সিলেট সীমান্তে ভারতীয়দের ‍গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

প্রকাশিত: ২:১৪ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৩, ২০২০

সিলেট সীমান্তে ভারতীয়দের ‍গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার রুস্তমপুর ইউনিয়নের বিছনাকান্দি সীমান্ত এলাকায় ভারতীয় খাসিয়াদের গুলিতে সিরাজ উদ্দিন (৪৫) নামে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরেকজন।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) বিকেল ৪টার দিকে গোয়াইনঘাটের পাহাড়তলি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মো. সিরাজ উদ্দিন গোয়ানঘাটের দমদমিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল ওয়াহিদের পুত্র। গুলিতে আহত হয়েছেন একই গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে মো. নাজিম উদ্দিন (৩৮)।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে বিছনাকান্দি সীমান্ত এলাকায় গরু চরাতে যান সিরাজ উদ্দিন। এসময় একটি গরু ভারত সীমান্তের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে। গরুটি নিয়ে আসতে সিরাজ চেষ্টা করার সময় ভারতীয় খাসিয়ারা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান বলে জানিয়েছেন গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য ও নিহত সিরাজ উদ্দিনের ভগ্নীপতি হারুন অর রশীদ।

স্থানীয় রুস্তুমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন শিহাবও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ১০ জুন একই এলাকায় ভারতীয় খাসিয়াদের গুলিতে মিন্টু মিয়া (২৪) নামে এক বাংলাদেশী নিহত হয়েছিলেন।

গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল আহাদ বলেন, ‘গোয়াইনঘাট উপজেলার বিছনাকান্দি সীমান্তে একজন বাংলাদেশী মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসআই জুনেলকে প্রেরণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত বিস্তারিত জানা যায়নি বলেও জানান তিনি।’

বিজিবি’র সিলেট ব্যাটালিয়ন (৪৮ বিজিবি) এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল আহমেদ ইউসুফ জামিল এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, গোয়াইনঘাট উপজেলার দমদমিয়া বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকার সীমান্ত পিলার ১২৬১/১ ও ২-এস এর মধ্যবর্তী সংলগ্ন পাহাড়তলী এলাকা দিয়ে ৪ জন বাংলাদেশী নাগরিক আনুমানিক ১ কিলোমিটার দূরে ভারতের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে। এসময় ভারতীয় খাসিয়া নাগরিকরা বিকেল সাড়ে চার টার দিকে তাদের লক্ষ্য করে গুলি করে। এতে একজন নিহত ও একজন আহত হন। আহত ব্যক্তি বাংলাদেশে পালিয়ে এসে বর্তমানে পলাতক রয়েছেন বলে জানান তিনি।

বিজিবির এই কর্মকর্তা বলেন, সীমান্ত এলাকায় টহলরত বিজিবি সদস্য দল সীমান্তবর্তী জনগনকে অবৈধভাবে সীমান্ত পারা হয়ে ভারতে প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা প্রদান করে আসছে। সীমান্ত লংঘনের ব্যাপারে এবং অনাকাঙ্খিত ঘটনা রোধে বিজিবির তরফ থেকে সীমান্তবর্তী জনসাধারণসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গর নিকট সর্বদাই সহযোগীতার আবেদন করা হয়ে থাকে।


  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট