গোয়াইনঘাটে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, যুবক আটক

প্রকাশিত: ২:১০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০১৯

সিলেটের গোয়াইনঘাটে পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এঘটনায় এক যুবককে আটক করা হয়েছে।

আটক যুবকের নাম আব্দুল কাদির (৩০)। সে উপজেলার লামাহাদারপার গ্রামের মরম আলীর ছেলে ও মাদক মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী।

বুধবার (২৮ আগস্ট) বিকেলে স্থানীয় এলাকাবাসী ওই যুবককে আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন। এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বুধবার রাতে গোয়াইনঘাট থানায় আব্দুল কাদিরের বিরুদ্ধে নারী-শিশু নির্যাতন ও ধর্ষন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়। সেই সঙ্গে ধর্ষিতা ওই স্কুুুল ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পুলিশের তত্বাবধানে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ২৬ আগষ্ট সোমবার দুপুরে লামা হাদারপাড় এলাকার পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রী স্কুলের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। স্কুলে গিয়ে সে দেখতে পায় তার ব্যবহৃত কলমটি হারিয়ে গেছে। ফলে হারিয়ে যাওয়া কলমটি খুঁজতে ওই শিক্ষার্থী পূণরায় স্কুল থেকে বাড়ির দিকে রওয়ানা দেয়। পথিমধ্যে এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক মামলার পরোয়ানাভুক্ত আসামী বখাটে আব্দুল কাদির স্কুল ছাত্রীটিকে একা পেয়ে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে নিজের বাড়িতে ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটির চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করলেও ধর্ষক আব্দুল কাদির পালিয়ে যায়। গত বুধবার ধর্ষক আব্দুল কাদিরকে দেখতে পেয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী তাকে আটক করেন। পরবর্তীতে থানা পুলিশকে খবর দিয়ে বখাটে আব্দুল কাদিরকে তাদের কাছে সোপর্দ করা হয়।

গোয়াইনঘাট থানার ওসি মো. আব্দুল আহাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পঞ্চম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের দায়ে এক বখাটেকে আটক করা হয়েছে। আটক ওই ধর্ষক এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি। তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষন মামলা রুজু করে বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। সেই সঙ্গে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট