শেখ রাসেলকে হত্যা ইতিহাসের এক জঘন্য অপরাধ : সিলেটের জেলা প্রশাসক

প্রকাশিত: ১০:৪১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০১৯

শেখ রাসেলকে হত্যা ইতিহাসের এক জঘন্য অপরাধ : সিলেটের জেলা প্রশাসক

সিলেট জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল হক বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলকে হত্যা মানব সভ্যতার ইতিহাসের এক জঘন্য অপরাধ। আমাদের প্রতিটি শিশুই শেখ রাসেলের প্রতিচ্ছবি। তাদের যথাযথভাবে গড়ে তুলতে হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তুলতে সোনার মানুষ দরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট ভাই শেখ রাসেল ১৯৬৪ সালের এই দিনে ধানমন্ডির ঐতিহাসিক স্মৃতি-বিজড়িত বঙ্গবন্ধু ভবনে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট মানবতার শত্রু ঘৃণ্য ঘাতকদের নির্মম বুলেট থেকে রক্ষা পাননি শিশু শেখ রাসেলও। সপরিবারে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে নরপিশাচরা নির্মমভাবে তাকেও হত্যা করেছিল।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট ছেলে শেখ রাসেলের ৫৫তম জন্মদিন উপলক্ষে সিলেট সদর উপজেলার খাদিম নগরস্থ শেখ রাসেল প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র (বালক) এর উদ্যোগে শুক্রবার সকালে আয়োজিত আলোচনা সভা এবং শিশুদের জন্য বিভিন্ন প্রতিযোগিতা,কেক কাটা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিষয় ভিত্তিক প্রতিযোগিতা ছিল-নৃত্য,চিত্রাঙ্কন,কবিতা আবৃত্তি ও সব শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পরে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। উপ প্রকল্প পরিচালক মো. নূরে আলম সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন-অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) আসলাম উদ্দিন,সিলেট সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী মহুয়া মমতাজ,সিলেট জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ পরিচালক নিবাস রঞ্জন দাশ,জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক নাজিম উদ্দিন,সিনিয়র সাংবাদিক এম আহমদ আলী,সামাজিক প্রতিবন্ধী সেবা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক লুৎফুর রহমান ।

চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান লাভ করে শেখ রাসেল প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র (বালক) এর শিক্ষার্থী রোহান,দ্বিতীয় জায়েদ মিয়া,তৃতীয় হাবিবুর রহমান। কবিতা আবৃত্তিতে প্রথম স্থান লাভ করে আমিনুল ইসলাম,দ্বিতীয় জায়েদ মিয়া,তৃতীয় আলী হোসেন।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট