চার‌দি‌কে একটা অস্ব‌স্তিকর, অন্ধকার প‌রি‌বেশ : মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত: ১২:৪৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৭, ২০১৮

‘আমা‌দের চার‌দি‌কে কেন জা‌নি একটা অস্ব‌স্তিকর, অন্ধকার প‌রি‌বেশ। আমরা য‌দি গোটা বিশ্ব, পৃ‌থিবীর দি‌কে তাকাই, তাহ‌লে যুদ্ধ, বিগ্রহ, হত্যা, অন্যায় চল‌ছে’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএন‌পির মহাস‌চিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্প‌তিবার দুপু‌রে রাজধানীর ডি‌প্লোমা ইঞ্জি‌নিয়ার্স ইনস্টি‌টিউশন হল রু‌মে সঙ্গীত, নৃত্য, আবৃ‌ত্তি অভিন‌য়ে জাতীয় শিশুশিল্পী প্র‌তি‌যো‌গিতা ‘শাপলাকু‌ড়ি’র পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠা‌নের উদ্বোধনকা‌লে ফখরুল এসব কথা ব‌লেন। অনুষ্ঠানের আ‌য়োজন ক‌রে‌ জিয়া শিশু একা‌ডেমি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দে‌শে খব‌রের কাগজের পাতা যখন উল্টাই তখন দে‌খি এখা‌নে আমা‌দের শিশু‌দের ওপর নির্যাতন চল‌ছে, আমা‌দের মা‌য়েরা নির্যাত‌নের শিকার হ‌চ্ছেন, আমা‌দের ভাই‌য়েরা নির্যাত‌ন-নিপীড়‌নের মু‌খে পড়‌ছে। তখন স‌ত্যিকার অর্থেই আমরা ব্য‌থিত হই, বিপর্যস্ত হই। কখনো কখনো ম‌নে হয় আস‌লে চার‌দি‌কে অন্ধকার। আলো কি নেই? অবশ্যই আলো আছে। আর এই আলোর সন্ধা‌নেই আমরা এবং শিশুরা যা‌ব।

ফখরুল ব‌লেন, ‘জিয়া শিশু একা‌ডেমি আজ‌কে আমা‌কে এক‌টি ভিন্ন জগ‌তে নি‌য়ে এসেছে। য‌দিও এই জগৎটি আমার শৈশব, কৈ‌শোর ও যৌব‌নের। আমি এই জগ‌তেরই একজন মানুষ ছিলাম। আমার সাম‌নে এখন ব‌সে আছেন বি‌শিষ্ট চলচ্চিত্রকার ছটকু আহ‌মেদ। সৌভাগ্য হ‌য়ে‌ছিল, আমার তাঁর স‌ঙ্গে নাট্যজগ‌তে ঠাকুরগাঁওয়ে, যেখা‌নে আমার জন্ম সেখা‌নে অনেক নাট‌কে একস‌ঙ্গে কাজ করে‌ছি।‌ সেই জীবন ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। তাই আজ এখা‌নে এসে ম‌নে হয়েছে আমি সেই ভিন্ন জগত থে‌কে উপ‌স্থিত হ‌য়ে‌ছি।’

বিএনপি নেতা আরো বলেন, ‘আজ‌কে এখা‌নে শিশুরা যে পারফরম্যান্স রে‌খে‌ছে তা দে‌খে আমি অভিভূত হ‌য়ে‌ছি। জিয়া শিশু একা‌ডেমি, শাপলাকু‌ড়ি দীর্ঘকাল ধ‌রে কাজ কর‌ছে। উদীয়মান শিশু‌দের খুঁজে বের ক‌রে নি‌য়ে এসে সাংস্কৃ‌তিক অঙ্গনে যা‌তে ভা‌লো কর‌তে পা‌রে সেই চেষ্টা কর‌ছে।’ তি‌নি ব‌লেন, ‘আমা‌দের দেশ বাংলা‌দেশ। আমরা যুদ্ধ ক‌রে বাংলা‌দেশ স্বাধীন ক‌রে‌ছি। মু‌ক্তি‌যোদ্ধারা দেশ স্বাধীন কর‌তে রক্ত দি‌য়ে‌ছেন। যে দেশটা‌কে আমা‌দের সুন্দর ক‌রে গ‌ড়ে তোলার কথা, কিন্তু কী হ‌চ্ছে? তারপরও শিশু‌দের জন্য বাস‌যোগ্য কর‌তে আমা‌দেরও দা‌য়িত্ব তেম‌নি শিশু‌দেরও ‌তৈরি হওয়ার দা‌য়িত্ব নি‌তে হ‌চ্ছে।’

শিশু‌দের উদ্দেশ ক‌রে বিএন‌পির মহাস‌চিব ব‌লেন, ‘তোমরা উ‌ড়ে যাও, পাখা বন্ধ কোরো না। এক‌দিন না এক‌দিন তোমরা তী‌রে পৌঁছা‌বেই। নি‌শ্চিয়ই আমরা হাস্যোজ্জ্বল শিশু‌দের দেখ‌তে পাব। একটা ভা‌লো বাংলা‌দেশ দেখ‌তে পা‌ব।’

সংগঠনের পরিচালক এম হুমায়ুন কবিরের সভাপ‌তি‌ত্বে বক্তব্য দেন কণ্ঠশিল্পী খুরশীদ আলম, জিনাত ফারহানা, চলচ্চিত্রকার ছটকু আহমেদ, সোহানুর রহমান সোহান, অভি‌নেত্রী চাঁদনী, ইভান শাহরিয়ার শোভা প্রমূখ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট