জম্মু-কাশ্মীরের মানবাধিকার সম্পূর্ণরূপে লঙ্ঘিত হয়েছে : মমতা

প্রকাশিত: ৫:৫০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৯, ২০১৯

জম্মু-কাশ্মীরের মানবাধিকার সম্পূর্ণরূপে লঙ্ঘিত হয়েছে : মমতা

ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খুলেছেন দেশটির পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার (১৯ আগস্ট) মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাশ্মীর অঞ্চলে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে এই বিষয়টি তার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ করেছে বলে জানান।

অল ইন্ডিয়া তৃণমূল কংগ্রেসের (এআইটিসি) প্রধান টুইট করে বলেন, ‘আজ বিশ্ব মানবিক দিবস। কাশ্মীরে মানবাধিকার সম্পূর্ণরূপে লঙ্ঘিত হয়েছে। আসুন আমরা কাশ্মীরে মানবাধিকার এবং শান্তির জন্য প্রার্থনা করি’।

বিষয়টি তার হৃদয়ের খুব কাছাকাছি ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘মানবাধিকার এমন একটি বিষয় যা আমার হৃদয়ের খুব কাছাকাছি থাকে। বন্দীদশায় মানবাধিকার লঙ্ঘন রক্ষা করতে ১৯৯৫ সালে আমি টানা ২১ দিনের জন্য রাস্তায় ছিলাম।’

জম্মু ও কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী অনুচ্ছেদ ৩৭০ বাতিল করার পরে কঠোর সুরক্ষা ব্যবস্থা কয়েক দিন ধরে শিথিল করছে প্রশাসন। এই অঞ্চলে বিধিনিষেধ ও সহজ করতে শুরু করেছে ভারত। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে কেন্দ্রের এই পদক্ষেপের বরাবর সমালোচনা করেছিলেন এবং বলেছিলেন যে সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ ‘প্রক্রিয়াটি বাতিল করা’ ভুল ছিল।

এর আগে, জাতিসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিন উল্লেখ করে বলেছিলেন যে, বিশ্বের কোনও আন্ত-সরকারী সংস্থা ভারতীয় গণতন্ত্র বা মানবাধিকার নিয়ে ভারতের প্রতিশ্রুতি সম্পর্কে কখনও কিছু বলেনি।

কাশ্মীর বিষয়ে জাতিসংঘের সুরক্ষা কাউন্সিলের এক রুদ্ধদ্বার বৈঠকের পরে জম্মু ও কাশ্মীরের মানবাধিকার লঙ্ঘন সম্পর্কে এক প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ বলেছিলেন, ‘আমরা সেই দেশ যারা জাতিসংঘে বর্ণবাদ সম্পর্কিত বিষয় শুরু করেছি। ভারত ছিল সেই দেশ যা মানবাধিকার ঘোষণার সনদ পরিবর্তনের জন্য (কাজ করেছিল)। আমাদের সংবিধান একটি উন্মুক্ত বই এবং যদি কোনও সমস্যা থাকে তবে এগুলো আমাদের আদালত দ্বারা সম্বোধন করা হবে। কীভাবে আমাদের জীবন চালাতে হবে তা জানাতে আমাদের আন্তর্জাতিক ব্যস্ত সংস্থাগুলোর দরকার নেই।

  •