বাংলাদেশের জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞ যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত: ৬:০৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩, ২০১৮

বাংলাদেশের জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞ যুক্তরাষ্ট্র

মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রতি দুই বাহু প্রসারিত করে দেওয়ায় বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক নিরাপত্তা উপদেষ্টা লিসা কার্টিস। রোহিঙ্গা সংকটে মানবিক সাড়া দেওয়ায় বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশের জনগণের প্রশংসা করেন তিনি।

আজ শনিবার দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে ট্রানজিট ক্যাম্পে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন লিসা কার্টিস। এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট।

রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়ে লিসা কার্টিস বলেন, বিপদগ্রস্ত রোহিঙ্গাদের জন্য নিজেদের দুই বাহু প্রসারিত করে দেওয়ায় বাংলাদেশের প্রতি কৃতজ্ঞ যুক্তরাষ্ট্র। রোহিঙ্গাদের সব ধরনের সহযোগিতা করতে মার্কিন সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে একযোগে কাজ করবে। এ ছাড়া মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা যাতে নিরাপদে ফিরে যেতে পারে সে লক্ষ্যেও কাজ করবে মার্কিন সরকার। পাশাপাশি কফি আনান কমিশনের রিপোর্ট বাস্তবায়ন চেয়ে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা ও জীবন মান উন্নয়নে পুরো বিশ্ব কাজ করছে। বিশ্বনেতারা এই পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন এবং তাঁরা রোহিঙ্গাদের পাশেই আছেন।

এ সময় মার্শা বার্নিকাট বলেন, রোহিঙ্গারা যেন আত্মমর্যাদা ও নিরাপত্তার সঙ্গে তাঁদের নিজ দেশে ফিরে যেতে পারে সেই লক্ষ্যে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্র। এ নিয়ে মিয়ানমারে সঙ্গেও সমানভাবে আলোচনা চালিয়ে নিচ্ছে তাঁর দেশ।

মার্কিন প্রতিনিধিদলটি আজ কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং, বালুখালী ও টেকনাফ উপজেলার শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। তাঁরা ক্যাম্পের রোহিঙ্গাদের সঙ্গে একান্তে কথাও বলেন।

ক্যাম্পে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে তাদের উপর মিয়ানমার সেনাদের বর্বরতার কথা শোনেন সফরকারীরা। এ সময় আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন তাঁরা।

এর আগে টেকনাফের বাহারছড়া শামলাপুর এলাকায় আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) স্বাস্থ্য ক্লিনিক এবং ত্রাণ তৎপরতা পরিদর্শন করে মার্কিন প্রতিনিধিদল।

  •