শীর্ষ দুর্নীতিবাজদের রুখতে হলে মৃত্যুদণ্ডের আইনের বিকল্প নেই

প্রকাশিত: ৩:২৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৯, ২০২০

শীর্ষ দুর্নীতিবাজদের রুখতে হলে মৃত্যুদণ্ডের আইনের বিকল্প নেই

  • আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালন

সাহেদ আহমদ : প্রতি বছরের ন্যায় গতকাল ৯ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালন উপলক্ষে দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটি কর্মসূচি গ্রহণ করে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে অত্র সংগঠন বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে বড় বড় দুর্নীতি, অনিয়ম বন্ধে দাবী সম্বলিত লিফলেট ছাপা করতঃ সিলেট মহানগর সহ কয়েকটি জেলায় দুর্নীতি বিরোধী গণসচেতনতা, গণজাগরণ সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রচারপত্র বিলি, বন্টন এবং মাইকযোগে দাবী সমূহ গত কয়েক দিন যাবৎ প্রচারণা চালায়।
৯ ডিসেম্বর দুর্নীতি বিরোধী কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বেলা ১১টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নগরীর পাড়া-মহাল্লা থেকে নেতাকর্মীরা ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে মিছিল সহকারে জড়ো হন।
এ সময় ব্যানার-ফেস্টুনে নেতাকর্মী ও সচেতন জনগণ শীর্ষ দুর্নীতিবাজদের রুখতে মৃত্যুদণ্ডের আইন করতে হবে, করতে হবে। মামলার শুরু থেকে নির্বাহী আদেশে তাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত কর, করতে হবে। দুর্নীতি ও নৈরাজ্য বন্ধে অবিলম্বে ন্যায়পাল কার্যক্রম চালু চাই, চালু কর। ক্যাসিনো, শেয়ার বাজার, ব্যাংক লুটপাটকারী বাচ্চু, মখা আলমগীর, সাহেদ, সুধাংশু শেখর ভদ্র, হাজী সেলিম, গোলেন্ড মনিরসহ আলোচিত দুর্নীতিবাজদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই ও বিষয় সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত কর। হাসপাতালের যন্ত্রপাতি কেনা-কাটায় হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাটকারীদের সনাক্ত কর, বিচার কর ও বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের ফি ৩ শত টাকা ধার্য কর, টেস্ট বাণিজ্য বন্ধ কর।
দুর্নীতিবাজদের স্থাবর-অস্থবার সম্পত্তি বিজ্ঞ আদালত কর্তৃক বাজেয়াপ্ত হলে, ৩০ লক্ষ শহীদের রক্ত ও ২ লক্ষ মা-বোনদের ইজ্জত, ৫২-র প্রেরণা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সুরক্ষার স্বার্থে দুর্নীতিবাজদের আইন সঙ্গত কারণে জামিন বন্ধ কর, বন্ধ কর। শীর্ষ ভূমি ডাকাতদের তালিকা প্রণয়ন কর, বিচার কর, করতে হবে। অবলোপনকৃত প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকা অবিলম্বে উদ্ধার ও ঋণ খেলাপীদের বিরুদ্ধে বিশেষ ট্রাইবুন্যাল গঠন কর, বিচার কর। কানাডার বেগম পাড়ায় দেশের হাজার হাজার কোটি টাকা পাচারকারীদের সনাক্তকর, বিচার কর। স্বাধীন নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন কর ও উপজেলা চেয়ারম্যানদের উপর এমপি-ইউএনওদের খবরদারি চলবে না, চলবে না। ২০০৮ সালে প্রণিত দুদক পুনর্গঠন কর। সরকারী কর্মচারীদের বিষয় সম্পত্তি হিসাব দাখিলের বিধান বাধ্যতামূলক কর, করতে হবে। মুহুর মুহুর শ্লো-গানে শ্লো-গানে নেতাকর্মীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। এই শ্লো-গানগুলো ব্যানার ফেস্টুনে শোভা পায়।
পরে একটি বিরাট দুর্নীতি বিরোধ র‌্যালি সিলেট নগরীর রাজপথ প্রদক্ষিণ করে চৌহাট্টা পয়েন্টে দিকে অগ্রসর হয়ে দুর্নীতি বিরোধী এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি সিনিয়র আইনজীবী নাসির উদ্দিন এডভোকেটের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জননেতা মকসুদ হোসেন এর পরিচালনায় সমাবেশ অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ সভাপতি ইকবাল হোসেন চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হোসাইন চতুলী, মামুনুর রশীদ এডভোকেট, সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ অরুণ কুমার দেব, প্রচার সম্পাদক মীর আব্দুল করিম পাখি মিয়া, গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক এম.এ লাহিন, সিনিয়র সাংবাদিক লিয়াকত আলী খান, কেন্দ্রীয় সদস্য কয়েছ আহমদ সাগর, মানবাধিকার কর্মী সৈয়দ আকরাম আল শাহান, দক্ষিণ সুরমা শাখার সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, কেন্দ্রীয় সদস্য রফিকুল ইসলাম শিতাব, কেন্দ্রীয় সদস্য আব্দুল মুতোয়াল্লী ফলিক, আমিরুল হোসেন চৌধুরী আমনু, মুক্তাদির কিবরিয়া সিরাজী, শ্রমিক সংগঠক আদনান খান হেলাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা অহির মিয়া, দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইসমত ইবনে ইসহাক সানজিদ, সিনিয়র সহ সভাপতি ইমাম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আমিন তাহমিদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাবেদুল ইসলাম দিদার, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক নিয়াজ কুদ্দুস খান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কাওছার আহমদ, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সৈয়দ নূর আহমদ জুনেদ, কৃষি সম্পাদক রতন তালুকদার, যুবনেতা হেলাল আহমদ হেলাল, সন্তুষ দেব, হকার্স নেতা পিয়ার হোসেন, আদিনা হোসেন ফাহিম, আব্দুল হালিম, ইসলাম উদ্দিন, রতন রায় প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে নাছির উদ্দিন এডভোকেট সর্বগ্রাসী দুর্নীতি, লুন্ঠন বন্ধ করতে হলে শীর্ষ দুর্নীতিবাজদের মৃত্যুদণ্ডের বিধানে বিকল্প নেই বলে উল্লেখ করে বলেন, সম্প্রতি ঢাকায় দুদকের একটি অনুষ্ঠানে দুদক সচিব ড. মোজাম্মেল হক বলেছেন, দুদক এখন দন্তহীন বাঘ নয়। এই বক্তব্য সঠিক ভাবে প্রমাণ করতে হলে অবিলম্বে আব্দুল হাই বাচ্চুকে গ্রেফতার করতে হবে। অন্যথায় এই বক্তব্য হবে চরম ধাপ্পাবাজী। তিনি গত ২৮ নভেম্বর ২০২০ তারিখে প্রথম আলোয় প্রকাশিত টিআইবির গবেষণায় বলা হয়েছে দেশে সরকারী দুর্নীত বড় সমস্যা। দুর্নীতি, লুণ্ঠন ও উন্নয়ন এক সাথে চলতে পারে না। ছোট লোকের দুর্নীতি পাপ, বড় লোকের দুর্নীতি মাফ এটা হতে পারে না। একটি গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টের প্রেক্ষিতে গোলেন্ড মনিরকে গ্রেফতার করায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, চাটার দলের বিরুদ্ধে এখন একটি গণসংগ্রামের খুবই প্রয়োজন।


 

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট