কোম্পানীগঞ্জে বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে আরটিএম আল কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস হচ্ছে

প্রকাশিত: ৭:০৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২০

কোম্পানীগঞ্জে বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে আরটিএম আল কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস হচ্ছে

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্কে দেশের প্রথম কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় ‘আরটিএম আল কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি’র স্থায়ী ক্যাম্পাস হচ্ছে। হাইটেক পার্কে নবপ্রতিষ্ঠিত এ বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ৮ একর ভূমি বরাদ্দ নেয়া হয়েছে। আগামী জানুয়ারি থেকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের
একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্মতির পর গত বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নতুন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদনের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সীমান্তিক এর প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘রিচার্স ট্রেনিং এন্ড ম্যানেজমেন্ট’ (আরটিএম) ইন্টারন্যাশনাল এর প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. আহমদ আল কবির জানান, ২০১৬ সালে এ ধরণের একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য তিনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন। যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্নের পর সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়টি চূড়ান্ত অনুমোদন লাভ করে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুব অল্প সময়ের মধ্যে এ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের অনুমতি দিয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, এ বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে ভিন্নধর্মী কিছু করতে চাই। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে তিনটি ফ্যাকাল্টি থাকবে। ফ্যাকাল্টি তিনটি হচ্ছে-ফ্যাকাল্টি অব অ্যাপ্লাইড সায়েন্সেস, ডেভেলপম্যান্ট স্টাডিজ এবং সায়েন্স, এডুকেশন ও স্কিলড ডেভেলপম্যান্ট। থাকবে তিনটি ইন্সটিটিউট। এগুলো হচ্ছে-সেন্টার ফর রিসার্চ ট্রেনিং ম্যানেজম্যান্ট,
ইন্সটিটিউট অব ইনক্লুসিভ বিজনেস এন্ড হাইটেক স্কিলস ডেভেলপম্যান্ট এবং সেন্টার ফর এডুকেশন এন্ড কমিউনিটি বেজড সার্ভিসেস। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হিসাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর সুশীল রঞ্জন হাওলাদারের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। সিলেট তথা দেশের প্রথিতযশা শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম, আহমদ মোস্তাক রাজা চৌধুরী, ড. ওবায়দুর রহমান ও আহমদ আল খাবির-এর মতো শিক্ষাবিদদের নিয়ে একটি এডভাইজরি প্যানেলও গঠন করা হবে বলে জানান তিনি।
প্রসঙ্গক্রমে ড. আহমদ আল কবির জানান, দুনিয়ার বিভিন্ন দেশে টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি রয়েছে। এই বাস্তবতায় বাংলাদেশেও অনুরূপ একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের অংশ হিসাবে নতুন এ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয় দিয়ে আমরা ভিন্নধর্মী কিছু করতে চাই। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্পেশাল ডিপ্লোমা ও সার্টিফিকেট কোর্স থাকবে। তিনি বলেন, করোনা মহামারির কারণে আমাদের অনেক শ্রমিক দেশে ফেরত এসেছে। তাদেরকে উপযুক্ত প্রশিক্ষণ দিয়ে বিদেশে ফের পাঠানো গেল তারা আরো উপার্জনক্ষম হয়ে উঠবে। ইঞ্জিনিয়ারিং, বিজ্ঞান ও কৃষি বিষয়ক বেশ কিছু বিষয় খোলার পরিকল্পনার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, সব বিভাগই হবে প্র্যাকটিক্যাল বেইজড। বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাস হবে সিলেট নগরীর উপকন্ঠ টিবি গেইট এলাকার আরটিএম কমপ্লেক্সে।
আগামী জানুয়ারি থেকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হবে জানিয়ে তিনি বলেন, যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্নের পর ডিসেম্বরের মাঝামাঝি এ সংক্রান্ত ঘোষণা দেয়া হবে।
আরটিএম পরিচালনা পর্ষদের সদস্য অধ্যক্ষ আব্দুর রউফ তাপাদার জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন লাভের পর গত ১০ সেপ্টেম্বর আরটিএম চেয়ারপার্সন ও সিলেট শিক্ষাবোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর মমতাজ শামীমের নেতৃত্বে একটি টিম হাইটেক পার্কে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসের ভূমি পরিদর্শন করেছেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্কের প্রকল্প পরিচালক ব্যারিস্টার গোলাম সারওয়ার ভ্ইুয়া জানান, নবপ্রতিষ্ঠিত এ বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য হাইটেক পার্কে ৮ একর ভূমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। শিগগিরই এ ভূমি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে জানান তিনি। কোম্পানীগঞ্জে বর্ণি এলাকায় প্রায় ১৬২ একর ভূমিতে স্থাপিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্ক। ২০১৬ সালে হাইটেক পার্কের নির্মাণ কাজ শুরু হয়।
প্রসঙ্গত, সিলেটে বর্তমানে দুটি পাবলিক, একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও চারটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। নব্বই দশকে দেশের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সিলেটে প্রতিষ্ঠিত হয়। এবার দেশের প্রথম কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয়ও স্থাপন হচ্ছে সিলেটে।


  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট