সরকারই আদালত অবমাননা করেছে : ফখরুল

রাজনীতি

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আদালতের আদেশ থাকা সত্ত্বেও খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য প্রতিবেদন সুপ্রিমকোর্টে নির্ধারিত দিনে উপস্থাপন না করে সরকার এবং অ্যাটর্নি জেনারেল আদালত অবমাননা করেছেন।

তিনি বলেন, সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে বিএনপি চেয়ারপারসনকে সাজা দিয়েছে। তাকে এখন জোর করে আটকে রেখেছে।

শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘৯০-এর ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্য’ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার আপিল শুনানিতে আদালতে বিএনপি ও আওয়ামীপন্থি আইনজীবীদের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয়। আদালতে চরম হইচই হয়। এ কারণে বিচারপতিরা এজলাস ছেড়ে চলে যান। এ ঘটনাকে আওয়ামী লীগ নেতারা আদালত অবমাননা হয়েছে বলে মন্তব্য করছেন। এই অভিযোগ খণ্ডন করে আজ বিএনপি মহাসচিব বলেন, উল্টো সরকারই আদালত অবমাননা করেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, চিকিৎসকরা বলছেন– খালেদা জিয়া অত্যন্ত অসুস্থ। তার স্বাস্থ্যের যে অবস্থা তাতে তার প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে। এমতাবস্থায় দেশনেত্রীর কিছু হলে এর দায় সরকার ও সরকারপ্রধানকে নিতে হবে।

তিনি বলেন, ১২ ডিসেম্বর খালেদা জিয়ার জামিন না হলে বৃহত্তর গণআন্দোলন তৈরি করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। তারা (আওয়ামী লীগ) গণতন্ত্রকে শেষ করে দিতে গণতন্ত্রের নেত্রীকে আজ আটকে রেখেছে।

৩০ ডিসেম্বরের আগের রাতে ভোট ডাকাতি করেছে। মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে তারা দেশে একদলীয় বাকশাল আবারও পুনর্প্রতিষ্ঠা করতে চায়। এ জন্য তারা দেশের সব প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে দিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের সর্বোচ্চ আদালতে হস্তক্ষেপ করছে, যোগ করেন মির্জা ফখরুল।

Leave a Reply