পাথর কোয়ারী খুলে দেওয়ার দাবীতে সিলেট বিভাগে ২২ ডিসেম্বর থেকে তিনদিনের পরিবহন ধর্মঘট আহ্বান

প্রকাশিত: ৬:১২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৭, ২০২০

পাথর কোয়ারী খুলে দেওয়ার দাবীতে সিলেট বিভাগে ২২ ডিসেম্বর থেকে তিনদিনের পরিবহন ধর্মঘট আহ্বান

সিলেট বিভাগের পাথর কোয়ারিসমূহ খুলে দেয়ার দাবিতে আগামী ২২, ২৩ ও ২৪ ডিসেম্বর সিলেট বিভাগে সকল প্রকার পরিবহন ধর্মঘট আহŸান করা হয়েছে। গণপরিবহণ ও পণ্যপরিবহণ মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ ধর্মঘট আহ্বান করেছেন।
বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর সুবহানীঘাটস্থ হোটেল ভেলি গার্ডেনে পাথর কোয়ারী সচল করার দাবীতে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। সিলেট বিভাগীয় ট্রাক-পিকআপ-কাভার্ডভ্যান মালিক ঐক্য পরিষদ ও সিলেট জেলা ট্রাক মালিক গ্রæপের সভাপতি আলহাজ¦ গোলাম হাদী ছয়ফুল এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।
সিলেট জেলা ট্রাক মালিক গ্রæপের সভাপতি গোলাম হাদী ছয়ফুলের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদক সাদেক খান, সাংগঠনিক সম্পাদক ও হবিগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবেহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সজিব আলী, সিলেট বিভাগীয় ট্রাক-পিকআপ-কাভার্ডভ্যান মালিক ঐক্য পরিষদ ও হবিগঞ্জ জেলা ট্রাক ট্যাংকলরি মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক, মৌলভীবাজার জেলা ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আজাদুর রহমান ওয়াদুদ, হবিগঞ্জ জেলা মটর মালিক গ্রæপের সহ সভাপতি মোঃ হেলাল উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক আবু মঈন চৌদুরী সুহেল, হবিগঞ্জ জেলা বাস মিনিবাস ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সহ সভাপতি মোঃ জিতু মিয়া, সুনামগঞ্জ জেলা বাস মালিক গ্রুপের যুগ্ম-সম্পাদক মোঃ মুর্শেদ আলম, সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরি সভাপতি বুরহান উদ্দিন, সুনামগঞ্জ জেলা ট্রাক ট্যাংকলরি কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও বিভাগীয় শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ নুর উদ্দিন, সিলেট জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান নির্বাচন কমিশনার হাজী গোলাম হাফিজ লোহিত, সিলেট জেলা ট্রাক পিকআপ কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরি সভাপতি আব্দুস সালাম, সিলেট জেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল কবির পলাশ, সিলেট জেলা অটো টেম্পো অটো রিক্সা শ্রমিক জোটের সভাপতি মোঃ খলিল খান প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, সিলেটের পাথর কোয়ারী বন্ধ থাকায় প্রায় ১৫ লক্ষ মালিক-শ্রমিক অসহায় হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। পরিবহণ ব্যবসা’সহ সকল প্রকার ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ভেঙ্গে পড়েছে বৃহত্তর সিলেটের অর্থনৈতিক অবকাঠামো। ইতিমধ্যে পাথর কোয়ারী খুলে দিতে বিভিন্ন দফতরে স্মারকলিপি ও সিলেট জেলায় ৪৮ ঘন্টার ধর্মঘট পালন করা হয়েছে। এরপরও কোয়ারী খুলে দেওয়া হচ্ছে না। তাই বাধ্য হয়ে ১৫ লক্ষাধিক মানুষের জীবন রক্ষার্থে আগামী ২২, ২৩ ও ২৪ ডিসেম্বর সিলেট বিভাগে সকল প্রকার পরিবহণ ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে।


সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট