জি-৭ সম্মেলন : কাশ্মীর ইস্যুতে ট্রাম্প-মোদীর বৈঠক

প্রকাশিত: ৬:১৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৬, ২০১৯

জি-৭ সম্মেলন : কাশ্মীর ইস্যুতে ট্রাম্প-মোদীর বৈঠক

কাশ্মীর নিয়ে ফ্রান্সে জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের সাইডলাইন বৈঠকে বসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ‘উত্তপ্ত কাশ্মীর ইস্যু’ নিয়ে মধ্যস্থতার জন্য বারবার প্রস্তাবের পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট সোমবার (২৬ আগস্ট) এই ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তানকে দ্বি-পাক্ষিকভাবে সমাধান করতে বলেছেন।

কাশ্মীর ইস্যুকে ট্রাম্পের দ্বিপাক্ষিক বিষয় বলা ভারতের পক্ষে একটি বড় জয় বলে দেখা হচ্ছে। ভারতের গণমাধ্যমের মতে, ভারত সরকারের জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের বিষয়টিকে পাকিস্তান বিশ্ব সংকট বানানোর চেষ্টা করেছে।

ফ্রান্সে ট্রাম্প বলেন, ‘স্বাভাবিকভাবেই ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যকার সমস্ত ইস্যু দ্বিপক্ষীয়, এ কারণেই আমরা অন্য কোনো দেশ এ নিয়ে মাথা ঘামাই না। কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে মোদী আমাকে জানিয়েছেন।’

ভারত জি-৭ গ্রুপের সদস্য না হলেও ফরাসি রাষ্ট্রপতি এমানুয়েল ম্যাক্রোর ব্যক্তিগত আমন্ত্রণে রবিবার বিয়ারিটজে উপস্থিত হন মোদী। শীর্ষ সম্মেলনে মোদী পরিবেশ, জলবায়ু এবং ডিজিটাল রূপান্তরর বৈশ্বিক ইস্যুতে কথা বলতে পারেন। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল এবং চিলির প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিনেরার সঙ্গেও সাক্ষাৎ করবেন মোদী, এরপরে শীর্ষ সম্মেলনে তিনি ট্রাম্পের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প এক মাসের মধ্যে দুবার কাশ্মীর ইস্যুতে ‘মধ্যস্থতা’ করার এবং মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট ‘চাইলে সহায়তা করার জন্য প্রস্তুত’ করবে বলে জানান। বৈঠকে নয়াদিল্লি এবং ওয়াশিংটন বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য প্রস্তুত বলে মনে হচ্ছে।

অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নেয়া নিয়ে পাকিস্তান বিশ্ব নেতাদের একাধিকবার হস্তক্ষেপের আহ্বান জানান। কাশ্মীরে ভারত জাতিগত গণহত্যা অভিযান পরিচালনা করছে বলেও বৈশ্বিক নেতাদের সমাধানের প্রস্তাব দেন।

তবে, মোদীর সঙ্গে বৈঠকে এ দিন ট্রাম্প বলেন, ‘আমি গতরাতেও প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে কাশ্মীর বিষয়ে কথা বলেছি। কাশ্মীরকে নিয়ন্ত্রণে রাখার ওপর জোর দিয়েছেন মোদী। তারা (ভারত) পাকিস্তানের সঙ্গে কথা বলবে এবং আমি নিশ্চিত, তারা খুব ভালো কিছু করতে সক্ষম হবে।’

এই বৈঠকে ট্রাম্প ও মোদী দু-দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক ও সামরিক বিষয়েও আলোচনা করেছেন। ভারত-যুক্তরাষ্ট্র অনেক বিষয়েই একসঙ্গে কাজ করবে বলে মোদী জানান। তিনি বলেন, ‘মার্কিন-ভারত যৌথভাবে সব কিছুতে কাজ করবে। যখনই আমাদের সুযোগ হয়েছে, আমরা (ট্রাম্প-মোদী) সাক্ষাৎ করেছি। ৭০ কোটি মানুষ ভোটে তাদের রায় জানিয়েছে। সে (ট্রাম্প) আমাকে টেলিফোনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।’

‘যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত উভয়েই গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রে ভারতীয়দের প্রচুর বিনিয়োগ রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে ভারতীয় নাগরিকদের যে শ্রদ্ধা দেয়া হয়, আমরা সেজন্য অনেক কৃতজ্ঞ।’

  •