ফোনালাপেই প্রমাণিত সরকার বেগম খালেদা জিয়াকে আটকে রেখেছে

প্রকাশিত: ১:২৭ পূর্বাহ্ণ, মে ৪, ২০১৯

ফোনালাপেই প্রমাণিত সরকার বেগম খালেদা জিয়াকে আটকে রেখেছে

বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, সরকারই বেগম খালেদা জিয়াকে আটকে রেখেছে এটা শেখ হাসিনা নিজে প্রমাণ করলেন।

সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া একটি ফোনালাপের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা লন্ডনে গিয়ে তার এক বিশেষ নেতাকে ফোন করে বলছে হোটেলে যেন নেতাকর্মীরা বেশি না আসে, দু-একজন আসলে আসতে পারে। হোটেল ভাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। আর বিএনপিকে বলে দিবেন- তারেক রহমান যদি বেশি বাড়াবাড়ি করে তাহলে তার মা কোনদিনও মুক্তি পাবে না। এ থেকেই বোঝা যায় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে কলকাঠি সরকার নাড়াচাড়া করছেন। আমরা যে বলেছি সরকার তাকে আটকে রেখেছে এটা শেখ হাসিনা নিজে প্রমাণ করলেন। এটা ভিডিওতে ভাইরাল হয়েছে।

আজ শুক্রবার (৩ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবে তৃতীয় তলায় আব্দুস সালাম হলে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দিদের মুক্তির দাবিতে সভার আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী নবীন দল।

মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, নেতৃত্বের ওপর দোষ চাপিয়ে বক্তৃতা ও হাততালি দেয়া একটু কমাতে হবে। আমাদের ভালোর জন্যই, আমাদের শক্তির জন্য। অনেকেই বলেন- এই ভোটকে অবৈধ ঘোষণা করে আমরা কেন সংসদে গেলাম। শেখ হাসিনা এরশাদকে জাতীয় বেঈমান ঘোষণা করে ১২ ঘণ্টার মধ্যে সেই বেইমান’র অধীনে নির্বাচনে গিয়েছেন না? মহাসচিব তো বলেছেন এটা রাজনীতির একটি ইউটার্ন। এটা বুঝতে হবে, সময় দিতে হবে, খাবার খাওয়ার সাথে সাথে হজম হয় না। বুঝতে হবে, সময় দিতে হবে, তাহলে রাজনীতি চিত্রটা অন্যরকম হবে।

সাবেক যুবদলের এই সভাপতি বলেন, একটা জিনিস বুঝেন না কেন, সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিটি মিডিয়ায় বলে দেয়া আছে। তারেক রহমানকে নিয়ে কোন কথা বলা যাবে না। কিন্তু গত ২-৩ মাস বিশেষ করে ১০ দিন থেকে প্রতিটি মিডিয়া এবং প্রতিটি মানুষের মুখে তারেক রহমানের নিয়ে কথা হচ্ছে। তার নেতৃত্ব নিয়ে কথা হচ্ছে। এটা কি জয়কে নিয়ে হচ্ছে? শেখ রেহেনাকে নিয়ে কি কোন কথা হচ্ছে? হচ্ছে না, এটা তারেক রহমানের প্রাপ্তি। তাহলে এতো হতাশ কেন? বুঝতে হবে বাংলাদেশে ভবিষ্যতে নেতৃত্ব দেবেন তারেক রহমান। তিনি যে বিএনপির কর্ণধর যা মিডিয়াতে ও জনগণের মধ্যে কথা হচ্ছে এটাই তার প্রমাণ।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন আহমেদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানার সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। আরও বক্তব্য রাখেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট