বাংলাদেশের ৫ ব্যাংক চীনের কালো তালিকায়

প্রকাশিত: ৮:৩২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৯

বাংলাদেশের ৫ ব্যাংক চীনের কালো তালিকায়

চীন বাংলাদেশের ৫টি বেসরকারি ব্যাংককে কালো তালিকাভুক্ত করেছে। আমদানি মূল্য সময় মতো পরিশোধ না করার অভিযোগে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে চীনের ব্যাংকগুলো।

বাংলাদেশে ৫টি ব্যাংক হলো- ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড, পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড (সাবেক ফারমার্স) ও মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড। বাংলাদেশের এই ৫ ব্যাংকের সঙ্গে চীনের ব্যাংকগুলো লেনদেন কার্যক্রম বন্ধ করছে।

তবে বাংলাদেশের ব্যাংক সংশ্লিষ্টরা বলছেন, চীনে কিছু প্রতারক চক্র কাজ করছে। তারা দেশটির বিভিন্ন ব্যাংকের সহায়তায় রপ্তানি ঋণপত্র নিয়েছে। কিন্ত  চক্রটি বাংলাদেশে ঠিকমতো পণ্য পাঠাচ্ছে না। এতে প্রায়ই খালি কনটেইনার আসার ঘটনা ঘটছে। সেসঙ্গে বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানির কোনো নথিও নেই। এরপরও তারা পণ্যমূল্য চাচ্ছে। এসব ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক তদন্ত করছে, আদালতে মামলাও চলছে। এরপরও একরকম জোর করেই ৫টি ব্যাংককে কালো তালিকাভুক্ত করেছে চীন। এর মধ্য দিয়ে চীনের দুষ্টচক্রের ফাঁদে পড়ল এ দেশের ৫টি ব্যাংক।

জানা গেছে, প্রায় ১০ বছর আগে চীনে একই সমস্যা পড়েছিল ভারতের কয়েকটি ব্যাংক।

সম্প্রতি সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে চিঠি দিয়ে বাংলাদেশ গার্মেন্টস বায়িং হাউস অ্যাসোসিয়েশন বিষয়টি সুরাহার তাগিদ দিয়েছে। তারা এ সংক্রান্ত চিঠিও পাঠিয়েছে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ ব্যাংকে।

সংগঠনটির সভাপতি কেআই হোসেন বলেন, বাংলাদেশের ৫টি ব্যাংককে চীন সরকার কালো তালিকাভুক্ত করেছে। এতে আমরা ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে চীন থেকে পণ্য আমদানি করতে পারছি না। বিষয়টি সমাধানের জন্য ঢাকায় চীন দূতাবাসের সঙ্গে আলোচনা করেছি। তারা সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে সমাধানে আগ্রহী। সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে বিষয়টি আমরা জানিয়েছি।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট