জনগণের অধিকার ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১:০৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৭, ২০১৮

জনগণের অধিকার ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার’ বলে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার রাতে পাবলিক  এ্যাডমিনিস্টিটিভ সার্ভিস এসোসিয়েশনের এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গ্রামের মানুষকে সম্পূর্ণভাবে নাগরিকসেবা দেয়া হবে। দেশ ক্ষুধামুক্ত, এখন লক্ষ্য দারিদ্রমুক্ত করা।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে শপথ বাক্য পাঠ করান। আর কাউন্সিলরনদের শপথ পাঠ করান স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।

এছাড়া সকালে মিসরের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ওয়াহিদ আহমেদ শামসেলদিন এর সাথে এক বৈঠকে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরাণার্থী শিবিরের গাদাগাদি অবস্থার প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার এসব রোহিঙ্গাদের স্থানান্তরের জন্য একটি জায়গা তৈরি করছে যেখানে প্রায় এক লাখ রোহিঙ্গা একটু ভালো পরিবেশে বাঁচার সুযোগ পাবে।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ মিসরের সঙ্গে তার সম্পর্ককে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়। কারণ, স্বাধীনতা লাভের পর আরব দেশগুলোর মধ্যে মিসরই সর্বপ্রথম বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রী এ সময় ১৯৭৪ সালের নভেম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রথম ঐতিহাসিক মিসর সফরের প্রসঙ্গ স্মরণ করে বলেন, সেই সফরেই দুই দেশের সম্পর্কের ভিত রচনা হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রী এ সময় ২০০৯ সালে জোট নিরপেক্ষ আন্দোলন (ন্যাম) সম্মেলনে যোগ দিতে তার মিসর সফরের কথাও উল্লেখ করেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, তিনি দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এবং সহযোগিতাকে আরো বৃদ্ধির জন্য কাজ করবেন।

রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, মিসর বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী এবং বাংলাদেশের একটি বৈদ্যুতিক তার কারখানা প্রতিষ্ঠায় প্রস্তুত আছে। তিনি প্রধানমন্ত্রীর সন্ত্রাস এবং মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধেরও প্রশংসা করেন।

মিসরের রাষ্ট্রদূত দুই দেশের সাংস্কৃতিক বন্ধনকে জোরদার করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এই প্রসঙ্গে তিনি বাংলাদেশের সংস্কৃতি মন্ত্রীর সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেছেন বলে প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন।

  •