সিলেটে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি, কমছে পানি

প্রকাশিত: ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০১৯

সিলেটে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি, কমছে পানি

সিলেটে নদ-নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। তবে অধিকাংশ পয়েন্টেই তা বিপদসীমার উপরে রয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী কেবলমাত্র জগিঞ্জের আমলসিদ পয়েন্টে কুশিয়ারার পানি বেড়েছে। অন্যান্য সব পয়েন্টেই কমেছে। তাছাড়া বৃষ্টিও থেমেছে। মঙ্গলবার ও বুধবার সিলেট অঞ্চলে বৃষ্টি হয়নি। আর তাই পরিস্থিতির উন্নতি হতে শুরু করেছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সুরমা কানইঘাট পয়েন্টে বিপদসীমার ৯২ পয়েন্ট উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। আগের দিন তা ছিল ১ দশমিক ৩০ সেন্টিমিটার উপরে। ২৪ ঘন্টায় এই পয়েন্টে পানি কমেছে ৫৮ সেন্টিমিটার।

সিলেট পয়েন্টেও সুরমার পানি এখনো বিপদসীমার ৫৮ সেন্টিমিটার উপরে। সোমবার ছিল ৬৯ সেন্টিমিটার উপরে। এ পয়েন্টে পানি কমেছে ১১ সেন্টিমিটার।

আমলসিদে কুশিয়ারা বিপদসীমার ১ দশমিক ৮৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সোমবার তা ছিল ১ দশমিক ৪৪ মিটার উপরে। অর্থাৎ এ পয়েন্টে পানি ২৪ ঘন্টায় বেড়েছে ৪১ সেন্টিমিটার। পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তারা জানিয়েছেন, এখানে প্রকৃতির আচরণ অস্বাভাবিক।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শেওলায় কুশিয়ারার পানি কিছুটা কমলেও নদীটি এখনো বিপদসীমার ৯০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সোমবার তা প্রবাহিত হচ্ছিল বিপদসীমার ৯৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে। ২৪ ঘন্টায় এ পয়েন্টে পানি কমেছে ৪ সেন্টিমিটার।

শেরপুরে কুশিয়ারার পনি বিপদসীমা থেকে নেমে এসেছে ০৮ সেন্টিমিটার। সোমবার এ পয়েন্টে প্রবাহিত হচ্ছিল ৫২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে।

সারিঘাটে সারি নদীর পানি এখন বিপদসীমার ৯৩ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। আর সীমান্তবর্তী অপর পাহাড়ী নদী লোভার পানিও কমছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট