বিশ্বনাথে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের হাতে বিএনপি নেতা লাঞ্চিত

প্রকাশিত: ২:১৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৩, ২০২২

বিশ্বনাথে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের হাতে বিএনপি নেতা লাঞ্চিত

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিনকে জুতাপেটা করার পর এবার দলটির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক লিলু মিয়াকে প্রকাশ্যে জুতাপেটা করেছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাবেক নেতা সুহেল আহমদ চৌধুরী।

গত শুক্রবার (১ এপ্রিল) রাত ৯টায় পৌরশহরের কলেজ রোডস্থ থানা মসজিদের সামনে ঘটনাটি ঘটে। ঘটনার কয়েকটি ভিডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ভিডিওতে দেখা যায়, লিলু মিয়াকে জুতা দিয়ে বেধড়ক পেটাচ্ছেন সুহেল চৌধুরী।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে লিলু মিয়া ও সুহেল চৌধুরী বলয়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে যেকোনো সময় সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিশ্বস্ত সূত্রের মাধ্যমে ভিডিও ক্লিপগুলো এসেছে এই প্রতিবেদকের হাতেও। ওই ভিডিওগুলোতে দেখা যায়, ‘তোরে উপজেলা বিএনপির সেক্রেটারি আমি বানাইছি। আমি নেতা বানাইছি।

তোরে কে চিনতো। তুই আমার লগে বিরোধিতা করোস। তুই মনো করোস জানাইয়ার (স্থানীয় গ্রাম) পুয়াইনতে তরে বাচাইলিবা’-এসব বলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত একজনকে ভিডিও করার নির্দেশ দিয়ে জুতা দিয়ে লিলু মিয়াকে পেটাচ্ছেন সুহেল আহমদ চোধুরী।

এর আগে কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ২০১৯ সালের ৬ নভেম্বর রাতে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিনকে বিশ্বনাথ থানার বিপরীতে একটি মার্কেটের ২য় তলায় ডেকে নিয়ে জুতাপেটা করেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরী।

গতকালের ঘটনা সম্পর্কে জানতে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও অলংকারী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান লিলু মিয়াকে কল দিলে তিনি রিসিভ করেননি।

তবে, উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘আমার সহযোদ্ধা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক লিলু মিয়া গতকাল রাত ৯টার দিকে বিশ্বনাথ থানা মসজিদের সামনে সুহেল চৌধুরী নামের ডাকাতের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন। তিনি আমাদের দলের কেউ নয়। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরী বলেন, ‘ওইদিন রাতে জনৈক হেলপারের সাথে ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ডায় জড়ান লিলু মিয়া।

বিষয়টি আমার দৃষ্টিগোচর হলে বাস মালিক সমিতির সভাপতি হিসেবে আমি তাকে নিভৃত করার চেষ্টা করি। এতে তিনি অপমানিত বোধ করে ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বিরুদ্ধে হামলা-লুট পাটের অভিযোগ তুলেছেন। যা আদৌ সত্য নয়।

এ বিষয়ে বিশ্বনাথ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গাজী আতাউর রহমান বলেন, ‘উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক লিলু মিয়া সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এটি আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’