ঘোড়ায় চড়ে ‘ভিক্ষা’ করেন বাচ্চা মিয়া

প্রকাশিত: ১২:৩৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০২০

ঘোড়ায় চড়ে ‘ভিক্ষা’ করেন বাচ্চা মিয়া

আগের দিনে রাজা-বাদশাহরা ঘোড়ায় চড়ে রাজ্য ভ্রমণে বের হতেন। আর পথের দু’ধারে দাঁড়িয়ে থাকা প্রজাদের অর্থ-কড়ি বিলিয়ে যেতেন। কিন্তু সময় বদলেছে।  এখন ঘোড়ায় চড়ে পথে পথে ভিক্ষা করা হয়।

শুনতে অবাক লাগলেও লালমনিরহাটের বৃদ্ধ বাচ্চা মিয়া (৬৭) এ কাজটিই করছেন। ঘোড়ায় চড়ে ভিক্ষা করছেন তিনি। নড়বড়ে শরীরটা টেনে ভিক্ষা করা যে তার পক্ষে সম্ভব নয়, তাই এভাবেই পরিবারের ভরণ-পোষণ মেটাতে হচ্ছে তাকে।

বাচ্চা মিয়ার দুই মেয়ে এক ছেলে। কিন্তু তারা কেউই এখন তার খোঁজ-খবর রাখেন না। তাই জীবনের তাগিদেই তাকে ভিক্ষাবৃত্তিতে নামতে হয়েছে। তাছাড়া এখন তার যে বয়স, এ বয়সে তাকে কাজ দেয়ার মতো কেউ নেই। তাই বাধ্য হয়েই ভিক্ষা করছেন তিনি।

জানা গেছে, পাঁচ বছর আগে ভিক্ষার টাকা জমিয়ে ঘোড়া কেনেন বাচ্চা মিয়া। ঘোড়ায় চড়েই মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ভিক্ষা করেন। প্রতিদিন ভিক্ষা করে তার ৩০০-৪০০ টাকার মতো আয় হয়। এতে বেশ ভালোই চলছে তার সংসার।

বাচ্চা মিয়া বলেন, ‘কেউ কি আর ইচ্ছা করে ভিক্ষা করে? কেউ কি আর ইচ্ছা করে ভিক্ষুকের জীবন বেছে নেয়? বাধ্য হয়েই এ পেশাতে আসতে হয়েছে।

বৃদ্ধ বয়সে সন্তানই মা-বাবার একমাত্র অবলম্বন হয়ে দাঁড়ায়। কিন্তু বাচ্চার মিয়ার সেই ভাগ্য নেই। তাই ঘোড়াটাকেই নিজের ‘সন্তান’ ভাবেন তিনি। শেষ বয়সে বাবা-মা যেমন সন্তানদের অবলম্বনভাবে, ঘোড়াটাও তার কাছে তেমন। ঘোড়াটা আছে বলেই ঘরে চুলা জ্বলে।

সূত্র : ইউএনবি


  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট