সেপ্টেম্বরে তামিম-মুশফিকদের করোনা পরীক্ষা

প্রকাশিত: ৭:২০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০২০

সেপ্টেম্বরে তামিম-মুশফিকদের করোনা পরীক্ষা

করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন ধরে ক্রিকেটের বাইরে রয়েছেন তামিম-মুশফিকরা। জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর সেপ্টেম্বরে শ্রীলঙ্কা সিরিজ দিয়ে আবারও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে টাইগাররা। তিন টেস্টের সিরিজ খেলতে সেপ্টেম্বরের শেষদিকে কলম্বোর বিমানে ওঠার কথা তামিম-মুশফিকদের। তার আগে তিনবার করোনা পরীক্ষা দিতে হবে তাদের। আনুষ্ঠানিক ক্যাম্প শুরুর আগে প্রথমবার নেওয়া হবে টাইগারদের কোভিড টেস্ট।

বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান জানিয়েছেন, ১৮ সেপ্টেম্বর জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের প্রথম ধাপে করোনা টেস্ট করানো হবে। প্রত্যেকের বাসায় গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করা হবে। যারা নেগেটিভ হবেন তাদের তোলা হবে পাঁচ তারকা হোটেলে। তার পরপরই শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে শুরু হবে দলীয় অনুশীলন।

তবে মিরপুরে খুব বেশিদিন অনুশীলনের সুযোগ পাবে না ক্রিকেটাররা। মূল প্রস্তুতি ক্যাম্প শ্রীলঙ্কাতে গিয়ে করার কথা ভাবছে বিসিবি। একই সময়ে বিসিবির এইচপি দলও শ্রীলঙ্কা সফর করবে। ফলে নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগও পাবে টাইগাররা।

মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) সংবাদমাধ্যমে শ্রীলঙ্কা সফরের নানা দিক নিয়ে কথা বলেন আকরাম খান। তিনি জানান, তিন টেস্টের সিরিজের জন্য স্কোয়াড হবে ২০-২২ জনের। আকরাম বলেন, ‘১৮ তারিখ আমরা সবার বাসায় গিয়ে কোভিড টেস্ট করবো। এরপর ২০ তারিখের দিকে হোটেলে ওঠার চিন্তা ভাবনা করেছি। ২১ তারিখ থেকে কিছুদিন অনুশীলন করে আমরা শ্রীলঙ্কা যাবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘স্কোয়াড আমরা ১০-১৫ তারিখের মধ্যে দিয়ে দিবো। কারণ খেলোয়াড় সংখ্যাটা বাড়াবো, ২০-২২ জন। কোভিডকে যতটা সহজ মনে হচ্ছে ততটা সহজ না। অনেক ঝুঁকি আছে, আমাদের অনেক বিকল্প রাখতে হবে। আমরা আলাপ আলোচনা করেছি, এরমধ্যে প্রায়ই টেস্ট হতেই থাকবে। এগুলো নিয়েই আলোচনা করেছি।

এ সফরের জন্য আগে থেকেই সব ধরণের প্রস্তুতি নিবেন বলে জানান আকরাম। তিনি বলেন,‘এটা অনেক বড় সফর। কোয়ারেন্টাইনে কতদিন থাকতে হবে সেটাও আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। এসবের উপর নির্ভর করছে। কোচরা এসে আবার এখানে কোয়ারেন্টাইনে থাকবে, এরপর অনুশীলন শুরু হবে। সবকিছু মিলিয়ে কঠিন, তারপরও আমরা আগে থেকে প্রস্তুতি নিয়ে নিচ্ছি যেন কোনো ঝামেলায় না পড়ি।

এছাড়া আকরাম আরও বলেন, ‘স্কোয়াডটা বাড়াবো। এরমধ্যে সবশেষ যারা খেলেছে তারা তো থাকবেই। এছাড়া আমরা তিন-চারটা অনুশীলন ম্যাচ খেলবো, সেখান থেকেও বাছাইয়ের সুযোগ থাকবে। শ্রীলঙ্কায় ওয়ার্মআপ ম্যাচ খেলবো ৩-৪টা। সেখানেও নির্বাচকদের অপশন থাকবে। কিছু করার নেই তো, যেহেতু সবশেষ ৫-৬ মাস কোনো খেলা হয়নি।


  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট