জেলা আ,লীগের সাবেক সভাপতি আ ন ম শফিকুল হকের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

প্রকাশিত: ১২:১০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০২০

জেলা আ,লীগের সাবেক সভাপতি আ ন ম শফিকুল হকের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য ও সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ আ ন ম শফিকুল হকের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ।
২০১৯ সালের ১৪ আগস্ট বিকেল ৩টা ৩৮ মিনিটে তিনি নগরীর সোবহানীঘাটস্থ একটি বেসরকারি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন এ রাজনীতিবিদ।
আ ন ম শফিক ১৯৬৫ সালে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সদস্য হিসেবে রাজনীতিতে পা রাখেন। ১৯৬৯ সালের গণ-অভ্যুত্থানে সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। ১৯৭০ সালে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে জনমত গঠনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে কাজ করেছেন।
১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টের কালো রাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর আ ন ম শফিকুল হক প্রতিবাদ-প্রতিরোধ আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েন। বিভিন্ন আন্দোলনে ১৫ দল, ৮ দল ও ১৪ দলে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিত্ব করেন এবং সক্রিয় ভূমিকা রাখেন।
তিনি ২০০৬ সালে ১/১১ এর সময় সেনা সমর্থিত সরকারের বিরুদ্ধে জনমত গড়ার পাশাপাশি আন্দোলন চালিয়ে যান। প্রায় ১০ বছর সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং ১৬ বছর সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৪ সালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।
এক সময় শিক্ষকতা পেশা দিয়ে জীবন শুরু করেছিলেন সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের মৌলভীরগাঁও এর বাসিন্দা আ ন ম শফিকুল হক। ছাত্রলীগের রাজনীতি দিয়েই তাঁর শুরু হয়েছিল রাজনীতির পাঠ। তাই বেশিদিন আর শিক্ষকতা করা হয়নি। রাজনীতিতেই পুরো সঁপে দেন নিজেকে। এককালে সাংবাদিকতাও করেছেন। ষাটের দশকে সাপ্তাহিক বাংলার বাণী, ১৯৭৫ পরবর্তী সময়ে সাপ্তাহিক খবর ও সাপ্তাহিক সমাচারসহ বিভিন্ন সংবাদপত্রে সিলেট বিভাগীয় প্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করেন। আওয়ামী লীগের বিভিন্ন দু:সময়ে সিলেটে তিনি ছিলেন কান্ডারী। সর্বশেষ তিনি আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্যও ছিলেন।
তাঁর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পরিবারের পক্ষ থেকে আজ শুক্রবার দরগাহ মসজিদে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।


  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট