২০২০ সাল হবে গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তির বছর

প্রকাশিত: ১:১২ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২, ২০২০

২০২০ সাল হবে গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তির বছর

২০২০ সাল হবে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বছরÑ এমন মন্তব্য করেছেন ছাত্রদলের সাবেক নেতারা। ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্র সমাবেশে সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রদল সভাপতি শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ২০২০ সাল যদি পরিবর্তনের বছর হয়, তাহলে ছাত্রদলকে দায়িত্ব নিতে হবে। এই সাল যেন হয় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বছর। গণতন্ত্র ও স্বাধীনতার মুক্তির বছর। এই সাল যেন হয় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার বছর। ডাকসুর সাবেক ভিপি আমানউল্লাহ আমান বলেন, আজকে এই মঞ্চে আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার উপস্থিত থাকার কথা ছিল। যদি সত্যিকারের গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ হতো তাহলে বেগম খালেদা জিয়া এখানে উপস্থিত থাকতেন। যদি সত্যিকারের বাংলাদেশ হতো তাহলে এখানে তারেক রহমান উপস্থিত থাকতেন। কিন্তু দেশে গণতন্ত্র না থাকায়  সেটি আমরা প্রত্যাশা করতে পারছি না। একমাত্র রাজপথে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমেই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করা সম্ভব। ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সভাপতি ফজলুল হক মিলন বলেন, আমরা মুখ দেখাতে পারি না কথাটা ঠিক না। বলতে পারেন, আমরা মাথানত করি নাই। এই সরকার মাথানত করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখনো প্যারোলে মুক্তি নিয়ে আছেন। আমাদের নেত্রী কিন্তু প্যারোলে যান নাই। ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দীন আলম বলেন, আমরা আমাদের কমিটমেন্ট রাখতে পারিনি। আজকে মানুষ ছাত্রদল নিয়ে হাসাহাসি করে, বিএনপি নিয়ে হাসে। কারণ আমরা আমাদের নেত্রীকে মুক্তি করতে পারি নাই। মুখে অনেক কথাই বলি তা বাস্তবে পরিণত করতে হবে। অন্যান্য দল আইন ভেঙে মিছিল-সমাবেশ করতে পারে। বিএনপির জন্য কেন এতো আইন, এই আইন ভাঙতে হবে। গতকাল বুধবার রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্র সমাবেশে সাবেক ছাত্রনেতারা এসব কথা বলেন। সমাবেশে সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন দলে সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল। ২৭ বছর পর ১৯ সেপ্টেম্বর জাতীয় কাউন্সিলের মাধ্যমে ফজলুর রহমান খোকন সভাপতি ও ইকবাল হোসেন শ্যামল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়। এর তিন মাস পরে ৬০ সদস্যের আংশিক কমিটি দেয় ছাত্রদল। ১৯৭৯ সালে ১ জানুয়ারি জিয়াউর রহমান ছাত্রদল প্রতিষ্ঠা করেন। আলোচনা সভায় শুরুর দিকে বক্তৃতাদের বক্তব্য দেয়ার সময়ে কর্মীরা অনবরত মুহুর্মুহু মহুর্মুহু করতালি দিতে দিতে থাকলে এক পর্যায়ে বিএনপি মহাসচিব নিজে মাইক নিয়ে তাদের শান্ত করতে দেখা যায়। তিনি বলেন, যারা বক্তব্য দিচ্ছেন তাদের বক্তৃতা তোমরা শুনছো না। শুধু স্লোগান দিলে চলবে না, নেতৃবৃন্দের বক্তব্য শুনতে হবে। নিয়ম মেনে চলো, চুপ করে বক্তৃতা শোন। এরপর আলোচনা সভার পরিবেশ শান্ত হয়।
ছাত্রসমাবেশে প্রধান অথিতির বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশের জনগণ এ সরকারকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। আজকে এ সরকারের নেতারা লম্বা লম্বা কথা বলেন। তারা বন্দুক দিয়ে, পিস্তল দিয়ে, গায়ের জোরে ক্ষমতায় বসে আছে। তারা তো জনগণের সরকার না। জনগণ তাদের ভোট দেয়নি। আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি, রাস্তার মধ্যে ১০০ জনকে জিজ্ঞেস করেন, ৯০ জন বলবেÑ এ সরকারকে আমরা চাই না।’ ওবায়দুল কাদের সাহেব আসুন, আপনার ওই পুলিশ-টুলিশ বাদ দিয়ে দেখুনÑ মানুষ কী বলে? দেখুন দেয়ালের ভাষা কী লেখা আছে।
গতকাল বুধবার রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্র সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। সমাবেশে সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল। ২৭ বছর পর ১৯ সেপ্টেম্বর জাতীয় কাউন্সিলের মাধ্যমে ফজলুর রহমান খোকন সভাপতি ও ইকবাল হোসেন শ্যামল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এর তিন মাস পরে ৬০ সদস্যের আংশিক কমিটি দেয় ছাত্রদল। ১৯৭৯ সালে ১ জানুয়ারি জিয়াউর রহমান ছাত্রদল প্রতিষ্ঠা করেন। আলোচনা সভায় শুরুর দিকে বক্তাদের বক্তব্য দেয়ার সময়ে কর্মীরা অনবরত মুহুর্মুহু মহুর্মুহু করতালি দিতে দিতে থাকলে এক পর্যায়ে বিএনপি মহাসচিব নিজে মাইক নিয়ে তাদের শান্ত করতে দেখা যায়। তিনি বলেন, যারা বক্তব্য দিচ্ছেন তাদের বক্তৃতা তোমরা শুনছো না। শুধু সেøাগান দিলে চলবে না, নেতৃবৃন্দের বক্তব্য শুনতে হবে। নিয়ম মেনে চলো, চুপ করে বক্তৃতা শোন। এরপর আলোচনা সভার পরিবেশ শান্ত হয়।
বর্তমান সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না প্রমাণ করতেই বিএনপি সিটি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল। নির্বাচন কমিশনের প্রতি আস্থা না থাকলে বিএনপি কেনো সিটি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেÑ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের প্রশ্নের জবাবে গতকাল বুধবার বিকালে ছাত্রদলের এক সমাবেশে দলটির মহাসচিব এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, অনেকেই প্রশ্ন করেন আপনারা নির্বাচনে কেনো গেলেন? প্রথমে বলতে চাই, ২০১৪ সালের নির্বাচনে যাইনি তখন আমাদেরকে বলেছিলেন যে, নির্বাচনে যাইনি ভুল করেছেন। ’১৪ সালের নির্বাচনে না যাওয়াটা প্রমাণ করার জন্যই আমরা ২০১৮ সালে নির্বাচনে গেছি, আওয়ামী লীগের অধীনে যে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না তা প্রমাণ করার জন্য গেছি। আজকেও প্রশ্ন এসেছে যে, আপনারা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে গেছেন কেনো? ওই একই কথা বলতে চাই, নির্বাচনে এ জন্য যাচ্ছি যে, এই কথা বারবার প্রমাণ করার জন্য যে, আওয়ামী লীগের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এই নির্বাচন কমিশন, যারা নিজেরাই বলে যে, আমরা পারি নাই, প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কথাÑ আমরা পারি নাই। আরেকজন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার পরিষ্কারই বলেই দিয়েছেন এই নির্বাচন কমিশন যোগ্য নয় সুষ্ঠু, অবাধ নির্বাচন করার জন্য। আমি বলতে চাই যে, এই নির্বাচন কমিশনকে সরাতে হবে, এই সরকারকে সরাতে হবে এবং একটা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় নির্বাচন করতে হবে।
ছাত্রদলকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সমস্যা নিয়ে আন্দোলনের পরামর্শ দিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ছাত্রদলের উচিত হবে ছাত্রদের সমস্যা নিয়ে আন্দোলন করা, ছাত্রদলের উচিত হবে প্রত্যেকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইউনিট গড়ে তোলা, সংগঠন গড়ে তোলা এবং ছাত্রদের সমস্যা নিয়ে সামনে আসা। আজকে ডাকসুর ভিপি নুরকে (নুরুল হক নুর) যখন মারে, তাকে যখন শুয়ে দেয়, তোমাদেরকে (ছাত্রদলের নেতাকর্মী) যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিগৃহীত করে, তোমাদেরকে যখন আঘাত করে তখন তোমাদের জেগে উঠতে হবে, প্রতিরোধ করে  দাঁড়াতে হবে। প্রতিরোধ ছাড়া বিজয় অর্জন করা সম্ভব হয় না। এই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, আজকে বিএনপির প্রয়োজনে নয়, আজকে শুধু বেগম খালেদা জিয়ার প্রয়োজনে নয়, আজকে শুধু তারেক রহমান সাহেবের প্রয়োজনে নয়, বাংলাদেশের মানুষের প্রয়োজনে, বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রয়োজনে, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের প্রয়োজনে আজকে আমাদের উঠে দাঁড়াতে হবে, ছাত্রদের উঠে দাঁড়াতে হবে, গোটা বাংলাদেশে মানুষকে জেগে উঠতে হবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রকে রক্ষা করার জন্য। বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে এখানে এসে আজকে আমার মনটা ভরে গেছে। কিছুদিন আগেও আমি দেখেছি, ছাত্রদলের সেই মুখগুলো বরাবর চেনা মুখ, একটু বয়স্ক বয়স্ক মুখ। আজকে আমি দেখছি তরুণ, টগবগে মুখ সব। যা আমাকে এবং আমাদের সবাইকে নতুন আশার আলো দেখিয়েছে বন্ধুগণ। তোমাদের বন্ধু বলছি, তুমি বলছি এ জন্য যে, তোমরা আমার একেবারে নাতি বয়সী প্রায়। ১৯৬৩ সালে আমি ঢাকা কলেজে পড়েছি। ১৯৭৪ সালে আমি ঢাকা কলেজে পড়িয়েছি, শিক্ষক ছিলাম (অর্থনীতি বিভাগ)। এখন বয়স ৭০-এর উপরে। আমাদের কী বলা হয়Ñ ৭০ অন্তত বৃদ্ধ। এখন বয়স বেড়েছে বলা হয়Ñ সত্তরোত্তর বৃদ্ধ, সেই বৃদ্ধ আমরা। আমরা তোমাদেরকে কথা বলতে পারি, আমরা তোমাদেরকে পথের দিশা দেখাতে পারি কিন্তু সেই পথের সামনে সারির পথিকৃৎ কারা হবে? তোমরা। ইংরেজিতে যাকে বলা হয় ভ্যানগার্ডস। সেই ভ্যানগার্ড হতে হবে তোমাদেরকে, সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে তোমাদেরকেই, যাদের কোনো পিছুটান থাকবে না।
তিনি বলেন, আমাদের বিখ্যাত বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম বলেছেন, ‘কে আছো জোয়ান, হও আগুয়ান, হাঁকিয়েছে ভবিষ্যৎ।’ তোমাদের দিকে তাকিয়ে গোটা বাংলাদেশ, তোমাদের দিকে তাকিয়ে আছে গোটা দেশের ১৬ কোটি মানুষ, তোমাদের দিকে তাকিয়ে আছে আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ওই জেলখানায় মধ্য থেকে, আর দূরে হাজার মাইল দূরে আমাদের তারেক রহমান। আশান্বিত- অনেকদিন পরে তরুণদের নির্বাচিত একটা ছাত্রদল গঠিত হয়েছে, তার কার্যকরী পরিষদ গঠিত হয়েছে। তারা আজকে চমৎকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান করেছো তোমরা। আমরা এখানে যারা আছিÑ সবাই আশার আলো দেখতে পারছি। স্বপ্ন আমাদের দেখতে হবে। সেই স্বপ্ন হচ্ছে আমাদের এই বাংলাদেশ একটা সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ দেখতে চাই। আমরা এই অন্ধকার, যন্ত্রণাময়, মানুষকে অন্যায়-অত্যাচার করে হত্যা করা, নির্যাতন করা, আমার ছেলেদের গুলি করে মারা, তাদের হাঁটুতে গুলি করে মারা, তাদেরকে গুম করে দেয়াÑ এই বাংলাদেশ আমরা আর দেখতে চাই না। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ভারত আইন করেছে যে আইন একটা বৈষম্যমূলক আইন, যে আইনের মধ্যে ধর্মীয় বৈষম্য রয়েছে। সেই আইনের বিরুদ্ধে ভারতে আজকে বিদ্রোহ দেখা দিয়েছে কারা প্রথম বেরিয়েছে? ছাত্ররা। আজকে গোটা ভারতবর্ষে সমস্ত ছাত্ররা তাদের সেই আইনের বিরুদ্ধে নেমে পড়েছে। আজকে হংকংয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলন হচ্ছে, কারা করছেÑ ছাত্ররা করছে। এদেশে কোনো কিছুই সম্ভব হয় নাই ছাত্রদের অগ্রণী ভূমিকা ছাড়া। ১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এসেছিল, আমানউল্লাহ আমান সাহেবরা নির্বাচিত হয়েছিলেন সবাই। কিভাবে? নব্বইয়ের আন্দোলনের পর সব ছাত্র নেতা চলে গিয়েছিলেন গ্রামে-গঞ্জে, গিয়ে সমস্ত মানুষকে সংগঠিত ধানের শীষে ভোট দিয়েছিল বলেই বিএনপি জিতেছে। বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে মেয়র ইলেকশন হচ্ছে। আমি খুব হতাশ যদি মেয়র প্রার্থী দুজন এখানে আসতেন, এসে তোমাদের সাথে পরিচিত হতেন। তোমরা ছড়িয়ে পড়ো ঢাকা শহরে। প্রতিটি গলিতে গলিতে, বাড়িতে বাড়িতে যাও এবং বলো যে, আজকে শুধু পরিবর্তনের জন্য আমাদেরকে ধানের শীষে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করতে হবে এ জন্য যে, আমরা পরিবর্তন আনতে চাই। আজকে গোটা দেশের মানুষ পরিবর্তন চায়। এসো আমরা সবাই জেগে উঠি, ঐক্যবদ্ধ হই এবং আমাদের বাংলাদেশের রাষ্ট্রকে বাঁচাবার জন্য আমরা পরিবর্তন নিয়ে এসে বাংলাদেশকে রক্ষা করিÑ এই হোক আমাদের আজকের দিনের শপথ। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, গণতন্ত্রের মুক্তি এবং আমাদের সকলের মুক্তি।
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ছাত্রদলের এই জন্মদিনে এই চেয়ারে বসতেন। আজকে তিনি অন্ধকারে, কারাগারে, শীতের মধ্যে অত্যন্ত কষ্টে আছেন। আমি গতকালই খবর পেয়েছি, তার রুমে একটা হিটার দেয়ার জন্য নিয়ে গিয়েছিল রুম হিটার। এই ভয়ঙ্কর নির্মম এই সরকার সেই হিটারটা পর্যন্ত এলাউ করেনি।
জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলের পরিচালনায় আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ছাত্রদলের সাবেক নেতা শামসুজ্জামান দুদু, ড. আসাদুজ্জামান রিপন, আমানউল্লাহ আমান, ফজলুল হক মিলন, নাজিম উদ্দিন আলম, কামরুজ্জামান রতন, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, এবিএম মোশাররফ হোসেন, আজিজুল বারী হেলাল, শফিউল বারী বাবু, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, আমিরুল ইসলাম খান আলীম, আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, রাজীব আহসান, আকরামুল হাসান, ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবন, সহ-সভাপতি মুক্তাদির হোসেন তরু, মিজানুর রহমান শরীফসহ ঢাকা পূর্ব-পশ্চিম, উত্তর-দক্ষিণ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা কলেজ, তিতুমীর কলেজ, তেজগাঁও কলেজ, বাংলা কলেজ, কবি নজরুল কলেজের ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সাবেক ছাত্রনেতা আলমগীর হাসান সোহান, আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী, ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জাকিরুল ইসলাম জাকির, আশরাফুল আলম ফকির লিংকন, হাফিজুর রহমান হাফিজ, সাজিদ হাসান বাবু, যুগ্ম সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন, শাহ নাওয়াজ, তানজিল হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, ৯০ স্বৈরাচার এরশাদবিরোধী আন্দোলনের মূল নেতৃত্বে ছিল ছাত্রদল। বর্তমান ফ্যাসিবাদ সরকার পতন আন্দোলনেও নেতৃত্ব দিবে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। ছাত্রদলের আন্দোলনের মাধ্যমেই ফ্যাসিবাদ শেখ হাসিনা সরকারের পতন ঘটাতে হবে। ফ্যাসিবাদ হাসিনা সরকারের পতন হলেই দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হবে এবং বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি পাবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম। গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম প্রেসকাবের হলরুমে ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, নতুন বছরে ছাত্রদল নেতাদের শপথ করতে হবে। দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করে আপোষহীন নেত্রী খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্ত করতে হবে। দেশের মানুষের ভোটের অধিকার, মতপ্রকাশের অধিকার, গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য দূর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার। তাহলেই এ বছর হবে গণতন্ত্রের বিজয়ের বছর। শেখ হাসিনা সরকার প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে এদেশের মানুষের প্রাণপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি করে রাখা হয়েছে। আমরা অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানাচ্ছি। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান বলেন, আমরা মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য এ সরকারের অধীনে নির্বাচন করছি। আওয়ামীলীগ সরকারের অধীনে কোন সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না জেনেও আমরা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। এর মাধ্যমে প্রমাণ হচ্ছে বারবার আওয়ামীলীগ ভোট চুরি করে, ভোট চুরি করার জন্য তারা ইভিএম ব্যবহার করছে।  চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শহিদুল আলমের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক মো. মহসিনের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান, যুগ্ম আহবায়ক আলী আব্বাস, সদস্য সচিব মোস্তাক আহমদ খান, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সম্পাদক আবু আফসান মো. ইয়াহিয়া।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, জামাল হোসেন, লায়ন হেলাল উদ্দীন, লোকমান হোসেন মানিক, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক কে এম আব্বাস প্রমুখ।
বাগেরহাট : বাগেরহাট প্রতিনিধি জানান, বাগেরহাটে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে গতকাল বুধবার  বিকালে কবুতর ও বেলুন উড়িয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচী শুরু করা হয়। পরে পবিত্র কোরআন তেলওয়াতের মাধ্যমে আলোচনা সভা শুরু করা হয়। এসময় সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত জেলা যুবদলের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক রকিবুল ইসলাম রকিবের রুহের মাগফেরাত কামনা করে এক মিনিট নীরাবতা ও দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। পরে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ইমরান খান সবুজ-এর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক সাদ্দাম আহমেদ দীপের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এম এ সালাম। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মোজাফ্ফর রহমান আলম, সাবেক সাধারন সম্পাদক আলী রেজা বাবু, বিএনপি নেতা মেহেবুবুল হক কিশোর, হাদীউজ্জামান হিরো, শেখ শাহেদ আলী রবি, আসাফুদৌল্লা জুয়েল, সদর উপজেলা ছাত্রদল নেতা হাবিবুল্লাহ ওয়াহিদ হাবিব, রামপাল উপজেলা ছাত্রদল নেতা ইসমাইল মোল্লা, তারেক আনাম, নাজমুল হাসান বাবু, শরণখোলা উপজেলা ছাত্রদল নেতা শামীম শিকদার, মেহেদি হাসান সুমন, সোহাগ তালুকদার, চিতলমারী উপজেলা ছাত্রদল নেতা হোসাইন বিশ^াস, ফকিরহাট উপজেলা ছাত্রদল নেতা কাজী মহিউদ্দিন, কচুয়া উপজেলা ছাত্রদল নেতা শামিম হাসান বাবু, মোল্লাহাট উপজেলা ছাত্রদল নেতা রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।
টঙ্গী : টঙ্গী প্রতিনিধি জানান, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে টঙ্গীতে র‌্যালী বের করে স্থানীয় ছাত্রদল। ছাত্রদল নেতা আল-আমিন ইসলাম আকাশ ও আব্দুল্লাহ আহমেদ পার্থের নেতৃত্বে র‌্যালীটি সকাল ৯টায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চেরাগ আলী মার্কেট থেকে শুরু হয়ে স্থানীয় মোল্লা প্লাজার সামনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শেষ হয়। র‌্যালিতে আরো অংশ নেন ছাত্রদল নেতা মো. সুমন হাওলাদার, মো. ইউসুফ টিপু, মো. নূর হোসেন, খায়রুল ইসলাম, সাঈদ বেপারী, হৃদয় খান, শাকিল ইমন, জিহাদ রনি, রুবেল সনি, রনি হোসেন, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।
রাণীশংকৈল : রাণীশংকৈল প্রতিনিধি জানান, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলা শাখা বিভিন্ন কর্মসুচির মধ্যে দিয়ে উদযাপন করেছে। এ উপলক্ষে বুধবার রাণীশংকৈল ডিগ্রী কলেজ হলরুমে খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবাষির্কীর সফলতা কামনায় দোয়া মাহফিল। কেক কাটাসহ বিভিন্ন কর্মসুচি শেষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি এম আর বকুল মজুমদারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আওলাদ হোসেনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আইনুল হক। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান যুগ্ন সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন পৌর বিএনপির সভাপতি শাহাজাহান আলী সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান। উপজেলা যুবদলের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি সাধারণ সম্পাদক(ভারপ্রাপ্ত) মুনতাসির আল মিঠু ইউনিয়ন বিএনপি নেতা আলিফ বিএনপি নেতা পান্না বিশ্বাসসহ ছাত্রদল নেতা দুলাল প্রমূখ।
এর পূর্বে ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উপলক্ষে এদিন বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে ছাত্রদলের নেতাকর্মিরা খন্ড খন্ড ভাবে মিছিল নিয়ে জড়ো হয় ডিগ্রী কলেজ মাঠে। উপজেলা ছাত্রদল দুপুরে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করতে প্রস্তুতি নিলেও পুলিশি বাধায় তা পন্ড হয়ে যায়।
কুলাউড়া : কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি জানান, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলা ছাত্রদলের আলোচনা সভা ও কেক কাটা বুধবার দুপুরে পৌর শহরের বিএনপি কার্যালয়ে সম্পন্ন হয়েছে।
উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি এম ফয়েজ উদ্দিনের সভাপতি এবং উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক এম গিয়াস উদ্দিন মোল্লার সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ও মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাড. আবেদ রাজা। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কুলাউড়ার সাবেক পৌর মেয়র ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কামাল উদ্দিন আহমদ জুনেদ, উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি শওকতুল ইসলাম শকু, উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও পৌর প্যানেল মেয়র জয়নাল আবেদিন বাচ্চু, উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি রেদওয়ান খান, সহ সভাপতি শামীম আহমদ চৌধুরী, জেলা যুবদলের সহ-সাধারণ সম্পাদক কাওছার আহমদ নিপার, উপজেলা যুবদল নেতা আব্দুল মুহিত বাবলু, উপজেলা বিএনপির ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মোক্তাদির মনু, শেখ সুমন, উপজেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ফাহাদ মাহফুজ চৌধুরী, পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মাসুদ রানা, হাজিপুর ছাত্রদলের আহবায়ক মোশারফ হোসেন মিজু, কাদিপুর ছাত্রদলের আমির আরমান চৌধুরী, জয়চণ্ডী ছাত্রদলের আহবায়ক বদরুল ইসলাম, ভাটেরা ছাত্রদলের আহবায়ক নির্মল দাস, ভূকশিমইল ছাত্রদলের আহবায়ক খয়ের আহমদ, পৃথিমপাশা ছাত্রদলের আহবায়ক সৈয়দ মঞ্জু আহমদ, উপজেলা ছাত্রদলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাইন উদ্দিন, কুলাউড়া কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক বাছিদ আহমদ, তাওহীদ প্রমুখ। বক্তারা কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং গণতন্ত্র মুক্তির আন্দোলন ত্বরান্বিত করতে ছাত্রদলকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান। এদিকে ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৭টার দিকে দলীয় কার্যালয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের রোগমুক্তি কামনায় যুক্তরাজ্য বিএনপির উপদেষ্টা ও কুলাউড়া উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি আব্দুল আহাদের অর্থায়নে প্রায় ৪ শতাধিক অসহায় ও দুঃস্থ মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করে উপজেলা ছাত্রদল।
কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রদলের আনন্দ র‌্যালি : ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলে কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রদলের বিশাল আনন্দ র‌্যালি।  জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম বাবুর নেতৃত্বে র‌্যালিটি চান্দিনাস্থ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে প্রদণি শেষে সংপ্তি  সমাবেশের মাধ্যমে সমাপ্তি ঘোষণা করে।  সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্যে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক  তৌহিদুল ইসলাম বাবু অবিলম্বে  দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি এবং তারেক রহমানের নামে সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান। র‌্যালিতে আরো  উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম বাবর, জেলা ছাত্রদল নেতা তৌহিদুল ইসলাম, ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক আল হেলাল সোহাগ, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক সোহেল রানা, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ -সাংগঠনিক সম্পাদক  মঞ্জুরুল আলম, খায়রুল কবির সুমন, জেলা ছাত্রদল নেতা  এনায়েত উল্লাহ ফাহাদ, খায়রুল হাসান, আবদুর রাজ্জাক, হাসিব জামান,  এরশাদ হাজারী, চান্দিনা উপজেলা ছাত্রদল নেতা সাইফুল ইসলাম, আরিফ আহমেদ, বোরহান উদ্দিন, মাহবুব আলম, সাদ্দাম হোসেন, ফরহাদ হোসেন, সজীব ভুইয়া, সাফায়েত, নুরুন্নবী, শাহপরান তালুকদার সুজন। দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রদল নেতা ইব্রাহীম খলিল, সোহেল রানা, নাজমুল হাসান, শুভ হাজারী, মো সোহাগ, এরশাদ হাজারী, তানভির আহমেদ,   চান্দিনা পৌর ছাত্রদল নেতা জোবায়ের আহমেদ সুমন, চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি নাইমুল ইসলাম তন্ময়, সাধারণ সম্পাদক ইমরান হাসান, নবাবপুর সরকারি কলেজ ছাত্রদল সভাপতি কাইয়ুম হাসান, মাধাইয়া মুক্তিযোদ্ধা কলেজ ছাত্রদল সভাপতি সজিবুল ইসলাম সাগর,  সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুদ্দিনসহ জেলার বিভিন্ন ইউনিটের সহস্রাধিক কর্মী ও সমর্থকবৃন্দ ।
শরীয়তপুর : শরীয়তপুর প্রতিনিধি জানান, শরীয়তপুরে ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বুধবার সকালে শরীয়তপুরের ধানুকা এলাকায় আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। শরীয়তপুর জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক এইচ.এম জাকিরের সভাপতিত্বে ও জাজিরা উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক এস.এম রানার পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আ. মান্নান মাদবর। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক ভিপি রুহুল আমীন মুন্সী। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন বিদ্যুৎ খান। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ওয়ালী উল্যাহ খান, আক্তার হোসেন ঢালী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদ কাজী, ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক এস.এম মনিরুজ্জামান, সদর উপজেলা যুবদলের সভাপতি রুহুল আমীন বেপারী, পৌরসভার সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান বেপারী, সদর উপজেলার সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী আজ্জম ফকির, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আ. সালাম মাঝী, পৌরসভার সভাপতি টিটু হাওলাদার, জাজিরা উপজেলার সাবেক সাধারণ সম্পাদক রুবেল সরদার, জাজিরা উপজেলা যুবদলের সাবেক আহবায়ক আবু আলেম ফকির, সাধারণ সম্পাদক দবির বেপারী, কৃষকদলের আহবায়ক কাজী জয়নাল আবেদীন, সদস্য সচিব বাদশা চোকদার, গোসাইরহাট উপজেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বাবু, সহ-সভাপতি বিল্লাল সরদার, সদর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি রাসেল মোল্যা, সাধারণ সম্পাদক আল ইসলাম, পৌরসভার সভাপতি মিজান খান, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান, কলেজ শাখার সভাপতি রুবেল মাদবর, সাধারণ সম্পাদক ইসহাক সরদার, সাংগঠনিক সম্পাদক সাব্বির, ভেদরগঞ্জ উপজেলার সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, ইমরান, গোসাইরহাট উপজেলার সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জুয়েল ঘরামী, শামসুর রহমান কলেজ শাখার সভাপতি জোনায়েদ ঢালী, জাজিরা ডিগ্রী কলেজ শাখার আহবায়ক ফারুক, ছাত্রদল নেতা সোহেল তালুকদার, রানা মোল্যা প্রমুখ।
ফরিদপুর : ফরিদপুর প্রতিনিধি জানান, ফরিদপুরে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। বুধবার বিকেলে শহরের ময়েজউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি জহিরুল হক শাহজাদা মিয়া এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল ও মহিলা দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী নায়াব ইউসুফ। মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি শাহরিয়ার শিথীলের সভাপতিত্বে আরো মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা রশিদুল ইসলাম লিটন, হামিদুল হক ঝন্টু, নাজমুল হাসান রঞ্জন, গোলাম মোস্তফা মিরাজ, একে কিবরিয়া স্বপন, মহানগর যুবদলের সভাপতি বেনজির আহমেদ তাবরীজ,  জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সৈয়দ আদনান হোসেন অনু, সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হাসান কায়েস, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম প্রমুখ। এর আগে শহরের ময়েজমঞ্জিল থেকে একটি র‌্যালি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জহিরুল হক শাহজাদা মিয়া বলেন, গণতন্ত্রকে হত্যা করে দেশে ফ্যাসিবাদ কায়েম করা হয়েছে। এই নতুন বছরে আসুন সকলে মিলে নব্য স্বৈরাচারের পতন ঘটিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করার শপথ নেই।
নগরকান্দায় প্রতিষ্ঠাবর্ষিকী পালিত:
জেলার নগরকান্দা উপজেলায় এ উপলক্ষে গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে ভাষা সৈনিক গোলাপ মাতুব্বর উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। এরপর নগরকান্দা বাসস্ট্যান্ডে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল। উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুজ্জামান অনু, পৌর বিএনপির সভাপতি আসাদুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত আলী শরীফ, সহ-সভাপতি আইয়ুব আলী মুন্সি, গোলাম মোস্তফা, সালথা উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি হাফিজুর রহমান, নগরকান্দা পৌর ছাত্রদলের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম প্রমুখ। পরে বিশেষ দোয়া করা হয়।
