বিশ্বে করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে

প্রকাশিত: ১০:১৫ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২১

বিশ্বে করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে

করোনা ভাইরাস মহামারিতে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কয়েকদিন ধরে ধারাবাহিক বৃদ্ধির পর গত একদিনে তা অনেকটাই কমেছে। গত একদিনে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৭৯২ জনের। একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৯০ হাজার ৭৯ জন।

মহামারির শুরুর পর থেকে বিশ্বের সব দেশ ও অঞ্চলের করোনা সংক্রমণের তথ্য হালনাগাদ করা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডো মিটারসের সর্বশেষ তথ্য বলছে, সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১০ কোটি ৯৩ লাখ ৮৬ হাজার ২২৮ জন।

একই সময় নাগাদ বিশ্বে করোনায় মোট মারা গেছেন ২৪ লাখ ১১ হাজার ৪৩৬ জন। করোনা থেকে সেরে ওঠা মানুষের সংখ্যা ৮ কোটি ১৬ লাখ ২১ হাজার ১৮০ জন।

প্রাণঘাতী ভাইরাসটির থাবায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিতের সংখ্যা ২ কোটি ৮২ লাখ ৬১ হাজার ৪৭০ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ৪ লাখ ৯৭ হাজার ১৭৪ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৯ লাখ ১৬ হাজার ১৭২ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৫৫ হাজার ৭৬৪ জন।

তৃতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৯৮ লাখ ৩৪ হাজার ৫১৩ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ২ লাখ ৩৯ হাজার ২৯৪ জন।

তালিকায় রাশিয়ার অবস্থান চতুর্থ। যুক্তরাজ্য পঞ্চম। ফ্রান্স ষষ্ঠ। স্পেন সপ্তম। ইতালি অষ্টম। তুরস্ক নবম। জার্মানি দশম। তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৩১তম।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। চীনে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। তবে তার ঘোষণা আসে ১১ জানুয়ারি।

২০২০ সালের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে অদৃশ্য ভাইরাসটি। এরই মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ করোনার টিকা প্রদান শুরু করেছে। বাংলাদেশেও করোনার টিকাদান শুরু হয়েছে। ৪০ বছর বা তদূর্ধ্ব বয়সী ব্যক্তিরা করোনা টিকা নিতে পারবেন।