কমলগঞ্জে মণিপুরী বাড়িতে চোরদের হামলা, আহত ৪

প্রকাশিত: ৫:২৯ অপরাহ্ণ, জুন ৭, ২০১৯

কমলগঞ্জে মণিপুরী বাড়িতে চোরদের হামলা, আহত ৪

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে গরু চুরির প্রতিবাদ করায় চুরেরা সংখ্যালঘু মণিপুরী বাড়িতে হামলা ও লুটপাট করেছে। এ সময় চোরদের হামলায় মণিপুরী পরিবারের ৪জন আহত হয়েছেন।

ঈদের পরদিন বৃহস্পতিবার (৬ জুন) দুপুরে উপজেলার মাধবপুর পাঞ্জীবাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মণিপুরী পল্লীতে আতংক বিরাজ করছে। খবর পেয়ে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

আহত গরুর মালিক অরুণ সিংহ ও তার পরিবারের লোকজন অভিযোগ করে বলেন, গত ২৩ মে সকালে গরুকে ঘাস খাওয়ানোর জন্য বাড়ীর পাশে শ্মশান মাঠে খুটি মেরে রেখে কিছু দুরে ধানি জমিতে কাজ করছিলাম, দুপুরের দিকে দেখি দুটি লোক খুটি থেকে আমাদের গরু খুলে নিয়ে যাচ্ছে এসময় আমি এগিয়ে গেলে আমাদের পার্শ্ববর্তী ছয়ছিড়ি গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার ছেলে সাবাজ মিয়া (২৩) ও ফারুক মিয়ার ছেলে সাজ্জাদ মিয়া (২৪) গরু নিয়ে লুকিয়ে পড়ে। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে তাদের কে শ্মশানের একটি জংগলের মধ্যে গরুসহ ধরে ফেলি, কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তাদের সহযোগী মধু মিয়া (৩০) ধারালো একটি রাম দা নিয়ে আমার দিকে তেরে আসলে আমি প্রাণ বাঁচাতে দৌড়ে চলে এসে বাড়িতে জানালে চোররা গরু ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্যকে জানালে তিনি বিষয়টি দেখে দিবেন জানালে আমরা অপেক্ষায় থাকি।

ঘটনার ১৩ দিন পর বৃহস্পতিবার দুপুরে গরু চোর সাবাজ ও সাজ্জাদের নেতৃত্বে একদল দুষ্কৃতকারী রাস্তায় একা পেয়ে গরুর মালিক অরুন সিংহ (৫২) ও তার ভাই রাজকুমার সিংহ (৫৬)’র উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাদেরকে পিটিয়ে আহত করে। হামলায় মহিলাসহ আরও দুইজন আহত হয়েছেন। আহত অনিল কুমার সিংহ (৪৮) ও ফাজা দেবি সিংহ (৪৮) কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাতে অরুন কুমার বাদী হয়ে মাধবপুর ইউনিয়নের ছয়চিরী গ্রামের সাবাজ মিয়া, মধু মিয়া, সাজ্জাদ মিয়া, আফজাল মিয়া, কুদ্দুস মিয়া, আছলম মিয়া, বুদুর মিয়া, হান্নান মিয়া, জাহাঙ্গীর মিয়ার নাম উল্লেখ করে আরো ৩৫ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

আহত অরুণের স্ত্রী ফাজা দেবী বলেন, চুরচক্র ঘরবাড়ি ভাংচুর করে নতুন ঘরের রড ও সিমেন্ট ক্রয় করার জন্য সকেচে রাখা নগদ ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা ও ১ ভরি ওজনের একটি স্বর্ণের বালা ও মালা লুটপাঠ করে নিয়ে যায়। লুটপাঠ করে নিয়ে যাওয়ার সময় প্রাণে মারার হুমকি দেয়ায় ধর্মীয় এই সংখ্যালঘু পরিবারটি চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা প্রিয়া সিনহা জানান, গরু চুরির ঘটনাটি ১২/১৩ দিন আগের। তখনও ভূক্তভোগী অরুন সিংহকে দা দিয়ে কোপানোর চেষ্টা করে চুরদল। তিনি আত্বরক্ষার চেষ্টা করলে ও চিৎকারে লোকজন জানাজানি হলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এ সম্পর্কে মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও ওয়ার্ড মেম্বারকে জানানো হয়েছে। এই ঘটনার জের ধরে ১৩ দিন পর আবার হামলার ঘটনা ঘটল।

কমলগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক বেলায়েত হোসেন বলেন, এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে অরুন সিংহ বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত এজাহার দিয়েছে। পুলিশ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ সরেজমিন গিয়েছিল। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট