৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সিলেট জেলা বিএনপির সভা

প্রকাশিত: ২:০৭ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮

৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সিলেট জেলা বিএনপির সভা

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেট জেলা বিএনপি উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার বিকেলে নগরীর কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদে সোলেমান হলে এ সভার আয়োজন করা হয়।

জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সলের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফি আহমদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডাঃ শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, সম্মিলিত পেশাজীবি পরিষদ সিলেটের আহ্বায়ক ডাঃ শামীমুর রহমান, জেলা সহ-সভাপতি একেএম তারেক কালাম, হাজী শাহাব উদ্দিন, গোয়াইনঘাট উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম চৌধুরী, জেলা উপদেষ্ঠা মাজহারুল ইসলাম ডালিম, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন, জেলা বিএনপির কোষাধ্যক্ষ ডাঃ আরিফ আহমেদ মোমতাজ রিফা, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ খান জামাল, আবুল কাশেম, শামীম আহমদ, প্রচার সম্পাদক নিজাম ইউ জায়গীরদার, প্রকাশনা সম্পাদক এডভোকেট আল আসলাম মুমিন, ক্রীড়া সম্পাদক আনোয়ার হোসেন মানিক, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান পাপলু, জেলা বিএনপির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক সুরমান আলী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক এডভোকেট আনোয়ার হোসেন, যুব বিষয়ক সম্পাদক লুৎফুর রহমান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আল মামুন খান, জেলা বিএনপির তাতি বিষয়ক সম্পাদক অহিদ আহমদ তালুকদার, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বজলুর রহমান ফয়েজ ও হাবিবুর রহমান হাবিব, সহ-দফতর সম্পাদক এম এ মালেক, দিদার লস্কর, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম-আহ্বায়ক আব্দুল ওয়াহিদ সোহেল, সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মালেক, সহ-ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ফখরুল ইসলাম চৌধুরী, সহ-পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন,  এখলাছুর রহমান, ফরিদ আহমদ, কামরুজ্জামান দিপু, খালেদ আহমদ চেয়ারম্যান, ফারুক আহমদ, রফিকুল ইসলাম, ফলিক আহমদ, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন, মহানগর সভাপতি সুদীপ জ্যোতি এষ, মহানগর সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি আহসান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন জেলা বিএনপির সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক আমিন উদ্দীন আহমদ। অনুষ্ঠানে জেলা বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী মিছিল সহকারে যোগ দেন।

খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির তার বক্তব্যে বলেন- ‘দেশ জাতি চরম ক্রান্তিকাল অতিবাহিত করছে। আওয়ামী বাকশালী সরকার গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতেই পরিকল্পিতভাবে সংকট সৃষ্টি করছে। রাজনৈতিক মোকাবেলায় ব্যার্থ হয়ে তিন বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী, গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলার ফরমায়েসী রায়ে কারান্তরীণ করে রেখেছে। গণতন্ত্র, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের বৃহত্তর স্বার্থে বাকশালী সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে ঝাপিয়ে পড়তে হবে। জনতার বিজয় নিশ্চিত এবং খুবই নিকটে।

সভাপতির বক্তব্যে আবুল কাহের চৌধুরী শামীম বলেন- ‘আওয়ামীলীগ সকল দল নিষিদ্ধ করে একদলীয় বাকশাল কায়েম করেছিল। আর শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রবর্তন করে সকল দলের রাজনীতির পুনঃপ্রবর্তন করে এবং মানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিত করেন। প্রতিষ্ঠার ৪০ বছরে বিএনপি বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দলে পরিনত হয়েছে। এই জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়েই বাকশালী সরকার বিএনপিকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে। গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ষড়যন্ত্রমুলক মামলায় আটকে রেখেছে। তারা জানে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তাদের পালানোর পথ বন্ধ হয়ে যাবে। তাই তারা আবারো একতরফা নির্বাচনের পথ খুজছে। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন বাংলাদেশে আর পুরণ হবেনা। সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সাথে নিয়েই বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। নির্বাচন নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র হলে জনগণ তা ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে সর্বাত্মকভাবে প্রস্তুত রয়েছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট