আপনি তো বহুরূপী, বহু দল করেছেন : মওদুদকে বললেন নাসিম

প্রকাশিত: ৮:০৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৭, ২০১৮

আপনি তো বহুরূপী, বহু দল করেছেন : মওদুদকে বললেন নাসিম

‘বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বহুরূপী আখ্যা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম’।

শনিবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি)-জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান হলে’ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এছাড়া বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মফিজুর রহমান, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন। এতে সভাপতিত্ব করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ছাত্রলীগের সভাপতি বরিকুল ইসলাম বাধন। সভা পরিচালনা করেন হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন।

তিনি আরো বলেন, মওদুদ বলেছেন, বিরোধীদলবিহীন আরেকটি নির্বাচনের নীলনকশা করছে সরকার। আমি বলতে চাই আপনি তো বহুরূপী। আওয়ামী লীগও করেছেন বিএনপিও করছেন। দলবিহীন নয় জনগণকে সাথে নিয়ে আমরা নির্বাচন করবো। কোনো দলের জন্য নির্বাচন আটকে থাকবে না।

তিনি বলেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, ‘বিরোধী দলবিহীন আরেকটি নির্বাচন করার নীল নকশা করছে সরকার।’ মওদুদ সাহেবকে বলতে চাই আপনি তো বহুরূপী, বহু দল করেছেন। সারা দুনিয়ায় যেমন জনগণকে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচন হয়, কোনো দল এলো, না এলো, সেটা নিয়ে আলোচনা হয় না। ঠিক তেমনি এদেশেও আগামী নির্বাচন হবে, জনগণকে সঙ্গে নিয়েই নির্বাচন হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেন, বেগম খালেদা জিয়া আপনি জেলে আছেন কেন? এই মওদুদ সাহেবের জন্য আপনি জেলে আছেন। এই আইনজীবী যতদিন আছে, আপনার মুক্তির কোনো সম্ভাবনা নেই। এইসব আইনজীবীরা দ্বন্দ্ব লাগায়, এদেরকে বিশ্বাস করবেন না। পয়সা দিয়ে ভালো আইনজীবী রাখেন, দেখবেন আপনি বেরিয়ে গেছেন।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন। এই বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের শক্তি থাকবে, নাকি ঘাতকের বাংলাদেশ হবে, অন্ধকার হবে নাকি আলোকিত হবে, তার প্রমাণ হবে আগামী নির্বাচনে। তাই ছাত্রলীগকে মনে রাখতে হবে, আগামী কয়েক মাস গুরুত্বপূর্ণ মাস। এই সময় চক্রান্ত হবে নির্বাচন ভণ্ডুল করার জন্য। তোমাদের ঐক্যবদ্ধ থেকে ছাত্রলীগের বর্তমান প্রেসিডেন্ট-সেক্রেটারির নেতৃত্বে এই চক্রান্ত প্রতিহত করতে হবে।

অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, বিএনপি মহাসচিব বলেছেন, আওয়ামী লীগ দেওলিয়া হয়ে গেছে। তাই নির্বাচন দিতে ভয় পায়। আমরা তাদের বিনীতভাবে বলতে চাই, আপনারা এমন একটি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন, এমন একটি দলের কথা বলছেন, যার কথা বলার আগে আপনাদের লজ্জিত হওয়া উচিত ছিল। আপনাদের দলের নেত্রী খালেদা জিয়া। উনি এতিমের টাকা আত্মসাতের দায়ে আদালতের রায়ে সাজা পেয়ে জেলখানায় আছেন। আপনাদের লজ্জিত হওয়া উচিত ছিল, আপনারা এই ধরনের নেত্রীর নেতৃত্বে দল পরিচালনা করছেন। আপনাদের লজ্জিত হওয়া উচিত ছিল, এমন একজনকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসনের দায়িত্ব দিয়েছেন, যিনি বিদেশের আদালতেও দণ্ডপ্রাপ্ত হয়েছেন। সিঙ্গাপুরের আদালতে তিনি ৭ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হয়েছেন।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট