বড়বাজারে ছাত্রলীগের নয়া সেক্রেটারির বাসায় হামলা

প্রকাশিত: ৫:০৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০২১

বড়বাজারে ছাত্রলীগের নয়া সেক্রেটারির বাসায় হামলা

সিলেট জেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজের আম্বরখানা বড়বাজারস্থ বাসায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এ হামলা চালানো হয়।

কমিটি গঠনের জেরে ছাত্রলীগের তেলিহাওর গ্রুপের সাবেক ও বর্তমান একদল নেতাকর্মী এ হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন রাহেল সিরাজের ভাই রুমেল সিরাজ। তিনি গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক।

রাহেল সিরাজও তেলিহাওর গ্রুপ করতেন। কিছুদিন আগে তিনি ওই গ্রুপ ত্যাগ করেন। তেলিহাওর গ্রুপ থেকে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী ছিলেন সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাওয়াদ ইবনে জাহিদ খান। কিন্তু কমিটিতে রাহেল সিরাজ সাধারণ সম্পাদক হওয়ায় তাকে মেনে নিতে পারছেন না গ্রুপের শীর্ষ নেতারা।

কমিটি প্রত্যাখ্যান করে মঙ্গলবার বিকেলে তেলিহাওর গ্রুপের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। এ সময় তারা সড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করেন। এ সময় নেতা-কর্মীদের হাতে ঝাড়ুও দেখা গেছে।

জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ ও যুগ্ম সম্পাদক জাওয়াদ খান অনুসারীরা বিক্ষোভ সমাবেশে অভিযোগ করে বলেন, টাকার বিনিময়ে একাধিক মামলার আসামি, অছাত্র রাহেলকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

রাহেল সিরাজের ভাই রুমেল সিরাজ অভিযোগ করে বলেন, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ, মহানগর শাখার সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি সুজেল তালুকদার ও যুবলীগ নেতা দুলাল আহমদের নেতৃত্বে ১০-১৫টি মোটরসাইকেলে ৩০-৩৫ জন যুবক তার বাসায় হামলা চালান। এ সময় তাকে বাইরে পেয়ে তার ওপরও হামলার চেষ্টা করা হয়। তিনি দৌড়ে বাসায় ঢুকে আত্মরক্ষা করেন। এরপর হামলাকারীরা বাসায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে পালিয়ে যান।

খবর পেয়ে সিলেট মহানগরের বিমানবন্দর থানার আম্বরখানা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) মফিজুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

এ ব্যাপারে জানতে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ  বলেন, আমরা কারও বাসায় হামলা করিনি। তারপরও যদি কেউ অভিযোগ করেন বাসায় হামলা করেছি তাহলে তারা মামলা করতে পারেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেই দেখতে পারবে হামলা হয়েছে কি না।

সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সুজেল আহমদ তালুকদার হামলার ঘটনায় তার সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিক্ষুব্ধ কোনো নেতাকর্মী হামলা করতে পারেন। কারণ কমিটি ঘোষণার পর সিলেট ছাত্রলীগে ক্ষোভের আগুন জ্বলছে। এ ক্ষোভ থেকে কেউ হামলা করতে পারেন।

মঙ্গলবার বিকেলে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নয়া কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়।


 

  •