দেশের সংকট নিরসনে আ,লীগ সরকারের পদত্যাগের বিকল্প নেই : মুক্তাদির

প্রকাশিত: ৫:৩৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০২২

দেশের সংকট নিরসনে আ,লীগ সরকারের পদত্যাগের বিকল্প নেই : মুক্তাদির

কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে জ্বালানী তেল, গণপরিবহণ, সকল পণ্যের মূল্যবৃদ্ধিসহ অসহনীয় লোডশেডিং-এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে সিলেট জেলা বিএনপি।


শুক্রবার (১২ আগস্ট) বাদ জুমা নগরীর কোর্ট পয়েন্ট থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে আম্বরখানায় গিয়ে সংক্ষিপ্ত এক পথসভায় মিলিত হয়।

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-ক্ষুদ্র ঋণ ও কুটিরশিল্প বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক। আরও বক্তব্য রাখেন- সিলেট জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম আহমদ।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির বলেছেন, ‘বিশ্ব বাজারে জ্বালানী তেলের দাম যখন কমছে তখন বাংলাদেশের সরকার প্রায় দ্বিগুণ পরিমাণে জ্বালানী তেলের দাম বাড়িয়েছে। এটি একটি গণ-বিরোধী সিদ্ধান্ত। এর বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই জনগণ ফুঁসে উঠেছে। সরকার একদিকে অন্যায় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছে, অন্যদিকে প্রতিবাদ করলে জনগণের উপর গুলি চালিয়ে তাদেরকে হত্যা করছে। ইতিমধ্যে দুটি তাজা প্রাণ আমাদের মাঝ থেকে বিদায় নিয়েছে। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে সাধারণ জনগণ ও দেশের অর্থনীতির ওপরে ভয়াবহ প্রভাব পড়েছে, দেশ পড়েছে চরম সংকটে। এই সংকট নিরসনে আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ করার কোন বিকল্প নেই।

 

এসময় তিনি নেতাকর্মীদের ঢাকায় যাওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে নির্দেশ দিয়ে বলেন, ‘অবিশ্বাস্য জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি হয়েছে। মানুষ হিমশিম খাচ্ছে। এই সরকার চরম অমানবিক।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ বার বার তেল, গ্যাস ও নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি করছে। তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত না হওয়ার কারণে জনগণের প্রতি তাদের কোন দায়বদ্ধতা নেই। তাই দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধভাবে আওয়ামী লীগকে প্রতিহত করতে হবে।

এসময় বক্তারা বলেন, ‘দেশ আজ খুবই সংকটে আছে। এখন আর দেশে কোন একটা প্রতিষ্ঠান নেই যেখানে অনিয়ম হয় না। সব কিছু এই লুটেরা সরকার নষ্ট করে দিয়েছে। আমাদের দুর্ভাগ্য যে, দেশের কোনো প্রতিষ্ঠান ভালোভাবে গড়ে ওঠেনি। ভালো স্বাস্থ্য ও শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে ওঠেনি। শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের ব্যবস্থা গড়ে ওঠেনি। দেশ ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছে এই আওয়ামী লীগ।

এসময় সিলেট জেলা বিএনপির ১৮টি ইউনিটের নেতাকর্মীসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কয়েক হাজার নেতাকর্মী মিছিলে অংশ নেন।


 

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট