মাস্কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার : আরও কঠোর হচ্ছে সরকার

প্রকাশিত: ৩:০৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০

মাস্কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার : আরও কঠোর হচ্ছে সরকার

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পর করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থেকে রক্ষায় সবাইকে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে মোবাইল কোর্টগুলোকে আরও কঠোর হতে নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।

সোমবার (২৩ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চ্যুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম একথা জানান।

অনির্ধারিত আলোচনায় আবারও মাস্কের বিষয়টা খুব স্ট্রংলি আসছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, গতকাল বিভাগীয় কমিশনাররা জানিয়েছেন এবং গত সাতদিন ধরে জানাচ্ছেন যে তারা ম্যাসিভলি জরিমানা করছেন। গতকাল কয়েক হাজার লোককে জরিমানা করা হয়েছে। আমরা বলেছি আরও এক সপ্তাহ দেখতে, মানুষকে আরও মোটিভেশন করো। তারপরে আরেকটু স্ট্রং পানিশমেন্টে যেতে হবে।

স্ট্রং পানিশমেন্ট কী হবে- জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, হয়তো জরিমানা বাড়তে পারে। হয়তো এক হাজার টাকা, ৫শ টাকা জরিমানা করছে, সেটা পাঁচ হাজার টাকা করে দিল। এরকম আমরা আরেকটু স্ট্রং ওয়েতে যেতে বলেছি। যারা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবেন সঙ্গে মাস্কও নিয়ে যাবেন যাতে মানুষকে জরিমানা করার সঙ্গে দিয়ে দেওয়া যায়।

‘গতকাল বিভাগীয় কমিশনারের মিটিংয়ে ধর্মসচিব ছিলেন, তাদের বলে দেওয়া হয়েছে। শিক্ষাসচিবকেও বলে দেওয়া হয়েছে তাদের নিজ নিজ ক্ষেত্রে আরও ম্যাসিভ প্রচারণার জন্য। ’

ঢাকা শহরে গতকাল ৩৭টি জায়গায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, একেক জায়গায় একেক রকম জরিমানা করা হচ্ছে, কোথাও ৫শ টাকা কোথাও এক হাজার টাকা।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা প্রসঙ্গে মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, যেভাবে হোক মানুষকে আরও বেশি বেশি করে প্রচার করেন, ফোর্স কর যেভাবে হোক মানুষ যেন মাস্ক ব্যবহার করে। মাস্ক ব্যবহার না করলে ওষুধ কাজ করবে না।

আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, মন্ত্রিসভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন ঢাকা বিভাগে যেভাবে ছড়াচ্ছে বাইরে সেই পরিমাণে ছড়াচ্ছে না। কারণ আমরা হাসপাতালের অবস্থা দেখছি। হাসপাতালে রোগী বেড়ে গেছে। ঢাকা শহরে গত ১৫ দিন আগে যেখানে ৩০০ রোগী ছিল গতকাল বোধহয় ৬০০ হয়ে গেছে।


 

  •