করোনার সংক্রমণ এড়াতে বেশি বেশি আম খান

প্রকাশিত: ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ, জুন ২, ২০২০

করোনার সংক্রমণ এড়াতে বেশি বেশি আম খান

ছোট্ট আণুবীক্ষণিক জীব নোভেল করোনা ভাইরাস মহামারি হয়ে গর্জে ওঠায় বদলে গেছে আমাদের জীবনযাপনের ধরন। এখন বেশিরভাগ সময় বাড়িতেই থাকতে হচ্ছে সবার। কিন্তু প্রকৃতি চলছে তার নিজের নিয়মে। করোনার মাঝেই চলে এসেছে মধুমাস জ্যৈষ্ঠ, রঙিন সব ফলের মৌসুম। ফলের সুগন্ধে চারপাশ ম ম করার সময় এখন। এরই মধ্যে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে আম।

আম হলো সেই ফল, যার জন্য অধিকাংশ মানুষ সারা বছর অপেক্ষা করে থাকেন। ঝড়ের দিনে পাকা আম কুড়ানো আমাদের অনেকেরই শৈশবের স্মৃতি। সুগন্ধে ভরা এই স্বর্গীয় স্বাদের ফলটি প্রচুর পুষ্টিগুণে ভরপুর।

করোনা এড়াতে কেন আম খাওয়া উচিত?

স্বাদ আর সুগন্ধ ছাড়াও এই রসালো ফলটি ভিটামিন সি, ভিটামিন এ, ভিটামিন বি ৬, ফোলেট, আয়রন এবং ম্যাগনেসিয়ামসহ পুষ্টিতে ভরা। এটি অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট এবং ফাইবারে পরিপূর্ণ। যদিও সুস্বাদু এই ফলটি খাওয়ার জন্য অন্য কোনো কারণের প্রয়োজন পড়ে না তবু জেনে রাখা ভালো, এটি আপনাকে ভাইরাসের সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করবে। এছাড়াও আমের রয়েছে নানা পুষ্টিগুণ।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

এক কাপ কাটা আমে (১০০ গ্রাম) প্রায় ৩৬.৪ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি রয়েছে, যা প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ভিটামিন সি এর ৬৭ শতাংশ। ভিটামিন সি আমাদের দ্রুত সুস্থ হতে সাহায্য করে এবং শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে।

ওজন কমায়

ওজন কমাতে সাহায্য করে এমন খাবার খুঁজছেন? তাহলে আম খান। যেহেতু এই পাল্পি ফলের মাংস তন্তুতে ভরপুর তাই এটি দীর্ঘ সময়ের জন্য পেট ভরিয়ে রাখবে। খাওয়ার আগে আম খেয়ে নিন। তাহলে এটি অতিরিক্ত খাওয়া প্রতিরোধ করবে। তাই বলে প্রচুর আম একসঙ্গে খেয়ে ফেলবেন না যেন!

কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে

আম খাওয়ার সুফল এখানে শেষ নয়। আপনি কি জানেন যে উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে আমের একটি সঠিক ফল হতে পারে? হ্যাঁ, যেহেতু এটি ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট দিয়ে বোঝাই তাই এটি আপনার রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে এবং হৃদযন্ত্র ভালো রাখতে সাহায্য করে।

চোখের জন্য ভালো

প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ভিটামিন এ এর ১০ শতাংশ পেতে পারেন আম থেকে। এটি ভালো রাখে আমাদের চোখের স্বাস্থ্যও। এর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট চোখকে অতিবেগুনি আলোকরশ্নি থেকে রক্ষা করতে পারে। এই অতিবেগুনি আলোকরশ্নি দৃষ্টিশক্তির সর্বনাশ ডেকে আনার জন্য সুপরিচিত।

হজমের জন্য দুর্দান্ত

হজমশক্তি ভালো করার জন্য কলা খেয়ে ক্লান্ত? তবে এবার আম খান। পাকা এই ফলটি ফাইবার এবং এ্যামাইলেস সমৃদ্ধ যা হজমশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। এটি খাবারের আরও ভালো শোষণ এবং সহজ হজম নিশ্চিত করে।

হতে পারে চিনির বিকল্প

আম দিয়ে তৈরি করা যায় সুস্বাদু অনেকরকম খাবার। আম দিয়ে তৈরি নানারকম শেক, স্মুদি এই গরমে আপনার তৃষ্ণা মেটাতে যথেষ্ট। এই মিষ্টি ফলটি জাঙ্ক ফুডের দুর্দান্ত বিকল্প। চিনি দিয়ে তৈরি করা খাবারের বদলে পাতে থাকুক আম। যেহেতু এটি অন্যান্য ফলের তুলনায় সত্যই মিষ্টি, তাই চিকিৎসকেরা প্রতিদিন ১ থেকে ২ কাপ খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। আপনার যদি ডায়াবেটিসের সমস্যা থাকে তবে আম খাওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।


  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট