সংসদ নির্বাচনে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই : কাদের

প্রকাশিত: ৪:৫১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০১৮

সংসদ নির্বাচনে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই : কাদের

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধানর অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আমি পরিষ্কার বলে দিতে চাই সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

শুক্রবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারর্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনের আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটি আয়োজিত এক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে কাদের বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বিএনপির রাজপথে কোনো আন্দোলনের প্রয়োজন নেই। তাকে মুক্ত করার জন্য আইনি লড়াইয়ের পরামর্শ দিচ্ছি।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের এক বক্তব্যে জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ফখরুল সাহেবরা যে গণঅভূত্থানের কথা বলছেন সে পরিস্থিতি এখন দেশে নেই, সেটা তারা করতে পারবেনও না। গত নয় বছরেও তারা অনেক হুমকি দিয়েছেন, পারেন নি।

ছাত্রলীগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ছাত্রলীগকে নিয়ে নতুন করে আওয়ামী লীগ ভাবছে। সামনে ছাত্রলীগের সম্মেলন রয়েছে। সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী নতুন মডেলে ছাত্রলীগকে বিকশিত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ছাত্রলীগ বলেন আর আওয়ামী লীগ বলেন, কেউ পার পাচ্ছে না। এ বিষয়ে শেখ হাসিনা জিরো টলারেন্স। অপকর্ম করেল কাউকে ছাড় দেওয়া হচ্ছে না, হবে না।

সেমিনারে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ কমিটির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

আরো পড়ুন…
ভুল ছেলেটারও হতে পারে: কাদের
দুই পাসের পাল্লাপাল্লিতে চাপা পড়ে হাত হারিয়ে মারা যাওয়া যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় চালককে একতরফা দোষ দিতে নারাজ সড়ক মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি মনে করেন, এখানে ছেলেটিরও ভুল থাকতে পারে।

গত ৩ এপ্রিল রাজধানীতে হাত হারানো রাজীব মারা যান মঙ্গলবার (১৭ এপ্রিল) প্রথম প্রহরে। পরদিন রাজধানীর হাতিরঝিলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম দেখতে যাওয়া কাদেরের কাছে এই মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন রাখেন সাংবাদিকরা।

এই মৃত্যুর পেছনে সড়কের অবস্থাপনা দায়ী কি না-এমন প্রশ্নে সড়ক মন্ত্রী বলেন, ‘সড়কের খারাপ-ভালো তো এর সঙ্গে জড়িত না। যারা চালাচ্ছে এবং গাড়িতে যারা আরোহী, তারা এর সঙ্গে দায়ী।’

‘হতে পারে ওই ছেলেটাও ভুল করতে পারে। তার দাঁড়ানোটা সঠিক নাও হতে পারে। এ ব্যাপারে চালকদের সচেতন হতে হবে।’

দুর্ঘটনার দিন রাজীব বিআরটিসির বাসে দরজায় দাঁড়িয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় স্বজন পরিবহনের এক বাসের চাপায় তার ডান হাত কনুইয়ের ওপর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। পরে রাজীব বাস থেকে পড়ে গিয়ে মস্তিস্কে আঘাত পান। আর এই আঘাতেই মৃত্যু হয়েছে তার।

রাজীবের হাত চাপা পড়ার ছবি প্রকাশ হলে এ নিয়ে তীব্র সমালোচনা তৈরি হয়। গণপরিবহনের নৈরাজ্যের বিষয়টি আবার সামনে চলে আসে।

তবে সড়ক মন্ত্রী এই দুর্ঘটনার পেছনে সড়কের কোনো অব্যবস্থাপনাকে দায়ী মনে করেন না। তিনি বলেন, ‘ছেলেটার হাত চলে গেছে, একটা ইমপরটেন্ট কাগজে আমি দেখলাম, সড়ক ব্যবস্থাপনাকে দায়ী করা হয়েছে। এর সঙ্গে সড়ক ব্যবস্থাপনার কী সম্পর্ক?’

তাহলে কে দায়ী?-এমন প্রশ্নে কাদের বলেন, ‘চালকদের সচেতনতা খুব জরুরি। এখানে সড়কের কোনো সম্পর্ক নেই। গাড়ি ওভারটেক করতে গিয়ে একজনের হাত গেল, এর সঙ্গে সড়কের কী সম্পর্ক?’

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট