিনি সোমবার সিলেট জেলা বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তবে উপরোক্ত কথা বলেন। নিখোঁজ হওয়া সিলেটের কোটি জনতার হৃদয়ের স্পন্দন বিএনপির সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য জননেতা এম. ইলিয়াস আলী সহ গুমকৃত নেতাকর্মীদের সন্ধান ও সরকার কর্তৃক নিরীহ নেতাকর্মীদের গুম-খুনের প্রতিবাদে সিলেট জেলা বিএনপি উক্ত প্রতিবাদী বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে। বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম এর সভাপতিত্বে ও জেলা সাধারন সম্পাদক আলী আহমদের পরিচালনায় নগরীর দরগাহ গেইটস্থ কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের শহীদ সুলেমান হলে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি কেন্দ্রীয় সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ সাখাওয়াত হাসান জীবন।
বিপুল সংখ্যক দলীয় নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সুবক্তা এডভোকেট শামসুজ্জামান দুদু বলেন, শহীদ জিয়া আদর্শের লড়াকু যোদ্ধা খাটি জাতীয়তাবাদী সৈনিক ইলিয়াস আলীর সাহসী নেতৃত্ব সিলেট তথা দেশবাসীর জন্য অনুকরনীয়। ইলিয়াছ আলী গণতন্ত্রের জন্য গুম হয়েছে। ভারতীয় আগ্রাসনে বিরুদ্ধে টিপাইমুখ বাঁধসহ বিভিন্ন ইস্যুতে সিলেটের মানুষকে সাথে নিয়ে আন্দোলনে নেমেছিলো। ২১ বছর পর ক্ষমতায় এসে যদি পিতা হত্যার বিচার করা যায় তবে একশো বছর পর হলেও ইলয়াছ আলী গুমের বিচার হবে।

সুনামগঞ্জ তথা হাওরাঞ্চলের মানুষের জন্য ত্রান সহ প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করতে হবে। সুনামগঞ্জ নিয়ে ত্রান ও দুর্যোগ সচিবের বক্তব্য ক্ষতিগ্রস্থ হাওরাঞ্চলের মানুষের সাথে উপহাসের শামিল। ওদের কান্ডজ্ঞানহীন বক্তব্যের নিন্দা জানানোর ভাষাটুকু আমরা হারিয়ে ফেলেছি। সারাদেশে বিএনপি তথা বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের উপর আওয়ামী বাকশালীদের হামলা, মামলা, নিপীড়ন, নির্যাতন, খুন, গুম ১৯৭১ সালের বর্বরতাকেও হার মানাচ্ছে। বিএনপিকে বাদ দিয়ে আর কোন নির্বাচন বাংলাদেশের মাটিতে হতে দেয়া হবেনা। সময় থাকতে সরকারের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে বলে আমরা মনে করি। অবশ্যই সরকার নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল করে সকল দলের অংশগ্রহনে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু জাতীয় নির্বাচন আয়োজন করবেন।
সমাবেশে অন্যন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, সাবেক জেলা সভাপতি ও ওসমানীনগর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মঈনুল হক চৌধুরী, বালাগঞ্জ উপজেলা বিএনপি সভাপতি কামরুল হুদা জায়গীরদার, গোলাপগঞ্জ উপজেলার সাবেক আহŸায়ক নজরুল ইসলাম ময়ুর, জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক একেএম তারেক কালাম, বিশ্বনাথ উপজেলা সভাপতি জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, ওসমানীনগর উপজেলা সভাপতি মোতাহির আলী, সদর উপজেলা সিনিয়র সহ-সভাপতি আজির উদ্দিন চেয়ারম্যান, শ্রমিক দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সুরমান আলী, জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন চেয়ারম্যান, জেলা মহিলা দলের সভাপতি পাপিয়া চৌধুরী, মহানগর মহিলা দলের সভাপতি অধ্যাপিকা সামিয়া চৌধুরী, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাঈদ আহমদ, সিলেট সদর উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোঃ আবুল কাশেম প্রমুখ।

সভার শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এইচ এম খলীলুর রহমান চেয়ারম্যান। এছাড়া সমাবেশে সিলেট জেলা, মহানগগর বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল সহ অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার সিলেটের কোটি জনতার হৃদয়ের স্পন্দন জননেতা এম ইলিয়াস আলী, ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমদ দিনার ও জুনেদ আহমদ এবং গাড়ী চালক আনসার আলী সহ অসংখ্য নেতাকর্মীদের গুম নামক কারাগারে আটকে রেখেছে, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে নিরীহ নেতাকর্মীদের ক্রসফায়ারের নামে হত্যা করা হচ্ছে। খুন-গুম বন্ধ করে জননেতা ইলিয়াস আলী সহ গুমকৃত সকল নেতাকর্মীদের অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দিতে সরকারকে বাধ্য করতে হবে।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট