সিলেটে ফটো সাংবাদিক করিমের উপর হামলার ঘটনায় মামলা

প্রকাশিত: ৮:৪৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১

সিলেটে ফটো সাংবাদিক করিমের উপর হামলার ঘটনায় মামলা

সিলেট প্রেসক্লাবের সদস্য ও সিলেটের আঞ্চলিক পত্রিকা দৈনিক সবুজ সিলেটের ফটো সাংবাদিক মো. করিম মিয়ার উপর হামলার ঘটনায় দক্ষিণ সুরমা মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম।

২৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার রাতে এই মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং- ১১৪৫(২)/৫। মামলায় ৪ জনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৩ জনকে আসামী করা হয়েছে। আসামীরা হলেন- দক্ষিণ সুরমা উপজেলার বরইকান্দি (সুনামপুর) গ্রামের মৃত জয়নুল মিয়ার ছেলে ডালিম উদ্দিন (৩৪), গিয়াস উদ্দিন (৪৫), আলম উদ্দিন (৪০) ও মেয়ে সায়লা বেগম (৩৮)।

মামলার এজহার সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় আসামীরা ফটো সাংবাদিক মো. করিম মিয়ার বসতঘর ও পৈত্রিক ভূমি জোরপূর্বক দখল করার জন্য দেশিয় অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জ্বিত হয়ে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার ওপর এলোপাতারি হামলা চালায় এজাহার নামীয় আসামীরা।

নিজেকে বাঁচাতে করিম তাদের প্রতিহত করলে এসময় আসামীদের বেধড়ক হামলায় তার হাতের আঙুল ও হাতের তালুতে কেটে যায়। আসামীরা দা’র হাতা দিয়ে তার ডান পায়ের কবজ্বি ভেঙ্গে দেয়। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় করিমকে মাটিতে ফেলে দিয়ে ৪ নং আসামী সায়লা বেগম করিমের মায়ের চুল ধরে টানাহেচড়া করে।

এসময় তার অসুস্থ পিতা মো. শাহাব উদ্দিন এগিয়ে আসলে তাকেও গালিগালাজ করে। হামলার সময় আসামীরা করিমের সাথে থাকা ডিএসএলআর এন-৩১ মডেলের ক্যামেরা যার মূল্য ১৬ হাজার টাকা ও ক্যামেরার ল্যান্স, যার মূল্য ১০ হাজার টাকা ও মানিব্যাগে থাকা ৭৫০ টাকাসহ নিয়ে যায়।

পরে স্থানীয়রা রক্তাক্ত অবস্থায় করিমকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমানে সে হাসপাতালের ৩য় তলার ১১ নং ওয়ার্ডের ৩ নং বেডে চিকিৎসাধীন। এজাহার সূত্রে আরো জানা গেছে, ২ নং আসামী গিয়াস উদ্দিন লন্ডনে একটি ধর্ষণ মামলায় ৭ বছর কারাভোগের পর ব্রিটিশ সরকার তাকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়।

এছাড়াও গিয়াস উদ্দিন (৪৫)-এর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরওয়ানা জারী রয়েছে । ১নং আসামী ডালিম উদ্দিন মাদক ও অসামাজিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত।  তার বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা থানায় বেশ কয়েকটি চুরি ও ছিনতাই মামলা রয়েছে। দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, সাংবাদিক মো. করিম মিয়ার ওপর হামলার ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামীদের ধরতে বিভিন্ন জায়গায় আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। প্রেস-বিজ্ঞপ্তি।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট