২০ মে থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ

প্রকাশিত: ৭:১০ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০২২

২০ মে থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ

নতুন ভোটারদের অন্তর্ভুক্তি, মৃতদের বাদ এবং ভোটার স্থানান্তরের লক্ষ্য নিয়ে আবারও শুরু হচ্ছে ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ। আগামী ২০ মে থেকে তিন সপ্তাহ ধরে এই কাজ চলবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ।

রোববার ইসি সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান তিনি। কাজী হাবিবুল আউয়াল নেতৃত্বাধীন নতুন ইসি দায়িত্ব নেওয়ার এক মাসের মধ্যে হালনাগাদের এ সিদ্ধান্ত এল।

ইসির অতিরিক্ত সচিব জানান, ২০১৯ সালের পর এ বছর বাড়ি বাড়ি গিয়ে হালনাগাদের কাজ শুরু হচ্ছে। এ সময় নতুন ভোটারদের অন্তর্ভুক্তি, মৃতদের বাদ ও স্থানান্তরের কাজ চলবে।

২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে যাদের জন্ম, এমন ভোটারযোগ্য নাগরিকদের তথ্য নিবন্ধনের জন্য সংগ্রহ করা হবে। ১৫-১৭ বছর বয়সীদের তথ্য সংগ্রহ হবে। ১৮ বছর বয়স হলেই স্বংক্রিয়ভাবে তারা ভোটার তালিকাভুক্ত হবে।

তিনি জানান, তিন সপ্তাহ পর্যন্ত বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহের কাজ চলবে। এরপর নির্ধারিত নিবন্ধন কেন্দ্রে ছবি তোলা, দশ আঙুল ও চোখের আইরিশের ছাপ নেওয়া হবে।

কখন, কোথায় তথ্য সংগ্রহের কাজ চলবে, তা গণমাধ্যমে ও স্থানীয়ভাবে পরে জানিয়ে দেবে কমিশন। সব প্রক্রিয়া শেষ করে খসড়া তালিকা প্রকাশ, দাবি আপত্তি শেষে আগামী বছর মার্চে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ হবে।

২০২৩ সালের ২ মার্চে যেসব নতুন ভোটার চূড়ান্ত ভোটার তালিকাভূক্ত হবেন (১ জানুয়ারি ২০০৫ বা তার আগে যাদের জন্ম) তারা দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন।

সবশেষ ২০১৯ সালে বাড়ি বাড়ি গিয়ে নির্ধারিত পদ্ধতিতে হালনাগাদের কাজ চলে। এরপর বছরব্যাপী থানা নির্বাচন অফিসে ভোটার তালিকাভক্ত হওয়ার সুযোগ থাকে। অনলাইনে ভোটার তালিকাভুক্ত হওয়ার এ সুযোগ বরাবরের মতো বিদ্যমান রয়েছে।

এ বছর ২ মার্চ চূড়ান্ত ভোটার তালিকার পর এখন মোট ভোটার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৩২ লাখ ৮৭ হাজার ১০ জনে।

দেশের মোট ভোটারের মধ্যে ৫ কোটি ৭৬ লাখ ৮৯ হাজার ৫২৯ জন পুরুষ, ৫ কোটি ৫৫ লাখ ৯৭ হাজার ২৭ জন নারী এবং ৪৫৪ জন হিজড়া ভোটার রয়েছেন।