সেজান জুস কারখানার আগুনে ৫৩ জনের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: ৪:০০ অপরাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০২১

সেজান জুস কারখানার আগুনে ৫৩ জনের লাশ উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জেরর রূপগঞ্জ উপজেলার কর্ণগোপ এলাকার সেজান জুস কারখানার আগুনে পুড়ে মৃত ৫৩ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এই লাশগুলো উদ্ধার করেছে। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক দেবাশীষ বর্মন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ভবনের পঞ্চম ও ষষ্ঠ তলায় উদ্ধার কাজ শুরু করেছে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। এর আগে চতুর্থ তলা থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তালাবদ্ধ থাকায় চতুর্থ তলার কোনো শ্রমিক আগুন লাগার পর বের হতে পারেনি। তারা দগ্ধ হয়ে ভবনের ফ্লোরেই মারা গেছেন।

এদিকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসেনি। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সেজানের জুস কারখানায় বৃহস্পতিবার বিকেলে আগুনের সূত্রপাত হয়। তবে কিভাবে আগুন লেগেছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের এই কর্মকর্তা।

স্বজনদের আহাজারি
প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী জানিয়েছে, আগুন লাগার খবর শুনে বৃহস্পতিবার রাত থেকেই কারখানার সামনে ভীর করেছেন অনেকে। স্বজনদের খুঁজতে আসা মানুষের আহাজারিতে এলাকার আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। করুণ এক দৃশ্য। কেউ ছুটছেন স্বজনের খোঁজে। শোকে কেউ কেউ অজ্ঞান হয়ে পড়েন। কেউবা বাক রুদ্র। কেউবা নিরবে দাঁড়িয়ে আছেন ভবনের পাশে। আবার কেউ কেউ মুর্ছা যাওয়া স্বজনদের হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছেন।

নিখোঁজ ৪৫ জন
সরেজামিনে শুক্রবার দুপুরে দেখা গেছে, নিখোঁজ শ্রমিকদের খুঁজতে আসা স্বজনরা দিগ্বিদিগ ছুটাছুটি করছেন। কেউবা উত্তেজিত হয়ে কারখানার কর্মকর্তাদের খোঁজেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে ভবনের ছাদ থেকে এক এক করে লাফিয়ে শ্রমিকরা মাটিতে পড়েন। এ ঘটনায় অনেকের হাত-পা ভেঙে গেছে। মাথায়, পিঠে মারাত্মক জখম হয়েছে। নিখোঁজ হয়েছেন ৪৫ জন শ্রমিক। তাদের ৩৩ জনের পরিচয় মিলেছে



  •