ঐক্যফ্রন্ট ছাড়াতে বিএনপিকে ১৫ দিনের আলটিমেটাম ইরানের

প্রকাশিত: ৭:১৫ অপরাহ্ণ, মে ৭, ২০১৯

ঐক্যফ্রন্ট ছাড়াতে বিএনপিকে ১৫ দিনের আলটিমেটাম ইরানের

বিএনপিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার আলটিমেটাম দিয়েছে ২০-দলীয় জোটের অন্যতম শরিক লেবার পার্টি। ২৩ মের মধ্যে বিএনপি যদি ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে সম্পর্কছেদ না করে, তবে ২৪ তারিখে সংবাদ সম্মেলন করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান।

সোমবার বিজেপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিভ রহমান পার্থ ২০-দলীয় জোটের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দেয়ার একদিনের মাথায় অপর শরিক লেবার পার্টির এমন আলটিমেটামে রাজনৈতিক অঙ্গনে নতুনমাত্রা যোগ করেছে।

মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, বিএনপিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছেড়ে দিতে হবে। না হলে ২০ দল ভেঙে যাবে। জোটের শরিক নেতাদের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে, তারাও এ বিষয়ে একমত। ঐক্যফ্রন্ট ছাড়তে বিএনপিকে আমরা ২৩ মে পর্যন্ত সময় বেঁধে দিলাম। এই সময়ের মধ্যে বিএনপি সিদ্ধান্ত না নিতে পারলে ২৪ মে সংবাদ সম্মেলন করে আমরা আমাদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেব।

লেবার পার্টিও কি ২০ দল ছাড়ছে- এমন প্রশ্নের জবাবে ডা. ইরান বলেন, না আমরা জোট ভাঙতে চাচ্ছি না। আমরা বিএনপিকে ঐক্যফ্রন্ট থেকে বের করে নিয়ে আসতে চাচ্ছি। কারণ ঐক্যফ্রন্টের পক্ষে জনমত নেই। ২০ দল বিএনপির পরীক্ষিত বন্ধু। দীর্ঘদিন ধরে আমরা একসঙ্গে পথ চলেছি। আমরা চাচ্ছি বিএনপি ঐক্যফ্রন্ট ছেড়ে সঠিক পথে রাজনীতি করুক।

মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের মতে, বিএনপিসহ ২০ দল জাতীয়তাবাদী ও ধর্মীয় মূল্যবোধে বিশ্বাসী। আর ঐক্যফ্রন্টের রাজনীতি এ ধারার রাজনীতির সঙ্গে সাংঘর্ষিক। তাই বিএনপিকে এখনই সিদ্ধান্ত নিতে হবে কার সঙ্গে থাকবে?

তিনি বলেন, ২০-দলীয় জোটের প্রধান দাবি খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং একটি অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন। অন্যদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়ার নাম মুখে নিতে চান না। ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে ফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা শহীদ জিয়ার, খালেদা জিয়ার নাম নেন না। তাই তাদের সঙ্গে বিএনপি ও ২০ দল চলতে পারে না।

বিএনপির এমপিদের শপথ নেয়ার সিদ্ধান্ত সঠিক হয়নি মন্তব্য করে ২০ দলের অন্যতম এই নেতা বলেন, যেখানে আমরাসহ দেশবাসী বলছি- ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন পাতানো নির্বাচন, ভোট ডাকাতির নির্বাচন; সেখানে বিএনপি কী করে এই সংসদে যোগ দিল। বিএনপির এমপিরা শপথ নিয়ে সরকারের পাতা ফাঁদে পা দিয়েছে। এখন কী করে তারা এই সংসদ প্রত্যাখ্যান করবে এবং নতুন নির্বাচন দাবি করবে- প্রশ্ন রাখেন ইরান।

ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের সমালোচনা করে লেবার পার্টির সভাপতি বলেন, তিনি সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছেন। সে কারণেই বিএনপিকে পাতানো নির্বাচনে যেতে প্রলুব্ধ করেছেন। আর এই নির্বাচনে তার দল প্রথমবারের মতো দুটি আসন পেয়েছে। তারা শপথও নিয়েছে।

বিএনপি ঐক্যফ্রন্ট না ছাড়লে কী করবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে ইরান বলেন, এতকিছুর পরও বিএনপি যদি ঐক্যফ্রন্ট না ছাড়ে, তবে আমরা তাদের সঙ্গে চলব কেন?

প্রসঙ্গত: এর আগে সোমবার ২০-দলীয় জোটের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি) এ জোট থেকে বের হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। দলটির চেয়ারম্যান আন্দালিভ রহমান পার্থ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট