তিন জঙ্গির মৃত্যু পরোয়ানা সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে

প্রকাশিত: ২:৪৯ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০১৭

তিন জঙ্গির মৃত্যু পরোয়ানা সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে

সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর উপর গ্রেনেড হামলা ও তিনজনকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত হরকাতুল জিহাদের (হুজি) নেতা মুফতি হান্নান, শরীফ শাহেদুল আলম ওরফে বিপুল এবং দেলওয়ার ওরফে রিপনের মৃত্যু পরোয়ানা সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছেছে। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সিলেটের বিচারিক আদালত থেকে এ পরোয়ানা কারাগারে পৌঁছে। সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার ছগির মিয়া এমন তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘হুজি নেতা মুফতি হান্নান, শরীফ শাহেদুল আলম ওরফে বিপুল এবং দেলওয়ার ওরফে রিপনের মৃত্যু পরোয়ানা আমরা পেয়েছি। তিনি জানান, মুফতি হান্নান ও শরীফ শাহেদুল হক রয়েছে কাশিমপুর কারাগারে। তাই এ দুই জনের মৃত্যু পরোয়ানা সেখানে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছ। নিয়ম অনুযায়ী, দণ্ডিত ব্যক্তি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইলে আপাতত এ পরোয়ানা সাইলেন্স থাকবে। সিলেট কারাগারে থাকা দেলওয়ার ওরফে রিপন তার আইনজীবী ও পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে প্রাণভিক্ষার সিদ্ধান্ত নেবেন।’ এর আগে বুধবার সকালে সিলেট কারাগারে বন্দি থাকা দেলওয়ার ওরফে রিপনকে রিভিউ আবেদন খারিজের পূর্ণাঙ্গ রায় পড়ে শুনানো হয়। ২০০৪ সালের ২১ মে সিলেটে হজরত শাহজালাল (রাহ.)-এর মাজারের ফটকের কাছে গ্রেনেড হামলায় ঢাকায় নিযুক্ত তৎকালীন ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীসহ ৭০ জন আহত হন, নিহত হন পুলিশের দুই কর্মকর্তাসহ তিনজন। ওই ঘটনায় করা মামলায় ২০০৮ সালের ২৩ ডিসেম্বর সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল জঙ্গিনেতা মুফতি হান্নান, জঙ্গি শরিফ শাহেদুল ও দেলোয়ারকে মৃত্যুদণ্ড এবং মহিবুল্লাহ ওরফে মফিজুর রহমান ও আবু জান্দালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন। গত বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট রায়ে তিনজনের মৃত্যুদণ্ড ও দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বহাল রাখেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকা আসামিদের করা আপিল গত ৭ ডিসেম্বর খারিজ হয়। আপিল না করায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত দুজনের দণ্ড বহাল থাকে। আপিল খারিজ করে সর্বোচ্চ আদালতের পূর্ণাঙ্গ রায় গত ১৭ জানুয়ারি প্রকাশ পায়। এরপর তিন আসামি রিভিউ আবেদন করলে তা খারিজ হয়।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট