চীনে বিমানযাত্রীদের করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক হচ্ছে

প্রকাশিত: ৯:৫০ অপরাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০২০

চীনে বিমানযাত্রীদের করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক হচ্ছে

চীনের নাগরিক বিমানে চলাচলের ক্ষেত্রে করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

দেশটির বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ বলেছে, দেশটিতে যাওয়ার জন্য বিমান যাত্রীরা ফ্লাইট বুক করার পর বিমানে আরোহনের আগে সাম্প্রতিক করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে বলে প্রমাণ করতে হবে।

সোমবার সিভিল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফ চায়না (সিএএএসি) বলেছে, ফ্লাইটের নির্ধারিত সময়ের অন্তত পাঁচদিন আগে যাত্রীদের নিউক্লিক অ্যাসিড পরীক্ষা করতে হবে।

সিএএএসির ওয়েবসাইটে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রত্যেক দেশে নিয়োজিত চীনের দূতাবাসের অনুমোদিত প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এই করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলকভাবে করাতে হবে। যেসব যাত্রী করোনাভাইরাস পরীক্ষার নেগেটিভ ফল দেখাতে পারবেন না, তাদের চীনগামী ফ্লাইটে আরোহন করতে দেয়া হবে না।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়া অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল শুরু করেছে চীন। তবে দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে ভ্রমণের জন্য যাত্রীদের বেশ-কিছু বিধি-নিষেধের পাশাপাশি কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে নভেল করোনাভাইরাসের উৎপত্তি হয়। মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাস প্রায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে এসেছে দেশটি। কিন্তু বিশ্বজুড়ে ভাইরাসটির বিস্তার এখনও ঊর্ধ্বমুখী।

এখন পর্যন্ত বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস। বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় দেড় কোটি মানুষ এবং মারা গেছেন ৬ লাখ ১৪ হাজারের বেশি।

বিশ্বজুড়ে করোনায় সংক্রমণ এবং মৃত্যু বাড়লেও এই রোগ নির্মূলে এখন পর্যন্ত কোনও ভ্যাকসিন আবিষ্কার হয়নি। তবে বেশ কয়েকটি ভ্যাকসিন মানবদেহে পরীক্ষার বিভিন্ন ধাপে রয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরির দৌড়ে শীর্ষে যারা রয়েছে, তাদের মধ্যে ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় অন্যতম।

এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন চ্যাডক্স১এনকোভ-১৯ প্রথম ধাপে মানবদেহে পরীক্ষায় সফল হয়েছে বলে সোমবার বিজ্ঞানবিষয়ক বিখ্যাত সাময়িকী ল্যানসেটে প্রকাশিত এক নিবন্ধে জানানো হয়েছে।


সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট