গঙ্গাফড়িংয়ের প্রতিযোগিতা ‘লকডাউনের দিনগুলির’ ১ম বিজয়ী জায়ান

প্রকাশিত: ১২:১০ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০২০

গঙ্গাফড়িংয়ের প্রতিযোগিতা ‘লকডাউনের দিনগুলির’ ১ম বিজয়ী জায়ান

 


সমগীত সংস্কৃতি প্রাঙ্গণের শিশু-কিশোর সংগঠন গঙ্গাফড়িং। শিশু-কিশোরদের বাধাহীন উড়ে চলা সব রঙিন স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে সমগীতের কিশোর বন্ধুরা গড়ে তোলে ‘গঙ্গাফড়িং’।

‘আমাদের ভালো লাগে এইসব দিন, নদীতে-মাটিতে নাচে গঙ্গাফড়িং’- স্লোগানে নেচে ওঠেই তারা ভাষার মাস ফেব্রুয়ারিতে রঙময় দেয়ালিকা প্রকাশ করার মধ্য দিয়ে ২০০৩ সালে গঙ্গফড়িং যাত্রা শুরু করে। স্কুলে স্কুলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন, শিশু-কিশোরদের নিয়ে অ্যাস্ট্র-অলিম্পিয়ার্ড আয়োজন, ভাঁজপত্র, ত্রৈমাসিক দেয়াল পত্রিকা করা, প্রিন্ট পত্রিকা করা, সাংস্কৃতিক স্কুল, গান শেখা, আঁকতে শেখা, ছবি তুলতে শেখা, কবিতা লিখতে শেখা, সিনেমা বানানো, গান তৈরি এবং এর মধ্যদিয়ে নিজস্ব সংস্কৃতিকে সাথে নিয়ে নতুন ভাবনার নির্মাণ এইসব গঙ্গাফড়িংয়ের নিয়মিত কাজ।

সংগঠনটি মনে করে, দেশের শিক্ষা কাঠামোতে কেবল পরীক্ষায় ভালো ফলাফলের ইঁদুর দৌড়ে শিশুরা ভীষণ ব্যস্ত আর ক্লান্ত। সমাজ-সংস্কৃতি থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে তারা কেবল স্কুলের চার দেয়ালের গণ্ডিতে আবদ্ধ। তাদের খেলার মাঠ নেই, নেই তাদের নতুন চিন্তা প্রকাশের জায়গা। তাদের হেসে ওঠার অবসরটুকুও কেড়ে নেয়া হয়েছে। এই মহামারীতে স্কুলও বন্ধ, বাইরে যাওয়া মানা। শুধু অপেক্ষা কবে এই বন্দীদিন কাটবে।

এমন সময়েও গঙ্গাফড়িংয়ের কাজ থেমে থাকেনি। শিশু-কিশোররা যেহেতু গৃহবন্দী তাই ঘরে বসেও তারা তাদের ভাবনাগুলোকে যেন ছড়িয়ে দিতে পারে এই চিন্তা থেকেই গঙ্গাফড়িং তাদের ফেসবুক পেইজ থেকে গত জুন মাসব্যাপী ‘লকডাউনের দিনগুলি নামে’ সাংস্কৃতিক প্রতিযগিতার আয়োজন করে। প্রতিযেগিতাটি প্রযোজ্য ছিল অনুর্ধ্ব ২০ বয়সের বন্ধুদের জন্য। যেখানে শিশু-কিশোরদের লেখা কবিতা-ছড়া, গল্প-প্রবন্ধ, আঁকা ছবি, ফটোগ্রাফি অথবা কোনো কাজের ভিডিও, নাচ কিংবা আবৃত্তি ইত্যাদি পাঠিয়ে দিয়েছিল।

এই আয়োজনে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল প্রথম থেকেই অনেক শিশু-কিশোরা অংশগ্রহণ করে। শিশু-কিশোরদের অসাধারণ কাজগুলো দেখে বিচারকরা খুবই অবাক হন। এদের মধ্য থেকে সেরা ১০ জনকে তারা নির্বাচিত করেন বিভিন্ন বিভাগে। আর সকল বিজয়ীদের ডাকযোগে শুভেচ্ছা উপহার পাঠানো হয়েছে।

নির্বাচিতরা হলেন- ১. জায়ান (সামগ্রিক, ঢাকা) ২. সিম্মল ধূলি (চিত্রকলা, ঢাকা) ৩. সৌমিন হক (চিত্রকলা, ঢাকা) ৪.সুয়েত আহমেদ নিহাল (চিত্রকলা) ৫. আশজায়ীন সাদিক নূসাঈর (চিত্রকলা, ঢাকা) ৬. আইরিন এশা প্রাপ্তি (নাঃগঞ্জ, চিত্রকলা) ৭. লিওনার্দো দাস (ঢাকা,গল্প) ৮. অর্ণিবান জয় (নাঃগঞ্জ, আলোকচিত্র) ৯. আসফিয়া জাহান কথা (কিশোরগঞ্জ, আলোকচিত্র) ১০. ইবনে সিয়াম জয় (নাঃগঞ্জ, আলোকচিত্র)।

বিচারক হিসেবে ছিলেন রফিউর রাব্বি (চিত্রকলা), প্রণব ঘোষ (আলোকচিত্র), অমল আকাশ (সামগ্রিক)


  •