সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ সাকিব

খেলার খবর

শেষ পর্যন্ত ঘোর অমানিশাই সত্য হলো। ক্রিকেটের আকাশে যে অন্ধকারের আভাস ছিল তাই সত্য হলো। এত বড় দুঃসংবাদ ভাবেনি কেউই। দেশের সেরা তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ হচ্ছেন। এটা যেমন অপ্রত্যাশিত সত্য, তেমনি দুঃখজনক। একেবারেই শিশুসুলভ ভুলের কারণে বড় দণ্ড পেলেন দেশের ক্রিকেটের পোস্টার বয়। আইসিসি থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন দেশের ক্রিকেটের প্রাণ সাকিব। তবে ভুল স্বীকার করায় শাস্তির মেয়াদ কমেছে ১২ মাস।

ঘটনা দুই বছর আগের। একটি আন্তর্জাতিক ম্যাচের আগে এক ক্রিকেট জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়েছিলেন সাকিব। ক্রিকেটে সততার সঙ্গে আপোষ করেননি টাইগার তারকা। সঙ্গে সঙ্গে প্রত্যাখ্যান করেন সেই প্রস্তাব। তবে সাকিবের ভুল ছিল, তিনি সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি আইসিসির অ্যান্টি করাপশন ইউনিট-আকসুর কাছে গোপন রেখেছিলেন।

সাকিব ভেবেছিলেন, যখন প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন, তখন আর জানিয়ে বা কী হবে। নিজের এই সিদ্ধান্তই তার কাল হলো। ভারত সফরের আগে ফাঁস হলো তথ্যটি। দেশের একটি দৈনিক নিশ্চিত করেছে, সেই দিনের ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাবের বিষয়টি আইসিসি জেনে ফেলেছে। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন জুয়াড়িদের কল রেকর্ড ট্র্যাকিং করে এ ব্যাপারে তারা তথ্য উদ্ধার করে। সাকিবের সঙ্গে যিনি কথা বলেন তিনি আইসিসির কালো তালিকাভুক্ত একজন। বিষয়টি নিশ্চিতভাবে জেনে আকসু সাকিবের সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং সাকিবও অকপটে নিজের ভুল স্বীকার করে নেন।

Leave a Reply