মুক্তিযুদ্ধ ভূখন্ড দখল করার জন্য হয়নি : সুলতানা কামাল

প্রকাশিত: ১:০৬ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৭

মুক্তিযুদ্ধ ভূখন্ড দখল করার জন্য হয়নি : সুলতানা কামাল

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা সুলতানা কামাল বলেছেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ভূখন্ড দখল করার জন্য হয়নি। দেশের মানুষের মানুষের, ধনী-গরীব বৈষম্য দূর করতে। দেশের মানুষের নিজেদের পরিচয়ে পরিচিত হতে, মান মর্যাদা নিয়ে বাস করার জন্য আন্দোলন করা হয়েছিল।
গত শনিবার রাতে মণিপুরী রাজাবাড়ি সার্বজনীন বিজয় দিবস উদযাপন পরিষদের আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আর বলেন, সারা বিশ্বে বাংলাদেশ স্বাধীন দেশ হিসেবে নিজের পরিচয় প্রতিষ্ঠিত করেছে। অর্থনৈতিক উন্নয়ন,সূচকের উন্নয়ন, নারীদের অগ্রসারমাণতা হিসেবে সারা বিশ্বে উদহারণ হিসেবে বাংলাদেশের নাম উচ্চারিত হচ্ছে। আর এ অর্জন সম্ভব হয়েছে মুক্তিযোদ্ধাদের অবদানের কারণে। অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাধ্যমে।
আলোচনা সভায় মণিপুরী রাজাবাড়ি সার্বজনীন বিজয় দিবস উদযাপন পরিষদের আহবায়ক শান্তনা দেবীর সভাপতিত্বে ও সদস্য কাংখিত রাজ দত্তের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল (এম.এল.) এর কেন্দ্রীয় পলিটব্যুরো সদস্য কমরেড ধীরেন সিংহ, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী সুপ্রিয় চক্রবর্তী রঞ্জু, সিলেট সিটি করপোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শান্তনু দত্ত সন্তু, নাট্যকার বেলাল আহমদ।
সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এম.এল. এর কেন্দ্রীয় পলিটব্যুরো সদস্য কমরেড ধীরেন সিংহ বলেন, মুক্তিযোদ্ধের পর এ দেশে অনেক রাজাকার আলবদর বাহিনী মন্ত্রীর মর্যাদা পেয়েছে। তাদের গাড়িতে জাতীয় পতাকা উড়িয়ে ভিআইপির মর্যাদা নিয়েছে। তবে তাদের অনেকই আজ বিচার হয়েছে। শাস্তিও কার্যকর হয়েছে। ভবিষ্যতে যাতে কোন রাজাকার আলবদর জাতীয় পতাকা উড়িয়ে ভিআইপি মর্যাদা নিতে পারে সেদিকে যুব সমাজকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহবান জাননা তিনি।
আলোচনা সভা শেষে দিনব্যাপী বিভিন্ন খেলাধুলার আয়োজনে অংশ নেওয়া শিশু-কিশোরদের মধ্যে পুরষ্কার তোলে দেন অতিথিরা।
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন পলাশ মুখার্জি, শানু সিংহ, নিংতম সিংহ, প্রদীপ কুমার, সুদিপ্ত দেব, সৌম দেব, রাজীব খান প্রমুখ।

আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরণী শেষে মনোজ্ঞ সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠিত হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট