ছাত্রদল নেতা মুন্না, লিটন ও রাজুকে কারাগারে প্রেরণ

প্রকাশিত: ৮:৫৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৩, ২০১৮

ছাত্রদল নেতা মুন্না, লিটন ও রাজুকে কারাগারে প্রেরণ

১৩ আগস্ট ২০১৮, সোমবার : সিলেটে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত ছাত্রদল নেতা ফয়জুল হক রাজু হত্যাকান্ডের ঘটনায় ছাত্রদলের তিন নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নিয়েছে কোতোয়ালী থানা পুলিশ। গতকাল রোববার (১২ আগস্ট) বিকেলে তাদের সোবহানীঘাট পুলিশ ফাঁড়ি থেকে কোতোয়ালী থানায় পাঠানো হয় বলে জানা যায়।

গতকাল রোববার দুপুর ২টার দিকে ময়নাতদন্ত শেষে নিহত রাজুর মরদেহ মানিকপীর কবরস্থান এলাকায় গোসল করাতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে জেলা ছাত্রদলের পদত্যাগী যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রাজুকে আটক করেন সোবহানীঘাট ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই কামাল আহমদ। খবর পেয়ে সন্ধ্যায় জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহসভাপতি লিটন আহমদ ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এখলাছুর রহমান মুন্না সোবহানীঘাট ফাঁড়িতে ছুটে যান। এসময় তিনজনকেই আটক করে কোতোয়ালী থানায় পাঠায় পুলিশ।

তিন ছাত্রদল নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়া হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন কোতোয়ালী থানার সহকারী কমিশনার সাদিক কাউসার দস্তগীর। তিনি বলেন, আটক নয় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আনা হয়েছে তবে তদন্তের স্বার্থে এই মুহূর্তে তাদের নাম বলতে পারছিনা। এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এদিকে আজ তিনজনকেই দুটি বিস্ফোরক মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে কোর্টে হাজির করে পুলিশ। সোমবার বিকেলে বিস্ফোরক দুটি মামলায় তিনজনকে আদালতে হাজির করলে আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

সিলেট মহানগর বিএনপি নেতা এম মখলিছ খান সুত্রে জানা যায় এখলাসুর রহমান মুন্নার মামলা নং ১২, তাং ৮/২/১৮ইং, বাদিঃ এস আই অনুপ কুমার চৌধুরী, বর্তমান আই ও মোঃ ফায়াজ উদ্দিন।
লিটন আহমদ ও আনোয়ার হোসেন রাজুর মামলা নং ২৬, তাং ২৬/৬/১৮ইং, বাদি মোঃ আলামিন, বর্তমান আই ও অনুপ কুমার চৌধুরী। এই দুটি মামলা দেখিয়ে পুলিশ আদালতে হাজির করলে আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট