শাবিতে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন

প্রকাশিত: ১১:২৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৬, ২০১৮

শাবিতে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন

যথাযোগ্য মর্যাদায় ও বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে মহান স্বাধীনতা দিবস পালিত হয়েছে। সোমবার দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য কর্মসূচীর মাধ্যমে দিবসটি পালন করে শাবি প্রশাসন।

দিনের শুরুতে সকাল সাড়ে ৭টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং সকাল ৮ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবনের সামনে শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দীনের উপস্থিতে সারাদেশের সাথে একযোগে সমবেত কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।
পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে দিবসের কার্যক্রম শুরু করেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দীন আহমেদ। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি, শিক্ষকদের বিভিন্ন সংগঠন, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাব, কর্মকর্তা, কর্মচারী ইউনিয়ন, সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন শহীদ মিনারে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

এদিকে সোমবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মিনি অডিটোরিয়ামে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আলোচনাসভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাবি উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ শাখা ছাত্রলীগের সমালোচনা করে বলেন, ছাত্রলীগের সম্প্রতি কর্মকাণ্ডের কারণে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে। ভবিষ্যতে যারা এধরনের অপরাধমূলক কাজের সাথে জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এই ছাত্রলীগের জন্য সরকারেরও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে। আর নিজেদের মধ্যে মারামারি-খুনাখুনি বন্ধ করার পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুকে অন্তরে ধারণ করে ঠিকভাবে পড়াশোনা করতে হবে। আমি আশা করি, এখানে যারা পড়াশোনা করছে তারা দেশের উন্নয়নে ও সমৃদ্ধিরক্ষার্থে কাজ করবে।

তিনি আরও বলেন, ‘হলগুলো হবে শুধু পড়াশোনার কেন্দ্র। এখানে কোন ধরনের মারামারি-কাটাকাটি হবে না এবং থাকবে না অস্ত্রের ঝনঝনানি। অছাত্র ও অবৈধ ছাত্রদের হল থেকে বিতাড়িত করতে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া যারা দশ বছর ধরে ছাত্ররা হলে থাকছে, ফাও খাওয়ার পাশাপাশি মাদকদ্রব্য গ্রহণের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এসব কাজে তিনি প্রশাসনকে সহযোগিতা করতে শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।
তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। আর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তাঁর সফল নেতৃত্বের কারণে আমরা পাকিস্তান থেকে অনেক অগ্রসর। আমরা অর্থনীতি ও মানব উন্নয়নের সকল সূচকে পাকিস্তান থেকে এগিয়ে আছি।

আলোচনায় সভায় প্রফেসর সৈয়দ হাসানুজ্জান সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন প্রফেসর ড. মো. ইলিয়াস উদ্দীন, প্রফেসর ড. সৈয়দ সামসুল আলম, প্রফেসর ড. মো. আখতারুল ইসলাম, প্রফেসর ড. এসএম সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

  •