রেড অ্যালার্ট জারি, বিপৎসীমার ৭০ সেন্টিমিটার ওপরে তিস্তার পানি

প্রকাশিত: ৪:২৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০২১

রেড অ্যালার্ট জারি, বিপৎসীমার ৭০ সেন্টিমিটার ওপরে তিস্তার পানি

সুমন খান, লালমনিরহাট : লালমনিরহাটে ভারত থেকে আসা পানির চাপে তিস্তা ব্যারেজ ফ্লাড বাইপাস ভেঙে গেছে। এরই মধ্যে ব্যারেজ রক্ষার্থে রেড অ্যালার্ট জারি করে তিস্তার তীরবর্তী লোকজনদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে মাইকিং করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

বুধবার (২০ অক্টোবর) দুপুর ২টার দিকে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার ৭০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে আরও কি পরিমাণ পানি আসবে এমন তথ্য নেই পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছে।

হাতীবান্ধা উপজেলার গড্ডিমারী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল জানান, তিস্তা নদীর পানি হঠাৎ করে বেড়ে যাওয়ায় পানির স্রোতে বড়খাতা-হাতীবান্ধা বাইপাস সড়কটি বিভিন্ন স্থানে ভেঙে গেছে। এতে তার ইউনিয়নের কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্দিসহ পুরো লালমনিরহাট জেলার ৫ উপজেলার তিস্তা তীরবর্তী হাজার হাজার একর ফসলি জমি পানিতে ডুবে গেছে।

এ দিকে, জেলা পরিষদ সদস্য শাকিল হোসেন জানান, বালু পড়ে তিস্তা ব্যারেজের গেটগুলো বন্ধ হয়ে গেলেও ব্যারেজ কর্তৃপক্ষ গেট থেকে বালু সরিয়ে ফেলেনি। ফলে তিস্তা ফ্লাড বাইপাসে পানির চাপ বেড়ে গিয়ে তা ভেঙে যায়। এতে তিস্তার পানি শহরে ঢুকে পড়ছে।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর দৈনিক অধিকারকে বলেন, পানির চাপে তিস্তা ফ্লাড বাইপাস ভেঙে গেছে। এতে তিস্তার তীরবর্তী অঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও ইউএনওদের মাধ্যমে বন্যা পরিস্থিতির খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।

এ দিকে, পানি উন্নয়ন বোর্ড ডালিয়ার নির্বাহী প্রকৌশলী আসফুদ্দৌলা বলেন, মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাত থেকে তিস্তার পানি বেড়ে ডালিয়া পয়েন্টে বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়েছে। বুধবার সকাল ৯টার দিকে ওই পয়েন্টে ৬০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয় এবং দুপুর ১২টায় বিপৎসীমার ৭০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি আরও জানান, ইতোমধ্যে ব্যারেজের ফ্লাড বাইপাসটি পানির চাপে ভেঙে গেছে। তিস্তার পানি ক্রমেই বাড়ছে। আরও কি পরিমাণ পানি আসতে পারে তা ধারণা করা যাচ্ছে না।


 

  •