জামালপুর : জামালপুর প্রতিনিধি জানান, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল বুধবার জামালপুরে শহরের দয়াময়ী মোড় থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করে জেলা ছাত্রদল। র‌্যালিটি শহর প্রদণি করে সফি মিয়ার বাজারস্থ জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সংপ্তি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সোহেল রানা খানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মনসুর, সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুরুল করিম সুমন, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান সুমিল, শাহাদাত হোসেন সবুজ, মাহমুদুল হাসান মানিক, শহর ছাত্রদলের সভাপতি ইমরান কায়সার, সদর উপজেলা দণি শাখা ছাত্রদলের সভাপতি এম কামরুল ইসলাম, পূর্ব শাখার সভাপতি এসএম শাকিল শুভ, শহর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রুকনুজ্জামান প্রমুখ। বক্তারা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান। তারা বলেন, সরকারের হস্তেেপর কারণে তাকে জামিনে মুক্ত করা যাচ্ছে না। আগামী দিনে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন ।
চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম ব্যুরো জানান, ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলে রাঙ্গুনিয়াস্থ শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের প্রথম মাজারে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল নোমানের নেতৃত্বে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের শ্রদ্ধাঞ্জলি।
এতে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, সহ-সাধারণ সম্পাদক ঈগলুর রহমান,বি বি.এ ফ্যাকাল্টির যুগ্ম-আহবায়ক আব্দুল কাদের সিয়াম, সহ-আইন সম্পাদক মিজানুর রহমান, সদস্য যথাক্রমে ফরহাদ হোসেন আসিফ, শাকিল রহমান, মোহাম্মদ নাজিম, সিনান চৌধুরী, জয়নাল উদ্দিন, রহিম শাহ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল নেতা ঈমরান, ্ওয়াসিম, রহিম, সাগর, বাবলু, মামুন, ওবায়েদ, রাশেদ, শোয়াইব, রফিকসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। শ্রদ্ধাঞ্জলি শেষে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।
কুড়িগ্রাম : স্টাফ রিপোর্টার, কুড়িগ্রাম জানান, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কুড়িগ্রামে জেলা ছাত্রদলের আয়োজনে র‌্যালি, আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকাল ১১ টায় কুড়িগ্রাম বাজার থেকে একটি র‌্যালি বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ শেষে জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আমিমুল ইহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা।

এ সময় বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহেল হোসনাইন কায়কোবাদ, সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল আজিজ, যুগ্ম সম্পাদক জেলা বিএনপি আশরাফুল হক রুবেল, জেলা যুবদল সভাপতি রায়হান কবির, সাধারণ সম্পাদক নাদিম আহমেদ, সিনিঃ সহ সভাপতি নাসিম পারভেজ তারা, পৌর যুবদলের সম্পাদক ইনসান আলী, জেলা ছাত্রদলের সহ সভাপতি হাবিবুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক সাওন, সোহেল রানা,এ্যাডঃ শিথিল, সাংগঠনিক সম্পাদক আরমান, দফতর সম্পাদক রাব্বি, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি রাসেল, সম্পাদক ফেরদৌস রুবেলসহ কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজ শাখা, পলিটেকনিক শাখা, মজিদা কলেজ শাখা নেতৃবৃন্দ।
বক্তারা বলেন, ছাত্রদলের নেতাকর্মীরাই পারে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে দেশের জনগণের মৌলিক অধিকার ফিরিয়ে দিতে।
পরে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট