একদিনের টানা বৃষ্টিতে নাকাল সিলেট নগরবাসী

প্রকাশিত: ১১:৫৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০১৯

একদিনের টানা বৃষ্টিতে নাকাল সিলেট নগরবাসী

একদিনের টানা বৃষ্টিতে সিলেট নগরীতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। বর্ষার দুর্ভোগের পর এবার শরতের বৃষ্টিতে জলজটে নাকাল নগরবাসী। সকাল থেকে টানা বৃষ্টি হওয়ায় নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে পানি জমে গেছে।

সিলেট নগরী ঘুরে দেখা গেছে, নগরীর পাঠানটুলা, লন্ডনী রোড এলাকা সবচেয়ে বেশি জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ওই এলাকার সড়ক উপচে পানি ঢুকে পড়ে বিভিন্ন বাসাবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। এতে চরম বিপাকে পড়েন ওই এলাকার মানুষ। যানবাহন আটকে পড়ে সড়ক পার হতে গিয়ে। ইঞ্জিনে পানি প্রবেশ করে সড়কে যানবাহন আটকে পড়ায় দীর্ঘ যানজট দেখা দেয় ওই এলাকায়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা। ফুটপাত ডুবে যাওয়ায় পথচারীরাও পড়েন বিপাকে।

নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ড্রেইনের কাজ সম্পন্ন করায় সামান্য বৃষ্টিতেই নগরীতে জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। নগরীর ব্যস্ততম সড়ক বন্দরবাজার থেকে আম্বরখানা। ওই রাস্তার দু’পাশেই ড্রেইনের কাজ চলছে। যার ফলে রাস্তা সরু হয়ে যায় স্বাভাবিক ভাবেই সারাদিন যানজট লেগে থাকে। তাছাড়া আজকের বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা দেখা দিলে যানজট তীব্র আকার ধারণ করে। জলজট আর যানজটে নাকাল হয়ে পড়েছে নগরবাসী।

সারা দিনের বৃষ্টিতে নগরীর জিন্দাবাজার, আম্বরখানা, সাপ্লাই, উপশহর, সোনারপাড়া, মিরাবাজার, যতরপুর, রায়নগর, ছড়ারপার, মাছিমপুর, তালতলা, জামতলা, দাড়িয়াপাড়া, লামাবাজার, ভাতালিয়া, বিলপার, সুবিদবাজার, বনকলাপাড়া, হাউজিং এস্টেট, জালালাবাদ, লোহারপাড়া, বাঘবাড়ি, কুয়ারপার, চারাদিঘীরপাড়, রায়নগর, রায়হোসেন, হাওয়াপাড়া, কলবাখানি, যতরপুর, তালতলা, কুয়ারপাড়, বিলপাড়, কাজলশাহ্সহ প্রায় ৫০টি এলাকা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যায়।

কোথাও কোথাও কোমর সমান পানি জমেছে। এছাড়া কোনো কোনো জায়গায় অনেক বাসা বাড়িতে পানি উঠেছে। রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হয় স্কুলগামী শিক্ষার্থীসহ জনসাধারণকে।
সরেজমিন বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে কোথাও হাঁটু জল, আবার কোথাও কোমর পানি ভেঙ্গে মানুষজন চলাচল করছে।

নগরীর সুবিদবাজার এলাকার বাসিন্দা সুমন আহমদ বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ হয়। কিন্তু তা জনগণের কোন কাজে আসেনা। ‘আই ওয়াশ’ চালিয়ে লোক দেখিয়ে কাজ করার ফলে শরতেও রাস্তায় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। পুরো বর্ষা মৌসুমই জলাবদ্ধতার অভিশাপ বয়ে বেড়াতে হয়েছে। এখন আবার জলাবদ্ধতা।

নগরীর উপশহরের বাসিন্দা ফাহিম আহমদ বলেন, বিকেলের বৃষ্টিতে তার বাসায় পানি উঠে যায়। বৃষ্টির পানিতে ঘরের আসবাবপত্র ভিজে গেছে। পানিবন্দি অবস্থায় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে তিনি চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।

পাঠানটুলার করিম খান নামের এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘বর্ষার প্রথম মুষলধারায় বৃষ্টিতে এলাকা তলিয়ে গেছে। সামনে আরো বৃষ্টি হবে। তখন পরিস্থিতি কি হবে, তা ভাবলেই আঁতকে ওঠতে হচ্ছে।

ওই এলাকার বাসিন্দা আব্দুল করিম বলেন, ‘বৃষ্টির পানি সড়ক উপচে আমাদের অনেকের বাসাবাড়িতে ঢুকে পড়ে। এতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট