ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল-এর সাথে সিলেট বিএনপির বিভাগীয় পরিকল্পনা সভা

সিলেট বিভাগ

সিলেট বিএনপির নেতারা বলেছেন, ‘দেশে গনতন্ত্রের পরিবেশ নেই। গত ৩০ ডিসেম্বর দেশে ভোট ডাকাতি হয়েছে। বাংলাদেশের গণতন্ত্রের মৃত্যু হয়েছে। আওয়ামী লীগের গণতন্ত্রেন প্রতি শ্রদ্ধা নেই। দেশে মিডনাইট গণতন্ত্র ও এসএমএস গণতন্ত্র চলছে।’

সোমবার ডেমোক্রেসি ইন্ট্যারন্যাশনাল এর উদ্যোগে সিলেট জেলা ও মহানগর, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি ও অংগসংগঠনের নেতাদের নিয়ে আয়োজিত ‘বিভাগীয় পরিকল্পনা সভায়’ এসব কথা বলেন নেতৃবৃন্দ।

ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল-এর উদ্যোগে আয়োজিত কর্মপরিকল্পনা সভায় রাজনীতিতে আরপিও অনুযায়ী ৩৩ ভাগ নারীর অংশগ্রহণ, প্রশিক্ষিত রাজনৈতিক কর্মী, সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় নারী অর্ন্তভূক্তিসহ নানা বিষয়ে আলোচনা করা হয়। নগরের মেন্দিবাগস্থ রোজ ভিউ হোটেলে অনুষ্ঠিত এ সভায় সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির অর্ধশত নেতা অংশগ্রহন করেন।

সভায় প্রত্যেক জেলাকে আলাদা আলাদা বিষয়ে কর্মপরিকল্পনাসহ দলকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করতে ও জনমুখী করতে কী কী পদক্ষেপ প্রয়োজন, তৃণমূল পর্যায়ে একজন নেতার ভূমিকা কী, কেন্দ্রীয় পর্যায়ে সুপারিশ, সঠিক নেতৃত্ব নির্বাচনে তৃণমূল ও কেন্দ্রের ভূমিকা, দলের সাথে দলীয় গঠনতন্ত্রে কোন বিষয়গুলো সংযোজন বা সংশোধন করতে হবে এ বিষয়ে আলোচনা করা হয়। সিলেট মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোর্শেদ আহমেদ মুকুলের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ডেমোক্রেসি ইন্ট্যারন্যাশনালের রিজিওনাল কো-অর্ডিনেটর মোছাম্মদ রাহিমা বেগম।

আয়োজিত সভায় সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন বলেন, আমরা দলের প্রতিটি ইউনিটে প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্বাচন চাই। দলে নারী নেত্রীদের অংশগ্রহন জরুরি। তবে আমরা যোগ্য নারী নেতৃত্ব পাচ্ছি না। এজন্য প্রতিটি কলেজে নারী ছাত্রদল করতে হবে। যাতে নারী নেতৃত্ব উঠে আসে। তিনি বলেন, দেশে গনতন্ত্রের পরিবেশ নেই। বাংলাদেশের গণতন্ত্রের মৃত্যু হয়েছে। এখন ঘয়োয়া সভা করতেও পুলিশের অনুমতি প্রয়োজন।

সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মুনাজ্জির হোসেন সুজন বলেন, গত ৩০ ডিসেম্বর দেশে গণতন্ত্রের মৃত্যু হয়েছে। দেশে এখন আর ঘনতন্ত্র নেই। সুসংগঠিত বিএনপিই পারে দেশে গণতন্ত্র রক্ষা করতে। মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বকশী মিছবাহ উর রহমান বলেন, বিএনপির নিয়মিত ইউনিয়ন প্রতিনিধি সভা করতে হবে। কারণ প্রশিক্ষিত কর্মীরাই বিএনপির প্রাণ। মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির প্রতিটি ইউনিটে নারী নেত্রীদের স্থান দেয়া হবে। জেলার ৭ উপজেলায় নারী নেত্রীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।

সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, আওয়ামী লীগের গণতন্ত্রেন প্রতি শ্রদ্ধা নেই। এজন্য ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালে প্রোগ্রামে তাদের হাতেগুনা কয়েকজন উপস্থিত হন। দেশে এখন মিডনাইট গণতন্ত্র ও এসএমএস গণতন্ত্র চলছে। কয়েকদিন আগে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের কমিটি প্রধানমন্ত্রীর এসএমএসের মাধ্যমে হয়েছে। আগামী ৫ তারিখ সিলেটে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে কি হবে, দেখা যাক।

সিলেট জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার বলেন, দেশে গণতন্ত্র নেই। গত ৩০ ডিসেম্বর দেশে ভোট ডাকাতি হয়েছে। রাজনীতি এখন প্রশাসনের হাতে জিম্মি। সরকার দলের গণতন্ত্র সম্পর্কে শিক্ষা লাভ করা উচিত। তাদের গণতন্ত্রন বিষয়ে প্রশিক্ষণের প্রয়োজন। তিনি ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালদের দায়িত্বশীলদের উদ্দেশ্যে বলেন, সরকার দলকে গণতন্ত্র শেখান। গণতন্ত্র কি তারা বুঝে না। আমাদের বিএনপি নেতাদের প্রতিদিন আদালতে যেতে হয়, এটা গণতন্ত্র না।

অনুষ্ঠানে সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতারা অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র, প্রশিক্ষিত রাজনৈতিক কর্মী ও সিদ্ধান্ত গ্রহনে নারী অন্তভূক্তির বিষয়ে আলোচনা করে দলীয় প্রস্তাবনা উপস্থাপন করেন।

অনুষ্ঠানে সিলেট জেলা বিএনপির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আলী আহমদ, মাহবুব রব চৌধুরী ফয়সল, আব্দুল মান্নান, মো. মামুন রশিদ, আব্দুল আহাদ খান জামাল, আবুল কাশেম, শামীম আহমদ, জেলা মহিলা দলের সভাপতি সালেহা কবির শেপী, সাধারণ সম্পাদক আমেনা বেগম রুমি, সাংগঠনিক সম্পাদক ফাহিমা আহম্মদ কুমকুম, সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক তাহমিনা শারমীন তামান্না।

সিলেট মহানগর বিএনপির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদ সিদ্দিকী, হুমায়ুন কবির শাহীন, অধ্যাপিকা সামিয়া বেগম চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক আতিকুর রহমান সাবু, হুমাউন কবির মাসুক, সাংগঠনিক সম্পাদক তৌফিকুল হাদী, দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম আলো, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক নিগার সুলতানা ডেইজি, সহ-সভাপতি মিনারা বেগম, সিনিয়ির যুগ্ম সম্পাদক ফাহেমা জামান রোজী।

সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মুনাজ্জির হোসেন সুজন, দপ্তর সম্পাদক জামাল উদ্দিন আহমদ, প্রকাশনা সম্পাদক ওমর খৈয়াম, দিরাই উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাপ মিয়া, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক ছবি চৌধুরী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আছমা আক্তার, জেলা যুবদলের সহ-সম্পাদক মাইদুল চৌধুরী, দিরাই উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক জুনায়েদ মিয়া।

মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুল ওয়ালী সিদ্দিকি, যুগ্ম সম্পাদক শামীম আহমদ, মুহিতুর রহমান হেলাল, দপ্তর সম্পাদক ফখরুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান, ওলামা দলের আহ্বায়ক আব্দুল হেকিম। ডিআই’র পক্ষে বক্তব্য রাখেন প্রোগ্রাম ম্যানেজার অনিন্দ্র রহমান। উপস্থিত ছিলেন ডেমোক্রেসি ইন্ট্যারন্যাশনালের রিজিওনাল প্রোগ্রাম কো অর্ডিনেটর ফরহাদ আহমদ।

Leave a Reply