বিএনপি ২০১৪ সালের নির্বাচন ঠেকাতে পারেনি, এবারও পারবে না : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৮:৪৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৯, ২০১৮

বিএনপি ২০১৪ সালের নির্বাচন ঠেকাতে পারেনি, এবারও পারবে না : প্রধানমন্ত্রী

ঠাকুরগাঁও : ‘বিএনপি-জামায়াত জোট ২০১৪-১৫ সালে জ্বালাও-পোড়াও করেছে, সম্পদ নষ্ট করেছে, এমনকি নির্বাচন ঠেকাতে মানুষ হত্যা করেছে’ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার বিকাল সোয়া তিনটায় ঠাকুরগাঁওয়ে জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে ৭১ টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা তো নতুন কিছু না। আপনাদের নিশ্চয় স্মরণ আছে, ২০১৪ সালের তারা নির্বাচন করবে না বলে, নির্বাচন ঠেকানোর নামে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। প্রায় সত্তরটা সরকারি অফিস পুড়িয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের হত্যা করেছে। গাড়িতে পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যা করেছে। তারা ২০১৩, ২০১৪,২০১৫ সালে এই সময়ের মধ্যে প্রায় পাঁচশয়ের মতো মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছে। সাড়ে তিন হাজারেরও বিশ মানুষকে পুড়িয়েছে।’

সংবিধান অনুযায়ী সময়মতো নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘বিএনপি ২০১৪ সালের নির্বাচন ঠেকানোর চেষ্টা করেছে, পারেনি। এবারও পারবে না। জনগণের ওপর যে দলের আস্থা আছে, যারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে, তারা নির্বাচনে অংশ নেবে। বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ না নিলে আমাদের কিছুই করণীয় নেই।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, মির্জা ফখরুল ঢাকায় বসে মিথ্যা কথা বলেন, এতো মিথ্যা কথা বললে আল্লাহ নারাজ হবে। বিএনপির সময় তিনি ছিলেন বিমানমন্ত্রী কিন্তু তার এলাকার বিমানবন্দর বন্ধ করে দিয়েছেন। আর বিমানকে লোকসানের মুখে ফেলে ধ্বংস করে দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আমার কাছে উন্নয়নের জন্য কোনো দাবি করতে হবে না। আমি জানি কোথায় কি দরকার। এদেশে ৮১ সাল থেকে বাংলার আনাচে-কানাচে ঘুরেছি। আর আমার বাবার কাছে শুনেছিলাম কোথায় কি উন্নয়ন করতে হবে। তাই আমি সমগ্র দেশের উন্নয়ন করে যাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, এদেশে কেউ গৃহহীণ থাকবে না, অনাহারে থাকবে না। আমরা ঘর করে দিবো, দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তুলবো। আমরা চাই দেশ এগিয়ে যাক। ঠাকুরগাঁওয়ে একটি বিশ্ববিদ্যালয় করে দেব। স্পেশাল ইকোনোমিক জোন গড়ে তুলবো।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ঠাকুরগাঁওয়ে যেন একটি আইটি পার্ক হয় তার ব্যবস্থা করবো, মহিলাদের জন্য হোস্টেল করে দেব। লানিং এন্ড আনিং টেইনিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে। যাতে সবাই অনলাইনে আয় করতে পারে।

তিনি আরো বলেন, ঠাকুরগাঁও থেকে যেন আন্তঃনগর ট্রেন চলে সে ব্যবস্থা করে দেব। আওয়ামী লীগ আসলে দেশের উন্নয়ন হয়, আর বিএনপি আসলে খুন-সন্ত্রাস বেড়ে যায়। সরকারের ধারাবাহিকতা থাকলে উন্নয়ন ত্বরান্বিত হয়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আগামী ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে নির্বাচন হবে আমি নৌকা মার্কায় ভোট চাই, আপনারা ওয়াদা করেন নৌকা মার্কায় ভোট দিবেন। আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দেন আমি সোনার বাংলা করে দেব।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট