জৈন্তাপুরে হোটেল থেকে ১৫ জুয়াড়ী আটক

প্রকাশিত: ১২:৪৩ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯

জৈন্তাপুরে হোটেল থেকে ১৫ জুয়াড়ী আটক

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা সদরের বাসষ্টেশন এলাকার সীমান্ত হোটেল থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে ১৫ জুয়াড়ীকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে জুয়া আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাত ১২টায় জৈন্তাপুর বাসষ্টেশন সংলগ্ন সীমান্ত হোটেল থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে একদল পুলিশ ফোর্স অভিযান চালিয়ে সীমান্ত হোটেলের দ্বিতীয় তলা থেকে ১৫ জুয়াড়ীকে আটক করে। এলাকাবাসী জানায় সীমান্ত হোটেলের দ্বিতীয় তলার কয়েকটি কক্ষে দীর্ঘদিন যাবৎ অবৈধ ভাবে অন্তত ১০টি বোর্ড বসিয়ে জুয়া খেলা পরিচালিত হয়ে আসছে।

তারা আরো জানায় ইতিামধ্যে জৈন্তাপুর মডেল থানায় আসা নবাগত ওসি শ্যামল বণিক উপজেলার প্রতিটি বাজার এলাকায় মাইকিং করে জুয়া খেলা, তীর খেলা ও মাদক আস্তানা বন্ধ করার আহবান জানান। যদি এসব অপরাধ বন্ধ না করা হয় তাহলে কঠোর আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আটকৃতরা হলো- নিজপাট ইউপি‘র মোর্গাহাটি গ্রামের মৃত মুছা মিয়ার ছেলে মহসিন (৩০), নিজাপট দর্জিহাটি গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে মোঃ মইনুল (২৪), মজুমদার পাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফ ড্রাইভারের ছেলে সোহেল আহমদ (২৮), রুপচেং মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত ইউসুছ আলীর ছেলে হাফিজুল হক (২৮), পানিয়ারাহাটি গ্রামের মোঃ শফিকুল ইসলামের ছেলে মোঃ সমুন মিয়া (৩০) জৈন্তাপুর ইউপি‘র বিরাখাই গ্রামের মৃত শহর উল্লার ছেলে কামরুল হাসান (৩৫), বাউরভাগ কান্দি গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে মোঃ কিবরিয়া (৩৩), একই গ্রামের সাইফুল্লার ছেলে জালাল উদ্দিন হেলাল (২৮), তজমুল আলীর ছেলে মোঃ আব্দুল্লাহ (২৮), বাউরভাগ মল্লিফৌদ গ্রামের মৃত সামছুল হকের ছেলে বোরহান উদ্দিন (২০), একই গ্রামের মৃত মছক আলীর ছেলে হাবিবুর রহমান (২৮), বিরাখাই গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে নাছির আহমদ (৩০), মোয়াখাই গ্রামের সুনিল দাশের ছেলে সাধন দাশ (২৮), বিরাইমারা গ্রামের বজলু মিয়ার ছেলে ইছাক মিয়া (৩২) এবং গোয়াইনঘাট উপজেলার সাবেক আলীরগাঁও ইউনিয়নের পাঁচপাড়া গ্রামের মৃত নজুব আলীর ছেলে মোঃ মুছা মিয়া(৪০)।

এ বিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বণিক এ প্রতিদেককে জানান, আমি এ থানায় আসার পর জুয়া, তীর খেলা ও মাদক মুক্ত করার ঘোষনা দিয়েছি এবং প্রতিটি বাজার এলাকায় মাইকিং করে এসব জুয়া, তীর খেলা ও মাদকের ব্যবসা বন্ধ করার জন্য সাবধান করে দিয়েছি। তারপরও এসব বন্ধ হচ্ছে না, বাধ্য হয়ে আমার টহল টিম “টিম জৈন্তাপুর” অভিযান চালিয়ে ১৫ জুয়ারীকে আটক করে নিয়ে আসে। তাদেরকে জুয়া আইনে মামলা দায়েরপূর্বক আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং জৈন্তাপুরকে সুন্দর নগরী হিসেবে গড়তে সচেতন মহলের সবাইকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার আহবান জানান।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট